Tuesday 18th of June 2024
Home / আঞ্চলিক কৃষি / পাবনায় পতিত জমিতে আবাদকৃত রোপা আমন ধান কর্তন

পাবনায় পতিত জমিতে আবাদকৃত রোপা আমন ধান কর্তন

Published at নভেম্বর ১৩, ২০২৩

পাবনা সংবাদদাতা: সোমবার (১৩ নভেম্বর) কৃষি সম্প্রসারণ পাবনার আয়োজনে। প্রধানমন্ত্রীর অনুশাসন ‘‘এক ইঞ্চি জমিও যেন অনাবাদি না থাকে’’ এর বাস্তাবায়ন করে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর পাবনার চাষ যোগ্য অনাবাদি পতিত জমিতে আবাদকৃত আধুনিক ও উচ্চ ফলনশীল রোপা আমন ধানের কৃষির যান্ত্রিকীকরণ অনুসরণে পৈলানপুর কৃষি খামার মাঠ, পাবনায় কম্বাইন হারভেষ্টার দ্বারা শস্য কর্তনের শুভ উদ্বোধন করেন পাবনার জেলা প্রশাসক মু. আসাদুজ্জামান।

উদ্বোধন শেষে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক কৃষিবিদ ড. মো. জামাল উদ্দীন এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পাবনার জেলা প্রশাসক মু. আসাদুজ্জামান বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পাবনার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) শরিফ আহম্মেদ, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের জেলা প্রশিক্ষণ অফিসার কৃষিবিদ মো. সাইফুল ইসলাম, অতিরিক্ত উপপরিচালক (শস্য) কৃষিবিদ মো. রোকনুজ্জামান, সরেজমিন গবেষণা বিভাগ, কৃষি গবেষণা কেন্দ্র, বিএআরআই, পাবনা ঊর্ধ্বতন বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. মো. আরিফুল ইসলাম, পাবনা কৃষি তথ্য সার্ভিসের সহকারী তথ্য অফিসার কৃষিবিদ মো. খালেদীন আনাম, অনান্য দপ্তরের কর্মকর্তা, পাবনা প্রেস ক্লাবের সভাপতি ও প্রবীন সাংবাদিক আব্দুল মতিন প্রিন্ট ও ইলেকট্রিনিক মিডিয়ার সাংবাদিক পাবনা সদর উপজেলার সকল উপসহকারি কৃষি কর্মকর্তা প্রমুখ। আলোচনা সভায় স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন পাবনা সদর উপজেলার কৃষি অফিসার কৃষিবিদ সাহানা পারভীন লাবনী।

প্রধান অতিথি জেলা প্রশাসক মু. আসাদুজ্জামান বলেন, খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর অনুশাসন ‘‘এক ইঞ্চি জমি ও যেন অনাবাদি না থাকে’’ এর বাস্তাবায়ন করার কোন বিকল্প নেই। প্রতি ইঞ্চি জমির সঠিক ব্যবহারের মাধ্যেমে খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে। এর বাস্তবায়ন করা হলে কৃষি সামনের দিকে আরো এগিয়ে যাবে। সাথে সাথে আমাদের ও নিরাপদ খাদ্য উৎপাদনে বিশেষ খেয়াল রাখতে হতে হবে। খাদ্য নিরাপত্তার জন্য কৃষিকে আধুনিক কৃষিতে রুপান্তর করতে হবে। আর আধুনিক কৃষি যন্ত্রপাতির ব্যবহার দেশের কৃষি খাতে উল্লেখযোগ্য প্রভাব ফেলতে শুরু করেছে। যেমন ট্রাক্টর, কম্বাইন হার্ভেস্টার এবং সেচব্যবস্থা কৃষিকাজের কার্যকারিতা ও উৎপাদনশীলতা বাড়িয়েছে। এছাড়া এ মেশিনগুলো কৃষকের কাজকে দ্রুত ও কার্যকরভাবে সম্পন্ন করতে সহায়তা করে। এজন্য কায়িক শ্রম না লাগায় শিক্ষিত তরুণের এপেশায় নিয়োজিত হচ্ছে এটি কৃষির আধুনিকায়নের লক্ষণ। কৃষি ও কৃষির উন্নয়নে বক্তারা বক্তব্য শেষ করেন।

অনুষ্ঠানটি সঞ্চালন করেন পাবনা সদর উপজেলা কৃষি অফিসের, উপসহকারি কৃষি কর্মকতা, মো. আবু সাঈদ শিখন।

This post has already been read 828 times!