আনন্দ উচ্ছ্বাসে আহ্বকাব বার্ষিক বনভোজন আয়োজিত

নিজস্ব প্রতিবেদক: চোখকে যেমন বিশ্রাম দিতে হয়, মনকেও মাঝে মাঝে বিশ্রাম দিতে হয়। সে বিশ্রাম হতে পারে নানা উপায়ে। কেউ ঘুমিয়ে বিশ্রাম দেন কেউ, কেউ ভ্রমণে যেয়ে। মনকে যদি বিশ্রাম ও আনন্দ দুটোই দিতে চান, তবে ভ্রমণ কিংবা বেড়াতে যাওয়ার কোন বিকল্প নেই। এতে করে মন পরিতৃপ্ত হয়, কাজের স্বতস্ফূর্ততা বাড়ে। বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়ে দেশের প্রাণিসম্পদ স্বাস্থ্যসেবা খাতে জড়িত ব্যবসায়ীদের সংগঠন এনিমেল হেলথ্ কোম্পানিজ এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (AHCAB) শনিবার (২১ ডিসেম্বর) সংগঠনের সদস্য ও পরিবারের জন্য বার্ষিক বনভোজন-২০১৯ আয়োজন করে। প্রচন্ড শীতকে উপেক্ষা করে সংগঠনের সদস্যরা পরিবারের সদস্যদের নিয়ে সকালে রওনা হয় গাজীপুরের ভূবন পিকনিক অ্যান্ড স্যুটিং স্পটে।

সকালে নাস্তার পর শুরু হয় খেলাধুলা পর্ব। ছোট-বড়, নারী-পুরুষ সবার জন্য ছিল খেলার আয়োজন। সেইসাথে ছিল পুরস্কার। সেই সাথে ছিল সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, র‌্যাফেল ড্র ইত্যাদি। বনভোজনে আহ্কাব সাধারণ ও নির্বাহী সদস্যগণ ছাড়াও অংশগ্রহণ করেন প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ডা. আবদুল জব্বার শিকদার, ডিডি (এ্যাডমিন) ডা. এ কে এম আতাউর রহমান, সাধারণ সম্পাদক ডা. কামরুজ্জামান সাবেক সভাপতি (আহ্কাব) একেএম আলমগীর, ওয়াপসা-বিবি সাধারণ সম্পাদক ডা. এম আলী ইমাম প্রমুখ।

ডিএলএস ডিজি আবদুল জব্বার শিকদার বলেন, এখন থেকে প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের কোন কাজের ক্ষেত্রে সময়ক্ষেপন করা হবেনা। সেক্টরের উন্নতির জন্য আমরা আপনাদের সর্বোচ্চ সহযোগিতা করবো। পোলট্রি ও ডেইরি ফার্ম নিবন্ধনের জন্য কারো দ্বারে দ্বারে ঘুরতে হবেনা। নিবন্ধনের জন্য অনলাইন পদ্ধতিতে ফর্ম পূরণ করে পাঠিয়ে দেবেন এবং কোন সমস্যা হলে আমাদের জানাবেন। এছাড়ও গুড ফার্ম প্র্যাকটিস এবং নিরাপদ মাংস, দুধ, ডিম উৎপাদনের ব্যাপারে এ সময় জোর দেন তিনি।

This post has already been read 5721 times!