Thursday 1st of December 2022
Home / বিজ্ঞান ও গবেষণা / ব্রি’র সাশ্রয়ী বীজ বপন যন্ত্র উদ্ভাবন

ব্রি’র সাশ্রয়ী বীজ বপন যন্ত্র উদ্ভাবন

Published at নভেম্বর ১, ২০২২

*ড. একেএম সাইফুল ইসলাম ও **কৃষিবিদ এম আব্দুল মোমিন : কৃষিতে শ্রমিকের স্বল্পতায় শ্রমঘন কাজগুলোতে যন্ত্রের ব্যবহার দিন দিন বাড়ছে। ধান চাষাবাদের গুরুত্বপূর্ণ কাজগুলোর মধ্যে চারা রোপণ অন্যতম। প্রচলিত পদ্ধতিতে ধানের চারা রোপণে অধিক শ্রমিকের প্রয়োজন হয়। যন্ত্রের সাহায্যে ধানের চারা রোপণের ব্যবহার দিন দিন বাড়ছে। রোপণ যন্ত্রে ব্যবহারের জন্য ম্যাট টাইপ পদ্ধতিতে চারা তৈরি করতে হয়। ম্যাট টাইপ চারা তৈরিতে সমভাবে বীজ ছিটানো অত্যাবশ্যকীয়। সমভাবে বীজ না ছিটালে মিসিং হিলের পরিমাণ বেড়ে যায়। হাতে বীজ ছিটানো শ্রমসাধ্য ও সময় সাপেক্ষ কাজ এবং সমভাবে বীজ ছিটানো যায় না। এই কাজকে সহজ ও দ্রুত করার জন্য বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউটের “যান্ত্রিক পদ্ধতিতে ধান চাষাবাদের লক্ষ্যে খামার যন্ত্রপাতি গবেষণা কার্যক্রম বৃদ্ধিকরণ (এসএফএমআরএ) প্রকল্পের” আওতায় ফার্ম মেশিনারী এন্ড পোষ্ট হারভেস্ট টেকনোলজি বিভাগের বিজ্ঞানীরা ট্রে’তে কম সময়, স্বল্প শ্রম এবং সমভাবে বীজ ছিটানোর জন্য বীজ বপন যন্ত্র উদ্ভাবন করেছে। এই যন্ত্রটি ব্যবহার করে কমিউনিটি বেইজ চারা তৈরীর মাধ্যমে গ্রামীণ উদ্যোক্তা তৈরিতে সহায়তা করবে।

ব্রি উদ্ভাবিত বীজ বপন যন্ত্র।

কারিগরি বৈশিষ্ট্য
স্থানীয় ওয়ার্কশপে স্থানীয় সহজলভ্য কাঁচামাল দিয়ে খুব সহজে তৈরী করা যায়। যন্ত্রটি স্বল্প প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত নারী/পুরুষ চালাতে পারে। প্রতি ট্রে’তে অংকুরিত বীজ ছিটাতে ১ (এক) সেকেন্ড সময় লাগে। যন্ত্রটি দিয়ে প্রতি ট্রে’তে ৯৫ থেকে ১৬০ গ্রাম অংকুরিত বীজ বপন করা যায়। একজন শ্রমিক প্রতিদিন ১৪৪০০টি ট্রে’তে বীজ বপন করতে পারে। যন্ত্রটির সাহায্যে বীজ বপনের পর ঝুরঝুরে মাটি দিয়ে উপরের স্তর (৬ মিমি) কভার করা যায়। বিভিন্ন জাতের ধানের জন্য বীজ বপনের হার নিয়ন্ত্রণ করা যায়। যন্ত্রের ওজন (৯ কেজি) কম হওয়ায় সহজেই হাতে বহন করা যায়। হপারের বীজ ধারন ক্ষমতা ৯ কেজি হওয়ায় প্রতিবার ৬০ থেকে ৭৫টি ট্রে তৈরী করা যায়। যন্ত্রটির আনুমানিক বাজার মূল্য ১২,০০০/- টাকা মাত্র।

যন্ত্রটি চালনার পূর্বে করণীয়
সমতল জায়গায় সারিবদ্ধভাবে ২ সেমি পরিমাণ মাটি ভর্তি ট্রে স্থাপন করে দুই পাশে রেইল বসাতে হবে। বীজের আকারের উপর নির্ভর করে বীজ বপনের হার ঠিক করতে হবে। সমন্বয়কারী ডায়াল ঘুরিয়ে ব্রাশ এর ওপেনিং সমন্বয় করে বীজ বপনের হার ঠিক করতে হবে। সমন্বয়কারী ডায়াল ঘড়ির কাটার বিপরীত দিকে ঘুরালে বীজ বপনের হার বৃদ্ধি পাবে এবং ঘড়ির কাটার দিকে ঘুরালে বীজ বপনের হার হ্রাস পাবে। ধানের জাত ও অংকুরোদগমের উপর ভিত্তি করে কাঙ্খিত বীজের হার পাওয়ার জন্য ২/৩ বার ট্রায়াল দিতে হবে।

যন্ত্রটি চালনার পদ্ধতি
বীজ ধান দিয়ে ব্রি বীজ বপন যন্ত্রটির হপার ভর্তি করে রেইলের উপর স্থাপন করতে হবে। শাটার লিভারটি সামনের দিকে ধাক্কা দিয়ে ক্লাচ এনগেজ করে বীজ ধান অথবা মাটি পড়ার জন্য শাটারটি খুলতে হবে। চালনাকারী হাতলটি যন্ত্রের পিছনে নির্ধারিত হুকে সংযুক্ত করতে হবে। চালনাকারী হাতলে ধাক্কা দিয়ে সামনের দিকে ধীর গতিতে (প্রতি ট্রে’র জন্য এক সেকেন্ড) হেঁটে খালি/ ফাঁকা ট্রে থেকে বীজ বিতরণ/ছিটানো শুরু করতে হবে। বীজ ছিটানোর সময় প্রথম থেকে শেষ পর্যন্ত একই গতিতে যন্ত্রটি চালনা করতে হবে। পরবর্তীতে শাটার বন্ধ করার জন্য শাটার লিভারটি পিছনের দিকে টান দিয়ে ক্লাচকে ডিজএনগেজ করতে হবে যেন বীজ ধান না পড়ে। পুনরায় মাটি ভর্তি নতুন ট্রে স্থাপন করে একই পদ্ধতিতে বীজ ছিটানোর কাজ শেষ করতে হবে।

বীজের উপরের স্তরে মাটি প্রয়োগ
বীজের উপর মাটির পাতলা স্তর (Thin layer) দেওয়ার জন্য পূর্বের মত একই পদ্ধতিতে সমন্বয়কারী ডায়াল ঘুরিয়ে মাটির পরিমাণ নির্ধারণ করতে হবে।

ব্রি বীজ বপন যন্ত্রের উপকারিতা
যন্ত্রটি ব্যবহারে সময়, খরচ ও শ্রম সাশ্রয় হয়। নিয়ন্ত্রিত ও সমানভাবে বীজ ছিটানো যায়। সকল চারা সমানভাবে (Uniformly) বৃদ্ধি পায় । চারাগুলো সমভাবে বিস্তৃত থাকায় মিসিং হিলের পরিমাণ কম হয়। ব্রি বীজ বপন যন্ত্রটি ধানের চারা রোপণ যন্ত্র জনপ্রিয়করণে সহযোগী/অগ্রণী ভূমিকা পালন করবে।

ব্রি বীজ বপন যন্ত্র চালানোর সতর্কতা
সমতল স্থানে ট্রে এবং রেইল স্থাপন করতে হবে। যন্ত্রটি সবসময় কোথাও না থেমে একই গতিতে চালনা করতে হবে। রেইলের উপর থেকে পানি, কাঁদা অথবা ময়লা পরিস্কার করে নিতে হবে। বীজের উপর মাটির পাতলা স্তর প্রয়োগের জন্য সবসময় শুকনো মাটি ব্যবহার করতে হবে। ক্লাচ্ এনগেজ্ড থাকা অবস্থায় যন্ত্রটি পিছনে টানা/ সরানো যাবে না। একদিনের বেশী অংকুরিত বীজ অথবা বীজের ভ্রূণ বা শিকড় বেশী বড় হলে যন্ত্রটি ব্যবহার করা যাবে না।

রক্ষণাবেক্ষণ ও সংরক্ষণ
বীজ বপন যন্ত্রের জীবনকাল দীর্ঘায়িত করতে হলে সঠিকভাবে রক্ষণাবেক্ষণ ও সংরক্ষণ করতে হবে। যন্ত্রটি ব্যবহারের পর হপার থেকে মাটি ও বীজ ধান ভালোভাবে অপসারণ করতে হবে। এটি ভালোভাবে পরিস্কার করে শুকানোর পর ঘূর্ণায়মান অংশে অয়েল বা গ্রীজ দিয়ে রাখতে হবে। সমন্বয়কারী ডায়াল ঘুরিয়ে ৩/৪ (তিন/চার) নাম্বার পজিশনে রাখতে হবে যেন রোলার ও ব্রাশ এর মধ্যবর্তী ২মিমি ফাঁকা থাকে। ব্রাশের বিচ্যুতি এড়ানোর জন্য ব্রাশ ও রোলারের সংযোগ বন্ধ করতে হবে। শাটার লিভারটি নিচের দিকে রেখে শাটার খোলা রাখতে হবে। যন্ত্রটি আর্দ্রতামুক্ত শুষ্ক ও ঠান্ডা স্থানে সংরক্ষণ করতে হবে। এটির উপর ভারী বস্তু বা জিনিস রাখা থেকে বিরত থাকতে হবে।

উপসংহার
ট্রেতে বীজ বপনের খরচ কমানো, সময় সাশ্রয়ী, সমান ও নিয়ন্ত্রিতভাবে বীজ বপনের বিবেচনায় কারিগরি ও অর্থনৈতিকভাবে ব্রি বীজ বপন যন্ত্র একটি টেকসই প্রযুক্তি। ধানের চারা রোপণ যন্ত্র কৃষক ও স্থানীয় উদ্যোক্তা পর্যায়ে জনপ্রিয়করণ করার জন্য বীজ বপন যন্ত্র খুবই উপযোগী। মাঠ পর্যায়ে ধানের চারা রোপণ যন্ত্র ‍এবং বীজ বপন যন্ত্র একই প্যাকেজ আকারে সরকারী এবং বেসরকারীভাবে সম্প্রসারণ ও জনপ্রিয়করণে উদ্যোগ গ্রহণ করা হলে যান্ত্রিক পদ্ধতিতে ধানের চারা রোপণে নতুন দিগন্তের সূচনা হবে।

লেখক: *প্রকল্প পরিচালক, যান্ত্রিক পদ্ধতিতে ধান চাষাবাদের লক্ষ্যে খামার যন্ত্রপাতি গবেষণা কার্যক্রম বৃদ্ধিকরণ (এসএফএমআরএ) প্রকল্প, এবং **উর্ধ্বতন যোগাযোগ কর্মকর্তা, বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউট।

This post has already been read 554 times!