Monday 17th of June 2024
Home / অর্থ-শিল্প-বাণিজ্য / বাংলাদেশ থেকে ধানের কুঁড়া নিতে চায় চীন

বাংলাদেশ থেকে ধানের কুঁড়া নিতে চায় চীন

Published at ডিসেম্বর ২, ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক: বাংলাদেশ থেকে রাইস ব্রান বা ধানের কুঁড়া নিতে চায় চীন। সোমবার (২ ডিসেম্বর) মন্ত্রণালয় কৃষি মন্ত্রী ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক -এর সাথে তাঁর অফিসকক্ষে চীনের ভাইস মিনিস্টার (শুল্ক ও সাধারণ প্রশাসন) ঝাং জিওয়েন সাক্ষাৎ করে এ কথা জানান।

ঝাং জিওয়েন বলেন; চীন বাংলাদেশের প্রধান বিনিয়োগকারী দেশে পরিণত হবে। বর্তমানে বাংলাদেশের পদ্মা সেতুসহ বড় বড় স্থাপনা নির্মাণের কাজ করছে চীন। এছাড়া বাংলাদেশ যেসব কৃষিজাত পণ্য চীনে রপ্তানি করতে আগ্রহী সে সম্পর্কে বাংলাদেশে চীনের অ্যাম্বাসিকে অবহিত করার জন্য বলেন রাষ্ট্রদূত। বাংলাদেশ হতে কৃষিজাত পণ্যসহ অন্যান্য পন্য আমদানির ক্ষেত্রে কোন বাধা বিপত্তির অবকাশ থাকবেনা। এ সময় চীনের উদ্ভাবিত সুপার রাইস নিয়েও কথা হয়।

কৃষি মন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান চীনের সঙ্গে যে সম্পর্কের সূচনা করেছিলেন সেটা আরও বিকশিত করছেন বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ইতপূর্বে ঢাকা-বেজিং দ্বিপাক্ষিক সহযোগিতার নয়টি চুক্তি স্বাক্ষর তারই উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত। বাংলাদেশের উন্নয়নে অন্যতম সহযোগী চীন। বাংলাদেশে কৃষির অপার সম্ভানা রয়েছে সেক্ষেত্রে কৃষিজাত পণ্য প্রক্রিয়াজাত করে রপ্তানির বড় সুযোগ রয়েছে এবং সেক্ষেত্রে বাংলাদেশ চীনের সহযোগিতা চায়।

তিনি বলেন, খাদ্য ঘাটতির দেশ আজ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ। আমাদের খাদ্য প্রক্রিয়াজাত ও রপ্তানিতে চীনের সহযোগিতা চাই। এছাড়াও কৃষি ক্ষেত্রে চীনের কারিগরি সহায়তা প্রয়োজন। যেহেতু চীনের বাজার বেশ বড়, সেখানে বাংলাদেশ তাদের চাহিদা অনুযায়ী মানসম্মত পণ্য রপ্তানি করবে।

বাংলাদেশের সামাজিক অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে বর্তমানে বড় সমস্যা রোহিঙ্গা সমস্যা। রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে চীনের সহযোগিতা চান কৃষি মন্ত্রী। এ প্রসঙ্গে চীনের ভাইস মিনিস্টার বলেন এব্যাপারে তারা আর্ন্তজাতিক ফোরামে বাংলাদেশের পক্ষে কথা বলবেন। বাংলাদেশের উন্নয়নের সকল ক্ষেত্রে চীন অংশিদার হতে আগ্রহী।

সাত সদ্যসের প্রতিনিধি দলে আরও ছিলেন সান রেনউ, উপ মহাপরিচালক,  শুল্ক আদায় বিভাগ। ইউ ওয়েঞ্জুন উপ মহাপরিচালক,ব্যুর অব আমদানি এবং রপ্তানি নিরাপদ খাদ্য। চেন ইউ, উপ মহাপরিচালক, জিয়ামেন কসটিউম ডিসট্রিক্ট। চু ইউ,ভাইস মিনিস্টারের সচিব,সাধারণ অফিস। চেন ইউই, উপ মহাপরিচালক, আন্তর্জাতিক সহযোগিতা বিভাগ  এবং জিইউ ঝিকিন,৩য় সচিব অর্থনীতি এবং বাণিজ্য কনস্যুলার অফিস।

কৃষি সচিব মো. নাসিরুজ্জামান এসময় উপস্থিত ছিলেন।

This post has already been read 3053 times!