Monday 17th of June 2024
Home / আঞ্চলিক কৃষি / পাবনা সুজানগর উপজেলায় সমলয়ে চাষাবাদ ও ধানের চারা রোপন এর শুভ উদ্বোধন

পাবনা সুজানগর উপজেলায় সমলয়ে চাষাবাদ ও ধানের চারা রোপন এর শুভ উদ্বোধন

Published at ফেব্রুয়ারি ২১, ২০২৩

পাবনা সংবাদদাতা: পাবনা‘র সুজানগর উপজেলার কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের আয়োজনে রবি মৌসুমে/ ২০২২-২০২৩ অর্থবছরে ৫০ একর ব্লক প্রদর্শনী স্থাপনের মাধ্যমে হাইব্রিড জাতের বোরো ধানের সমলয়ে চাষাবাদের নিমিত্ত কৃষি প্রণোদনা কর্মসূচীর আওতায় সমলয়ে চাষাবাদে রাইস ট্রান্সপ্ল্যান্টরের সাহায্যে ধানের চারা রোপনের শুভ উদ্বোধন সোমবার (২০ ফেব্রুয়ারি) তারিখে ভায়না ইউনিয়ন পরিষদ  মাঠে অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত অনুষ্ঠানে সুজানগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. তারিকুল ইসলাম এর সভাপত্বিতে উদ্বোধক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, পাবনা‘র উপপরিচালক ড. সাইফুল আলম; প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চেয়ারম্যান, উপজেলা পরিষদ, সুজানগর, শাহীনুজ্জামান শাহীন। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, সুজানগর উপজেলা পরিষদের  ভাইস চেয়ারম্যান, মো. জিয়াউর রহমান কল্লোল ও উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান , মোছা. মর্জিনা খাতুন। চেয়ারম্যান, ভায়না ইউনিয়ন পরিষদ, মো. আমিন উদ্দিন।

শুরুতে উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ রাফিউল ইসলাম সুধীজনদের স্বাগত জানিয়ে শুভেচ্ছা বক্তব্যে বলেন, কৃষকের উন্নয়নের জন্য সরকার কৃষি প্রণোদনা সহায়তার আওতায় কৃষি যন্ত্র বিতরণ, সুলভ মূল্যে কৃষি উপকরণ প্রদানসহ নানাবিধ সুবিধা প্রদান করে যাচ্ছে। ট্রান্সপ্লান্টারের মাধ্যমে ১বিঘা জমি চারা রোপন করতে সময় লাগে ১ ঘন্টা এবং খরচ হয় মাত্র ৪০০ টাকা। যেখানে শ্রমিক দিয়ে রোপন করলে খরচ হয় ১৫০০-২০০০ টাকা। তাই ট্রান্সপ্লান্টারে রোপন করলে শ্রম, সময় ও অর্থ কম লাগে বা সাশ্রয় হয় বিধায় উপস্থিত কৃষকগণকে এ ভাবে সমলয় ভিত্তিতে চাষাবদ করার অনুরোধ জানান।

উদ্বোধক হিসেবে উপস্থিত থেকে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, পাবনা‘র উপপরিচালক ড. সাইফুল আলম তার বক্তব্যে বলেন, বর্তমান কৃষক বান্ধব সরকার কৃষকদের করোনা দূর্যোগ ও শ্রমিক সংকটের কারণে রবি মৌসুমে ব্লক প্রদর্শনীর মাধ্যমে কৃষকদের মাঝে হাইব্রিড জাতের বোরো ধান উৎপাদন বৃদ্ধি করার লক্ষ্যে সমলয়ে ভিত্তিতে চাষাবাদের কার্যক্রম গ্রহণ করেছেন। মানুষ বাড়লেও বাড়ছে না জমি, তাই স্বল্প জমিতে অধিক ধান উৎপাদন করে নিরাপদ ও পুষ্টি খাদ্য চাহিদা পূরণ করতে হবে। তিনি আরও বলেন রাইস ট্রান্সপ্লান্টারের মাধ্যমে এক সাথে প্রদর্শনী ব্লকের কৃষকদের যেমন সময় সাশ্রয় হবে অন্যদিকে কৃষকের উৎপাদন খরচও কম হবে এবং কৃষকরা লাভবান হবেন। তাছাড়া বর্তমান সরকারের সময়োচিত পদক্ষেপের জন্য কৃষকগন চাষাবাদে অনুপ্রানিত হচ্ছে বলে তিনি অভিমত ব্যাক্ত করেন ।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সংশ্লিষ্ট ব্লকের উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তাসহ প্রায়  শতাধিক কৃষক/কৃষাণী। অনুষ্ঠানে উপস্থিত কৃষকগন সমলয়ের ভিত্তিতে চাষাবদ করার আগ্রহ প্রকাশ করেন।

This post has already been read 1078 times!