Sunday 21st of April 2024
Home / অর্থ-শিল্প-বাণিজ্য / নতুন প্রযুক্তির যন্ত্র ব্যবহারের উপর কৃষক সমাবেশ

নতুন প্রযুক্তির যন্ত্র ব্যবহারের উপর কৃষক সমাবেশ

Published at ডিসেম্বর ১১, ২০১৮

ফরিদপুর সংবাদাতা: যুগ বদলের হাওয়ায় অনেক কিছু বদলে গেছে। জোড়া গরু আর লাঙ্গল জোয়াল এখন কদাচিৎ চোখে পড়ে, কিন্তু ফসল কাটতে কৃষকের হাতে কাস্তে এখনও তার ঐতিহ্য ধরে রেখেছে। বর্তমান বাজার অর্থনীতির বৈশ্বিক ব্যবস্থায় শ্রমের বাজার ধরতে আমরা বিদেশগামী। দেশে তাই শ্রমের কদর বেড়েছে আগের চেয়ে অনেক বেশী; তাল মিলিয়ে বেড়েছে শ্রম নির্ভর ফসল উৎপাদনের খরচও। খরচ কমাতে সময়ের প্রয়োজনেই বাড়ছে আধুনিক কৃষি যন্ত্রপাতির ব্যবহার। ইউ এস এ আই ডির অর্থায়নে আন্তর্জাতিক ভুট্টা ও গম উন্নয়ন কেন্দ্র (সিমিট) তৃণ জাতীয় ফসল কাটতে রিপার মেশিনের ব্যবহার ও সেবা ব্যবসার প্রচলন শুরু করতে সিসা এম আই প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে। রিপার মেশিনে আঁটি বাধা যেতনা ফলে শ্রম নির্ভরতা কিছুটা কমলেও  কৃষকের প্রত্যাশা ছিল ফসল কাটা এবং আঁটি বাধা।

রবিবার (৯ ডিসেম্বর) ফরিদপুর সদর উপজেলার হামদে মুন্সরি ডাঙ্গী গ্রামে আন্তর্জাতিক ভুট্টা ও গম উন্নয়ন কেন্দ্র (সিমিট), কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর ও স্থানীয় এনজিও এসডিসি এর যৌথ উদ্যোগে কৃষকের প্রত্যাশার অনূরুপ নূতন প্রযুক্তির ধান ও গম কর্তন যন্ত্র (রিপার বাইন্ডার) উপর কৃষক সমাবেশের আয়োজন করে।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, কৃষি স¤প্রসারণ অধিদপ্তর, ফরিদপুর অঞ্চল এর উপ-পরিচালক কার্তকি চন্দ্র চক্রবর্তী। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, মো. আবুল বাসার মিয়া, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা, ফরিদপুর সদর, ফরিদপুর; সোসাইটি ডেভেলপমেন্ট কমিটি (এসডিসি) এর নির্বাহী পরিচালক কাজী আশরাফুল হাসান।

প্রধান অতিথি তাঁর বক্তব্যে বলেন, কৃষিতে এই ধরনের যন্ত্রের ব্যবহার আমাদের কৃষিকে আরও সহজ ও সমৃদ্ধশালী করবে। এ জন্য তিনি সিমিটের প্রতি আন্তরিক ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।

সমাবেশে হামদে মুন্সরি ডাঙ্গী ও পার্শ্ববর্তী গ্রামের শতাধিক কৃষক ও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ, সিমিট-বাংলাদেশ ফরিদপুর হাব এর মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাবৃন্দ এবং স্থানীয় উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। উপস্থিত কৃষকদেরকে যন্ত্রটি (রিপার বাইন্ডার) চালিয়ে দেখানো হয় এবং তাদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেয়া হয়। সংরক্ষণশীল কৃষি (Conservation Agriculture) প্রযুক্তিতে নূতন প্রযুক্তির ধান ও গম কর্তন যস্ত্রের সংযোগ  ও মাঠে তার ফলাফল দেখে উপস্থিত সবাই কৌতুহলী হন এবং যন্ত্রটির সুবিধা-অসুবিধা সম্বন্ধে সম্যক ধারনা লাভ করেন। উপস্থিত কৃষকেরা আগামীতে নতুন নতুন প্রযুক্তির যন্ত্র ব্যবহার করতে পারবেন বলে আগ্রহ প্রকাশ করেন।

This post has already been read 1944 times!