Tuesday 18th of June 2024
Home / শিক্ষাঙ্গন / শেকৃবির এএসভিএম অনুষদ ও পিপিবি’র উদ্যোগে বিশ্ব ডিম দিবস পালিত

শেকৃবির এএসভিএম অনুষদ ও পিপিবি’র উদ্যোগে বিশ্ব ডিম দিবস পালিত

Published at অক্টোবর ১৫, ২০২৩

শেকৃবি সংবাদদাতা: ‘স্বাস্থ্যবান ভবিষ্যতের জন্য ডিম’- এ প্রতিপাদ্যে রবিবার (১৫ অক্টোবর) রাজধানীর শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের এনিম্যাল সায়েন্স এন্ড ভেটেরিনারি মেডিসিন অনুষদ  এবং পোল্ট্রি প্রফেশনাল’স বাংলাদেশ (পিপিবি) শেকৃবি ইউনিট এর যৌথ উদ্যোগে পালিত হয় বিশ্ব ডিম দিবস। র‍্যালির উদ্বোধন করেন এএসভিএম অনুষদের ডিন এবং পিপিবি শেকৃবি ইউনিটের উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. কে বি এম সাইফুল ইসলাম। এসময় উপস্থিত ছিলেন পিপিবি শেকৃবি ইউনিটের প্রধান উপদেষ্টা পোল্ট্রি বিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মো. আনোয়ারুল হক বেগ, পিপিবি শেকৃবি ইউনিটের উপদেষ্টা ও এনিম্যাল প্রোডাকশন এন্ড ম্যানেজমেন্ট বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মো. সাইফুল ইসলাম।

অনুষ্ঠানের শুরুতে সাধারণ শিক্ষক, শিক্ষার্থী এবং উক্ত স্থানে উপস্থিত পথচারী, রিক্সা চালক এবং শিশুদের মধ্যে ডিম বিতরণ  করা হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন এনাটমি, হিস্টলজি এন্ড ফিজিওলজি বিভাগের অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম রাসেল, এনাটমি, হিস্টলজি এন্ড ফিজিওলজি বিভাগের চেয়ারম্যান সহযোগী অধ্যাপক ড. মো. আবদুল মাসুম, ডেইরি সায়েন্স বিভাগের চেয়ারম্যান সহযোগী অধ্যাপক ড. মো. আসাদুজ্জামান, মাইক্রোবায়োলজি এন্ড প্যারাসাইটলজি বিভাগের চেয়ারম্যান সহযোগী অধ্যাপক ড. মো. মাহফুজুল ইসলাম, ফার্মাকোলজি এন্ড টক্সিকোলজি বিভাগের চেয়ারম্যান সহযোগী অধ্যাপক ড. শরীফা জাহান, সার্জারি এন্ড থেরিওজেনোলজি বিভাগের চেয়ারম্যান সহযোগী অধ্যাপক ড. মো. রাশেদুল ইসলাম, এনিম্যাল নিউট্রিশন, জেনেটিক্স এন্ড ব্রিডিং বিভাগের চেয়ারম্যান সহযোগী অধ্যাপক ড. আল নুর মো. ইফতেখার রহমান, মাইক্রোবায়োলজি এন্ড প্যারাসাইটলজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ড. মো. আবদুল মান্নান, এনিম্যাল নিউট্রিশন, জেনেটিক্স এন্ড ব্রিডিং বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা: মাহফুজ উল্লাহ পাটোয়ারী। এতে একাত্মতা পোষণ করেন শেকৃবির এগ্রিবিজনেস ম্যানেজমেন্ট অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. অশোক কুমার ঘোষ এবং শেকৃবির সাবেক উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. সেকান্দার আলী। এছাড়াও পিপিবি শেকৃবি ইউনিটের সদস্যবৃন্দ এবং এএসভিএম অনুষদের বিভিন্ন লেভেলের শিক্ষার্থীবৃন্দ উক্ত র‍্যালিতে অংশ নেন।

র‍্যালি পরবর্তী বক্তব্যে ড. মো. আনোয়ারুল হক বেগ বলেন,”যেহেতু ডিম থেকে একটি সন্তান জন্ম গ্রহন করে তাই শিশুকালে ত বটেই পরবর্তী জীবনেও ডিম এবং দুধ খাওয়া প্রয়োজন। আর ডিমে উপস্থিত এইচডিএল রক্তের  ক্ষতিকর কোলেস্টেরল ডিসলভ করে দেয়। সয়াবিন  তেলের চেয়ে ডিম এবং দুধের চর্বি  স্বাস্থ্যের জন্য বেশি ভালো। তাই আমাদের সুস্বাস্থ্য  বর্জায় রাখার জন্য প্রতি অল্টারনেটিভ দিনে একটি করে ডিম খাওয়া প্রয়োজন। সে হিসেবে বছরে কমপক্ষে ১৮৭ টি ডিম খাওয়া প্রয়োজন।”

সবশেষে শেকৃবির এএসভিএম অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. কে বি এম সাইফুল ইসলাম ডিম দিবসে ডিম বিতরণ, ডিম খাওয়ার সচেতনতায় সহযোগিতার জন্য পোল্ট্রি প্রফেশনাল’স বাংলাদেশ শেকৃবি ইউনিট, সাধারণ শিক্ষার্থী এবং শিক্ষকগণকে ধন্যবাদ জানিয়ে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষনা করেন।

This post has already been read 1103 times!