৮ কার্তিক ১৪২৮, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ১৮ রবিউল-আউয়াল ১৪৪৩
শিরোনাম :
https://mailtrack.io/trace/link/f26343803e1af754c1dd788cd7a73c22043d5987?url=https%3A%2F%2Finnovad-global.com%2Flumance&userId=1904341&signature=5e74e7dc17531970

ভারতে সয়াবিন রপ্তানিতে নিষেধাজ্ঞা জারি

Published at সেপ্টেম্বর ৬, ২০২১

নিজস্ব প্রতিবেদক: অবশেষে ভারতে সয়াবিন রপ্তানি নিষেধাজ্ঞা জারি করলো কৃষি মন্ত্রণালয়। রবিবার (৫ সেপ্টেম্বর) কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, উদ্ভিদ সংগনিরোধ উইং এর পরিচালক মো. আনোয়ার হোসেন স্বাক্ষরিত এক অফিস আদেশ (স্মারক নং-১২.০১.০০০০.৫০০.৯৯.১১৬.১১৭/৪৬৪৮) -এর মাধ্যমে উক্ত নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়।

এতে বলা হয়, প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তর-এর (স্মারক নং-৩৩.০১.০০০০-১৯০-০৪.০০১.২১-১৭০০, ০১/০৯/২০২১ খ্রিঃ) তারিখের পত্র মোতাবেক প্রাণিসম্পদ সেক্টরে ডেইরী ও  পোলট্রি ফিডে সয়াবিন একটি অন্যতম উপাদান। বিগত ২০২০ ও ২০২১ সালে করোনাকালীন বিশ্ববাজারে সয়াবিন ‘আমদানি-রপ্তানি মারাত্মক ঝুঁকির সম্মুখীন হয়। ফলে দেশীয় বাজারে বাৎসরিক সয়াবিনের প্রাপ্যতার ঘাটতি দেখা দেয়।

আদেশে আরো বলা হয়, দেশের ক্রমবর্ধমান ডেইরী ও পোলট্রি সেক্টরের চাহিদা মেটাতে বছরে প্রায় আনুমানিক ১৫ লাখ মেট্রিক টন সয়াবিন প্রয়োজন হয়, যার সিংহভাগই বিদেশ হতে আমদানি করতে হয়। সয়াবিন রপ্তানি করা হলে ডেইরী ও পোলট্রি খাদ্য উৎপাদন বাঁধাগ্রস্ত হতে পারে যার ফলশ্রুতিতে পশু/ পোলট্রি খাদ্যের মূল্য বৃদ্ধি হতে পারে। এমতাবস্থায়, বর্ণিত প্রেক্ষাপটে বর্হিবিশ্বে সয়াবিন রপ্তানি কার্যক্রম আপাতত বন্ধ রাখার জন্য বলা হলো।

এ সম্পর্কে বাংলাদেশ ফিড ইন্ডাস্ট্রিজ এসোসিয়েশন বাংলাদেশ (ফিআব) সাধারণ সম্পাদক মো. আহসানুজ্জামান এক প্রতিক্রিয়ায় বলেন, ভারতে সয়াবিন মিল রপ্তানি নিষেধাজ্ঞার ব্যাপারে কৃষি মন্ত্রণালয়ের ত্বরিত উদ্যোগ অবশ্যই সাধুবাদ পাওয়ার যোগ্য এবং আমরা কৃতজ্ঞ। কারণ, বিগত প্রায় এক বছর ধরে ফিড তৈরির কাঁচামালের দাম বৃদ্ধির ফলে ফিডমিলার এবং খামারিগণ উভয়পক্ষই ভীষণ সংকটের মধ্যে আছে। বিশ্ববাজারে সয়াবিনমিলের দাম যখন বৃদ্ধি পাচ্ছে এবং দেশের ফিডমিলগুলো সংকটের মধ্যে দিন অতিবাহিত করছে সে সময় পাশের দেশে উক্ত পণ্যটি রপ্তানি শুরু আমাদের মরার উপর খড়ার ঘা’ এর মতো ঝুঁকিতে ফেলে দিয়েছিল। এখন কিছুটা হলেও আমরা স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলতে পারবো।

পাশের দেশে সয়াবিন মিল রপ্তানি নিষেধাজ্ঞার ফলে ফিডের দাম কমবে কি না এমনটি জানতে চাইলে ফিআব সাধারণ সম্পাদক বলেন, সারাবিশ্বেই ফিড তৈরি মূল উপকরণ ভুট্টা ও সয়াবিনমিলের দাম এমনিতেই প্রচুর বৃদ্ধি পেয়েছে, ফলে সেই সাথে আমাদের ফিডের দাম বৃদ্ধি করে সমন্বয় করতে হয়েছে। ভবিষ্যতে যদি এসব উপকরণের দাম কমে তবে অবশ্যই ফিডের দাম দাম কমিয়ে সেটিকে পুনরায় সমন্বয় করা হবে।

উল্লেখ্য, এর আগে গত ২২ আগস্ট বাংলাদেশ ফিড ইন্ডস্ট্রিজ এসোসিয়েশন (ফিআব) -এর পক্ষ থেকে পত্রের মাধ্যমে কৃষি মন্ত্রণালয়, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়, বাণিজ্য মন্ত্রণালয় এবং রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরো বরাবর ভারতে সয়াবিন মিল রপ্তানি বন্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বিশেষভাবে অনুরোধ জানানো হয়।

This post has already been read 1184 times!

Fixing WordPress Problems developed by BN WEB DESIGN