Wednesday 25th of May 2022
Home / সংগঠন ও কর্পোরেট সংবাদ / বাগদা চিংড়ি চাষে জাতীয় মৎস্য পদক (স্বর্ণ) পেল গ্রোটেক একোয়াকালচার লিমিটেড

বাগদা চিংড়ি চাষে জাতীয় মৎস্য পদক (স্বর্ণ) পেল গ্রোটেক একোয়াকালচার লিমিটেড

Published at আগস্ট ২৯, ২০২১

নিজস্ব প্রতিবেদক: বাগদা চিংড়ি চাষে বিশেষ অবদান রাখার জন্য মৎস্য পদক (স্বর্ণ) পেয়েছে দেশের অন্যতম স্বনামধন্য কোম্পানি গ্রোটেক একোয়াকালচার লিমিটেড। রবিবার (২৯ আগস্ট) রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনী দিনে গ্রোটেক একোয়াকালচার লিমিটেড -এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. আতাউল করিম ভূইয়া’র হাতে উক্ত পদক তুলে দেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী শ.ম রেজাউল করিম, এমপি; কৃষি মন্ত্রী ড.  মো. আব্দুর রাজ্জাক, এমপি এবং সংসদীয় কমিটির সভাপতি ধীরেন্দ্রনাথ  শম্ভু, এমপি। পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে ভারচুয়ালী প্রধান অতিথি ছিলেন জাতীয় সংসদের স্পীকার জনাব ড. শিরীন শারমীন চৌধুরী। এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ সচিব রওনক মাহমুদ। পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন মৎস্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক কাজী শামস আফরোজ।  এছাড়াও আরো উপস্থিত ছিলেন গ্রোটেক একোয়াকালচার লিমিটেড এর চেয়ারম্যান খন্দকার ফরহাদ হোসেন, পরিচালক মোহাম্মদ তারিক সরকার ছাড়াও প্রতিষ্ঠানটির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ।

গ্রোটেক একোয়াকালচার লিমিটেড  ২০২০ সালে ৭.৫০ হেক্টর জলায়তন বিশিষ্ট ২০টি পুকুরে বাগদা চিংড়ি চাষ করে ৫০ মে. টন বাগদা চিংড়ি উৎপাদন করে। খামারটিতে মূল্যায়ন বছরে ৩১৫ লাখ টাকা বিনিয়োগ করে বছরান্তে ৪০০ লাখ টাকা আয় করা হয়। জীব নিরাপত্তা বজায় রেখে আধানিবিড় পদ্ধতিতে এস.পি.এফ. (SPF) পি.এল. মজুদ করে মূল্যায়ন বছরে হেক্টরপ্রতি ৬.৬৬ মে. টন বাগদা চিংড়ি উৎপাদিত হয়েছে। খামারটিতে ৫০ জন স্থায়ী জনবলসহ মোট ৭৫ জনের কর্মসংস্থান সৃষ্টি হয়েছে।

জীব নিরাপত্তা ব্যবস্থা বজায় রেখে আধানিবিড় পদ্ধতিতে SPF পি.এল. মজুদপূর্বক মানসম্পন্ন বাগদা চিংড়ি উৎপাদনে উল্লেখযোগ্য অবদান রাখায় সরকার প্রতিষ্ঠানটিকে জাতীয় মৎস্য পদক ২০২১ এ স্বর্ণপদক ও নগদ ৫০ হাজার টাকা প্রদান করে।

উল্লেখ্য, গ্রোটেক একোয়াকালচার লিমিটেড বাংলাদেশের মৎস্য সেক্টরের পরিচিত সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান ফিসটেক (বিডি) লিমিটেড এর সহযোগী প্রতিষ্ঠান।

This post has already been read 2158 times!