Thursday 19th of May 2022
Home / মৎস্য / জাতীয় মৎস্য পদক-২০২১ পেলেন যারা

জাতীয় মৎস্য পদক-২০২১ পেলেন যারা

Published at আগস্ট ২৯, ২০২১

নিজস্ব প্রতিবেদক: মৎস্য খাতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান এবং এ খাতকে উৎসাহিত করার লক্ষ্য নিয়ে এ বছর জাতীয় মৎস্য সপ্তাহে ৯টি ভিন্ন ভিন্ন ক্ষেত্রে ২১ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান জাতীয় মৎস্য পদাক প্রদান করা হয়েছে। যার মধ্যে ৯ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে স্বর্ণপদক এবং ১২ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে রৌপ্য পদক প্রদান করা হয়। ‘বেশি বেশি মাছ চাষ করি, বেকারত্ব দূর করি’ এ প্রতিপাদ্যে শুরু হওয়া জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ ২০২১ এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনী দিনে রবিবার (২৯ আগস্ট) রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে এসব পুরস্কার দেয়া হয়।

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম এমপি’র সভাপতিত্বে এতে প্রধান অতিথি ছিলেন (ভার্চুয়ালি) বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের স্পীকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কৃষি মন্ত্রী ড. আবদুর রাজ্জাক, এমপি এবং সংসদীয় কমিটির সভাপতি ধীরেন্দ্রনাথ  শম্ভু, এমপি। এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ সচিব রওনক মাহমুদ। পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন মৎস্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক কাজী শামস আফরোজ।

জাতীয় মৎস্য পদক-২০২১ স্বর্ণ পদকজয়ী ব্যক্তি/প্রতিষ্ঠানের নাম ও ঠিকানা নিম্নে দেয়া হলো:

স্বর্ণ পদকজয়ী ব্যক্তি/প্রতিষ্ঠানের নাম ও ঠিকানা

১. শাহ্ সুলতান শাহ্ জালাল মৎস্যবীজাগার

প্রো: জনাব মো. শফিকুল ইসলাম

পিতা: মৃত. বছির আলী মন্ডল, মাতা: মোছা: জরিনা বেগম, গ্রাম: লোহাজাল, ডাকঘর: নারহট্ট, উপজেলা: কাহালু, জেলা: বগুড়া, বিভাগ: রাজশাহী।

২. জনাব কামরুল আলম চৌধুরী

প্রো: আম্বর ফিশারীজ এন্ড হ্যাচারী

পিতা: মৃত মদিন উল্যাহ চৌধুরী, মাতা: মৃত মনোয়ারা বেগম, গ্রাম: চর আলী হাসান, ডাকঘর: দরবার শরীফ, উপজেলা: লক্ষ্মীপুর সদর, জেলা: লক্ষ্মীপুর, বিভাগ: চট্টগ্রাম।

৩. জনাব কাজিম উদ্দিন আহম্মেদ, এমপি

পিতা: মৃত মেজর অব: আফসার উদ্দিন আহমেদ, মাতা: বেগম খায়রুন নেছা আফসার, গ্রাম: ধামশুর, ডাকঘর: ৬ নং ওয়ার্ড, উপজেলা: ভালুকা পৌরসভা, জেলা: ময়মনসিংহ, বিভাগ: ময়মনসিংহ।

৪. ইউনিক টাইগার শ্রিম্প হ্যাচারি

প্রো: জনাব আশেক উল্লাহ রফিক এমপি

পিতা: মৃত এস,এ,এম, রফিক উল্লাহ, মাতা: জয়নাব আক্তার বেগম, গ্রাম: ঝাউতলা, ডাকঘর: কক্সবাজার সদর, উপজেলা: কক্সবাজার সদর,  জেলা: কক্সবাজার, বিভাগ: চট্টগ্রাম।

৫. গ্রোটেক একোয়াকালচার লিমিটেড

প্রো: জনাব মো: আতাউল করিম ভূইয়া

পিতা: মো: রেজাউল করিম ভুইয়া, মাতা: মিসেস নাজমা করিম, গ্রাম: হাড়িয়া, উপজেলা: পাইকগাছা, জেলা: খুলনা, বিভাগ: খুলনা।

৬. রোজেমকো ফুডস লিমিটেড

চেয়ারম্যান: শাহ সেলিম হোসেন

স্বত্বাধিকারী ও পিতা: শাহ মাসুক আলী, মাতা: ফরিদা বেগম,  গ্রাম: নিকলাপুর, ডাকঘর: নৈহাটী, উপজেলা: রুপসা,  জেলা: খুলনা।

৭. জনাব এ. বি. এম ফজলে করিম চৌধুরী, এমপি

পিতা: মৃত এ. কে. এম ফজলুল কবির চৌধুরী, মাতা: মৃত সাজেদা বেগম চৌধুরী

গ্রাম: গহিরা, ডাকঘর: গহিরা, উপজেলা: রাউজান, জেলা: চট্টগ্রাম, বিভাগ: চট্টগ্রাম।

৮. জনাব মো. আসাদুজ্জামান

জেলা মৎস্য কর্মকর্তা, বরিশাল।

(সাবেক সিনিয়র উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা, ভোলা সদর, ভোলা)

পিতা: সাইদুর রহমান গাজী, মাতা: বেগম সালেহা রহমান, গ্রাম: ফুলঝুরি, ডাকঘর: তুষখালী, উপজেলা: মঠবাড়িয়া, জেলা: পিরোজপুর, বিভাগ: বরিশাল।

৯. জনাব হারুন অর রশিদ            

পিতা: মৃত নুরুল ইসলাম, মাতা: মোছা: রমিচা বেগম, গ্রাম: বাঁশপচাই ভিতরকুটি (সাবেক ছিটমহল) ডাকঘর: কুলাঘাট, উপজেলা: লালমনিরহাট সদর, জেলা: লালমনিরহাট, বিভাগ: রংপুর।

রৌপ্য পদকজয়ী ব্যক্তি/প্রতিষ্ঠানের নাম ও ঠিকানা

১. মুক্তেশ্বরী ফিস হ্যাচারী

প্রোঃ মো: আব্দুল আলিম

পিতা: মৃত ছবেদ আলী খন্দকার, মাতা: আসিয়া বেগম, গ্রাম: কাজীপুর, ডাকঘর: রাজারহাট, উপজেলা: যশোর সদর, জেলা: যশোর, বিভাগ: খুলনা।

২. দেশ বন্ধু মৎস্য হ্যাচারী ও নার্সারী

প্রোঃ মো. মুনসুর আলী

পিতা: মৃত: ওয়াহেদ আলী, মাতা: মৃত: ছখিনা খাতুন, গ্রাম: রঘুরামপুর, ডাকঘর: শম্ভুগঞ্জ বাজার, উপজেলা: ময়মনসিংহ সদর, জেলা: ময়মনসিংহ, বিভাগ: ময়মনসিংহ।

৩. জনাব রেজাউল ইসলাম

প্রো: ফ্রেশ ওয়াটার ফিস হ্যাচারি

পিতা: হায়দার আলী ফকির, মাতা: মৃত মোছাঃ রেখা আক্তার, গ্রাম: এনায়েতনগর, ডাকঘর: কু্র্শিপাড়া, উপজেলা: ঈশ্বরগঞ্জ, জেলা: ময়মনসিংহ, বিভাগ: ময়মনসিংহ।

৪. জনাব মুজিবর রহমান শামীম

প্রো: জয় হ্যাচারী এন্ড শ্রিম্প কালচার লিঃ

পিতা: মৃত আব্দুল গফুর, মাতা: আমেনা বেগম, গ্রামঃ হরিপাগলা, ডাকঘরঃ দিঘীরজান, উপজেলাঃ নাজিরপুর, জেলাঃ পিরোজপুর, বিভাগঃ বরিশাল।

৫. জনাব মো. শফিকুল ইসলাম ইছানুর

পিতা: মো. শাহজাহান আলী মন্ডল, মাতা: মোছা: সখিনা বেগম গ্রাম:ভাদরা, ডাকঘর:মির্জাপুর, উপজেলা: শেরপুর, জেলা: বগুড়া, বিভাগ: রাজশাহী।

৬. কুয়াকাটা জননী গলদা চিংড়ি হ্যাচারী লি.

প্রো: মোহাম্মদ শাহজাহান মাতুব্বর

পিতা: আব্দুর রশিদ মাতুব্বর, মাতা: গোল বানু, গ্রাম: কচ্ছপখালী, ডাকঘর: কুয়াকাটা, উপজেলা: কলাপাড়া, জেলা: পটুয়াখালী, বিভাগ: বরিশাল।

৭. ছবি ফিস প্রসেসিং ইন্ডাষ্ট্রিজ লি.

নতুন বাজার লঞ্চ ঘাট, ওয়াপদা রোড, খুলনা।

প্রো: কাজী বেলায়েত হোসেন

পিতা: মৃত কাজী ইসমাইল হোসেন, মাতা: মৃত ছবিরুন নেছা, গ্রাম: ৪০ এপ্রোচ রোড, খুলনা।

৮. মেসার্স শাহ আমানত ট্রেডার্স

নাজিরারটেক শুটকি মহাল, সদর, কক্সবাজার।

প্রো: জনাব মোহাম্মদ আমান উল্লাহ

পিতা-মৃত সৈয়দ উল্লাহ, মাতা নাম-রাবেয়া খাতুন, গ্রাম: মধ্যম কুতুবদিয়াপাড়া, ডাকঘর: কক্সবাজার সদর, উপজেলা: কক্সবাজার সদর, জেলা: কক্সবাজার, বিভাগ: চট্টগ্রাম।

৯. নৌ পুলিশ, বাংলাদেশ

ঠিকানা: ডিআইজি, নৌ পুলিশের কার্যালয়।

পুলিশ প্লাজা কনকর্ড টাওয়ার নং-০১ (১৩ তলা), সড়ক নং-১১৪, গুলশান-১, ঢাকা।

১০. ড. রহিমা খাতুন

জেলা প্রশাসক, মাদারীপুর।

স্থায়ী ঠিকানা: গ্রাম: তরগাঁও, ডাকঘর: তরগাঁও, উপজেলা: কাপাসিয়া , জেলা: গাজীপুর,বিভাগ: ঢাকা।

১১. জনাব মুহাম্মদ নাসির উদ্দীন

উপপ্রকল্প পরিচালক, ইউনিয়ন পর্যায়ে মৎস্যচাষ প্রযুক্তি সেবা সম্পস্রারণ প্রকল্প (২য় পর্যায়) মৎস্য অধিদপ্তর, বরিশাল বিভাগ, বরিশাল।

(সাবেক সিনিয়র উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা, পটুয়াখালী সদর, পটুয়াখালী)।

স্থায়ী ঠিকানা: গ্রাম: মাদারকাঠী, ডাকঘর: খালিশাকোটা, উপজেলা: বানারীপাড়া, জেলা: বরিশাল, বিভাগ: বরিশাল।

১২. জনাব মো. শফিকুল ইসলাম

সিনিয়র উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা, কালিগঞ্জ, সাতক্ষীরা।

স্থায়ী ঠিকানা:- গ্রাম: দূর্গাপুর, ডাকঘর: মনিরামপুর, উপজেলা: মনিরামপুর, জেলা: যশোর, বিভাগ: খুলনা।

উল্লেখ্য, মৎস্য সেক্টরে অনন অবদানের স্বীকৃতিস্বররুপ ১৯৯৪ সন হতে জাতীয় পর্যায়ে সংশ্লিষ্ট অংশীজনকে পুরস্কার প্রদান করা হচ্ছে জাতীয় মৎস্য পুরস্কারকে আরো অর্থবহ করার নিমিত্তে ২০১০ সনে মৎস্যসম্পদ উন্নয়নে পুরস্কার প্রদানের পুরস্কার নীতি ও পদ্ধতি প্রনয়ন করা হয়। ২০১৩ সনে এ নীতি প্রথম সংশোধন পূর্বক ‘জাতীয় মৎস্য পুরস্কার প্রদানের নীতি ও পদ্ধতি (সংশোধিত ২০১৩)’ প্রণয়ন এবং পরবর্তীতে ২০১৯ সনে সংশোধনীর মাধ্যমে ’জাতীয় মৎস্য পুরস্কার নীতি (সংশোধিত ২০১৯) প্রণয়ন করা হয়। বিদ্যমান অন্যান্য জাতীয় পদক নীতিমালা, পর্যালোচনাপূর্বক জাতীয় মৎস্য পদক নীতিমালা, ২০১৯ (২০২০ সন পর্যন্ত সংশোধিত) ইতিমধ্যে প্রণীত হয়েছে এবং সে আলোকে এ বছর জাতীয় মৎস্য পদক ২০২১ প্রদান করা হয়েছে।

This post has already been read 1209 times!