Sunday 7th of August 2022
Home / অন্যান্য / বাকৃবিতে তালা ঝুলিয়ে ক্লাস বর্জন করেছে শিক্ষার্থীরা

বাকৃবিতে তালা ঝুলিয়ে ক্লাস বর্জন করেছে শিক্ষার্থীরা

Published at অক্টোবর ১০, ২০১৭

BAU AERS000

(বাকৃবি) কৃষি অর্থনীতি ও গ্রামীণ সমাজবিজ্ঞান অনুষদের শিক্ষার্থীরা আন্দোলনে শিক্ষকদের আশানুরুপ সাড়া না পাওয়ায় প্রতিবাদ জানায় অনুষদীয় ডিনের কাছে।

মো. আরিফুল ইসলাম (বাকৃবি):
বাংলাদেশ কর্ম কমিশনে (বিসিএস) কৃষি বিপণন অধিদফতরের অধীনে স্বতন্ত্র ক্যাডার সার্ভিস চালু, সরকারি সকল চাকরির ক্ষেত্রে সাধারণ অর্থনীতির পাশাপাশি কৃষি অর্থনীতি গ্র্যাজুয়েটদের আবেদনের সমঅধিকার প্রদান, দেশের সকল গবেষণা প্রতিষ্ঠানে কৃষি অর্থনীতি পদ সৃষ্টি করে নিয়োগের দাবিতে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বাকৃবি) কৃষি অর্থনীতি ও গ্রামীণ সমাজবিজ্ঞান অনুষদের শিক্ষার্থীরা গত কয়েকমাস থেকে আন্দোলন করে আসছেন। আন্দোলনে অনুষদীয় শিক্ষকদের আশানুরুপ সাড়া না পাওয়া এবং কালক্ষেপনের প্রতিবাদে মূল গেইটে তালা ঝুলিয়ে ক্লাস বর্জন করে প্রতিবাদ করেছে ওই অনুষদের সকল শিক্ষার্থীরা।

জানা যায়, বিভিন্ন চাকরিতে কৃষি অর্থনীতির গ্র্যাজুয়েটদের ন্যায্য অধিকারের দাবিতে কৃষি অর্থনীতির স্নাতক ও স্নাতকোত্তর শিক্ষার্থী আন্দোলন করে আসছে। আন্দোলনের অংশ হিসেবে ডেলিগেশন টীম নিয়ে অনুষদীয় শিক্ষকদের কালক্ষেপনের প্রতিবাদে আজ (মঙ্গলবার) সকল ছাত্র-ছাত্রীরা তাদের নির্ধারিত ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করে দুপুর ১২ টায় ফ্যাকাল্টির সামনে অবস্থান গ্রহণ করেন এবং ফ্যাকাল্টির মূল গেইটে তালা লাগিয়ে বিক্ষোভ করেন শিক্ষার্থীরা। পরে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করেন তারা। শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করেন, তাদের বিভিন্ন চাকুরিতে বৈষম্যের শিকার হতে হচ্ছে। তাদের ন্যায্য দাবি আদায়ের শান্তিপূর্ণ আন্দোলনে শিক্ষকরা পাশে থাকার প্রতিশ্রুতি দিলেও তারা আশারুরুপ কোন ফল দেখছেন না। বরং তারা আরও কালক্ষেপন করছেন। শিক্ষার্থীরা তাদের আন্দোলনে শিক্ষকদের এমন আচরণে হতাশা প্রকাশ করেছেন।

প্রায় এক ঘন্টা যাবৎ তালা লাগানো ছিল অনুষদ ভবন। পরে অনুষদীয় ডিন প্রফেসর ড. মো. আব্দুল কুদ্দুছ আগামীকাল বিকেল ৩ টায় পূর্বে গঠিত কমিটির সাথে জরুরী মিটিংয়ের বসার প্রতিশ্রুতি এবং অন্যান্য সকল বিষয়ে দ্রুত পদক্ষেপ নেয়ার আশ্বাস দেন। পরে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা ওই আশ্বাসের ফলে ফ্যাকাল্টির গেটের তালা খুলে দেন।

আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা বলেন, ফ্যাকাল্টির ছাত্র-ছাত্রীরা সকলেই অগামীকালের মিটিং এর দিকে তাকিয়ে আছে। সেই মিটিং থেকে ফলপ্রসূ কোন সিদ্ধান্ত না আসলে ছাত্র-ছাত্রীরা আরো কঠোর আন্দোলনের ব্যাপারে অঙ্গীকার করেন এবং সেই ভাবে প্রস্তত থাকার জন্য সকলের প্রতি আহ্বান জানান।

এ বিষয়ে অনুষদীয় ডিন প্রফেসর ড. মো. আব্দুল কুদ্দুছ বলেন, কৃষি অর্থনীতির গ্র্যাজুয়েটদের বিভিন্ন চাকুরিতে বৈষম্যের শিকার হতে হচ্ছে। আমাদের শিক্ষকদের একটি ডেলিগেশন টিম নিয়ে সংশ্লিষ্ট দপ্তরে যাওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে। কালকের সভায় এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে।

This post has already been read 3336 times!