Sunday 7th of August 2022
Home / ট্যুরিজম / বাঘের গর্জন, সমৃদ্ধি অর্জন

বাঘের গর্জন, সমৃদ্ধি অর্জন

Published at অক্টোবর ২৪, ২০১৭

Khulna-Logo (1)ফকির শহিদুল ইসলাম (খুলনা):
বিশ্বের বৃহত্তম ম্যানগ্রোভ বন সুন্দনবনকে কেন্দ্র করে খুলনা জেলাকে ব্র্যান্ডিং করা হয়েছে। সুন্দরবনকেন্দ্রিক পর্যটনকে কেন্দ্র করে এ জেলার ইতিহাস, ঐতিহ্য, প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শণ, মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিচিহ্ন এবং স্থাপত্যশিল্পকে সম্পৃক্ত করে জেলা ব্র্যান্ডিং এর বিষয়কে নির্বাচন করা হয়েছে। খুলনা জেলার জন্য ‘বাঘের গর্জন, সমৃদ্ধি অর্জন’ স্লোগান নির্বাচন করা হয়েছে । খুলনার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মো. গিয়াস উদ্দিন এ তথ্য জানান ।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের একসেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) প্রোগ্রামের আওতায় জেলা ব্র্যান্ডিং, কিশোর বাতায়ন এবং উদ্ভাবকের খোঁজে বিষয়ের ওপর এক প্রেস ব্রিফিং (সোমবার) খুলনা প্রেসক্লাবের ভিআইভি লাউঞ্জে অনুষ্ঠিত হয় । খুলনা জেলা তথ্য অফিস এ প্রেস ব্রিফিং এর আয়োজন করে ।

ব্রিফিং-এ এডিসি মো. গিয়াস উদ্দিন জানান, তিনি আরো জানান শিক্ষার্থীদের সৃজনশীলতা, মেধাবিকাশ ও সুস্থ্য বিনোদনের জন্য পাঠ্যপুস্তক ও এর সহায়ক নানামুখী কন্টেন্ট নিশ্চিত করার লক্ষে তের থেকে আঠারো বছরের কিশোরদের জন্য কিশোর বাতায়ন তৈরি করা হয়েছে । কিশোর বাতায়ন হতে যাচ্ছে শিক্ষার্থীদের নিজেদের মধ্যে যোগাযোগ স্থাপনের ক্ষেত্রে একটি জাতীয় প্লাটফর্ম । এ বাতায়ন শিক্ষার্থীদের সামনে সৃজনী ভাবনার ক্ষেত্রে একটি নতুন জগৎ উন্মোচন করবে । সময়ের সদ্ব্যবহার করে আনন্দের সাথে শেখার ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীরা পাবে একটি ভার্চুয়াল শিখন জগৎ।

তিনি জানান, ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও দপ্তরসমূহে উদ্ভাবনী সংস্কৃতি গড়ে তুলতে এটুআই -এর অন্যতম উদ্যোগ হিউম্যান ডেভেলপমেন্ট মিডিয়া বহুবিধ উন্নয়নমূলক প্রোগ্রাম নির্মাণ করছে। এটুআই হিউম্যান ডেভেলপমেন্ট মিডিয়ার মাধ্যমে শিক্ষা, জীবন-জীবিকা, মানব উন্নয়ন, প্রশিক্ষণ, জনসচেতনতামূলক এবং অন্যান্য অনুষ্ঠান নির্মাণের উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। এটুআই প্রোগ্রাম সালেহা বুবুর বৈঠকখানা, কোটি টাকার কৃষক, গল্প নয় সত্যি, উদ্ভাবকের দেশে, বেস্ট স্কুল ফর গার্লস ইত্যাদি অনুষ্ঠানসমূহ নির্মাণ করেছে যা ইতোমধ্যে বিটিভি, সংসদ টিভি, আরটিভি, এটিএন নিউজে সম্প্রচারিত হয়েছে।

এই ভিডিওগুলো বিভিন্ন টিভি চ্যানেল, বেতারে নিয়মিত প্রচার করা হচ্ছে। এছাড়া খুলনা জেলা তথ্য অফিসের তত্বাবধানে জেলার ১০১টি ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তরা (৬৮টি ইউনিয়ন, ২টি পৌরসভা ও ৩১টি সিটি কর্পোরেশনের ওয়ার্ড) মাধ্যমে প্রত্যন্ত এলাকায় প্রদর্শন করছে।
উল্লেখ্য, খুলনা জেলা তথ্য অফিসও উঠানবৈঠক, সঙ্গীতানুষ্ঠান, চলচ্চিত্র প্রদর্শনসহ অন্যান্য কর্মসূচির মাধ্যমে জনসাধারণের মাঝে এসব বিষয়ের প্রচার কাজ অব্যাহত রেখেছে।

প্রেসব্রিফিং-এ উপস্থিত ছিলেন খুলনা বেতারের আঞ্চলিক পরিচালক মো. বশির উদ্দিন, খুলনা তথ্য অফিসের উপ-পরিচালক ম. জাভেদ ইকবাল, আঞ্চলিক তথ্য অফিসের সিনিয়র তথ্য অফিসার জিনাত আরা আহমেদ এবং বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থার স্টাফ রিপোর্টার এসএম জাহিদ হোসেন।

This post has already been read 1984 times!