Tuesday 18th of June 2024
Home / আঞ্চলিক কৃষি / ইউএসএআইডি প্রতিনিধি দলের বারি পরিদর্শন

ইউএসএআইডি প্রতিনিধি দলের বারি পরিদর্শন

Published at জানুয়ারি ২৯, ২০২৪

গাজীপুর সংবাদদাতা: ইউএস এজেন্সি ফর ইন্টারন্যাশনাল ডেভেলপমেন্ট (ইউএসএআইডি), মিশিগান স্টেট ইউনিভার্সিটি এবং ফিড দ্যা ফিউচার গ্লোবাল বায়োটেক পটেটো পার্টনারশিপ প্রকল্পের প্রতিনিধি দল আজ সোমবার (২৯ জানুয়ারি) বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট (বারি) পরিদর্শন করেন।

প্রতিনিধি দলটি বারি সদর দপ্তরের সামনে এসে পৌঁছালে তাদের স্বাগত জানান ইনস্টিটিউটের বিজ্ঞানী ও কর্মকর্তাবৃন্দ। পরে বারি মহাপরিচালকের সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত মত বিনিমিয় অনুষ্ঠানে বারি’র মহাপরিচালক ড. দেবাশীষ সরকার এবং পরিচালক (গবেষণা) ড. মো. আব্দুল্লাহ ইউছুফ আখন্দ এর সাথে ‘গ্লোবাল বায়োটেক পটেটো পার্টনারশিপ ৩-আর জিন সমৃদ্ধ লেট ব্লাইট রোগ প্রতিরোধী আলুর কনফাইন্ড ফিল্ড ট্রায়াল’ এবং ‘রোগ প্রতিরোধী আলু উদ্ভাবনের’ গবেষণা অগ্রগতির বিভিন্ন বিষযয় নিয়ে আলোচনা করেন।

এসময় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ইউএসএআইডি এর ইন্টারন্যাশনাল এগ্রিকালচার রিসার্চ এডভাইজার ড. ট্রেসি কে. পাওয়েল (Dr. Tracy K. Powell); প্রজেক্ট ম্যানেজমেন্ট স্পেসালিস্ট এন্ড ম্যানেজার ইজি অফিস, ইউএসএআইডি- মোহাম্মাদ সৈয়দ শিবলী; ফিড দ্যা ফিউচার গ্লোবাল বায়োটেক পটেটো পার্টনারশিপ প্রকল্পের কমিউনিকেশন এন্ড এডভোকেসি গ্লোবাল রিসোর্চ লিড জেন ফিয়েরো (Jan Fierro) এবং ড. ফিলিপ ওয়ার্টন (Dr. Philip Wharton) । অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মুখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা (জীব প্রযুক্তি বিভাগ) ড. মাহমুদা খাতুন; ঊর্ধ্বতন বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা (জীব প্রযুক্তি বিভাগ) ড. মোহাম্মদ কামরুল হাসান;  বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা (জীব প্রযুক্তি বিভাগ) শ্যাম চন্দ্র হালদার । এ সময় প্রতিনিধি দল বারি’র বায়োটেকনলোজি গবেষণাগার  এবং ৩-আর জীন সমৃদ্ধ লেট ব্লাইট প্রতিরোধী আলুর জাত উন্নয়নে চলমান কনফাইন্ড ফিল্ড ট্রায়াল মাঠ পরিদর্শন করেন।

উল্লেখ্য, ফিড দ্যা ফিউচারের অধীনে, ইউএস এজেন্সি ফর ইন্টারন্যাশনাল ডেভেলপমেন্ট (ইউএসএআইডি) দ্বারা প্রদত্ত সহায়তার মাধ্যমে মিশিগান স্টেট ইউনিভার্সিটি’র তত্ত্বাবধানে বাংলাদেশে বারি এবং ফার্মিং ফিউচার বাংলাদেশ প্রকল্প কার্যক্রম পরিচালনা করছে। এই প্রকল্পের মাধ্যমে বাংলাদেশ, ইন্দোনেশিয়া, কেনিয়া এবং নাইজেরিয়ার কৃষকদের জন্য ৩-আর জিন সমৃদ্ধ লেট ব্লাইট রোগ প্রতিরোধী আলুর জাত উদ্ভাবন ও বাজারজাত করা হবে।

This post has already been read 604 times!