Saturday 28th of May 2022
Home / পরিবেশ ও জলবায়ু / প্রাণীকুলের মৌলিক চাহিদা পূরণে বৃক্ষরোপণ করতেই হবে-পরিবেশ ও বনমন্ত্রী

প্রাণীকুলের মৌলিক চাহিদা পূরণে বৃক্ষরোপণ করতেই হবে-পরিবেশ ও বনমন্ত্রী

Published at মার্চ ২১, ২০২২

রিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন, এমপি।

নিজস্ব প্রতিবেদক: পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মোঃ শাহাব উদ্দিন বলেছেন, প্রাণীকুলের বেঁচে থাকার মৌলিক চাহিদা পূরণের লক্ষ্যে অধিক পরিমাণে বৃক্ষরোপণ করতেই হবে। আমাদের যেটুকু বনাঞ্চল আছে সেটার সংরক্ষণ নিশ্চিত করার পাশাপাশি খালি ও পতিত জায়গায় গাছ লাগাতে হবে। তিনি বলেন, বন অধিদপ্তর কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন সামাজিক বনায়ন কার্যক্রমের মাধ্যমে পতিত ও প্রান্তিক সরকারী ও ব্যক্তিমালিকানাধীন ভূমি বনায়নের আওতায় এসেছে। মন্ত্রী এসময় বনরক্ষায় দেশপ্রেম ও নিবেদিতভাবে কাজ করতে বনবিভাগের কর্মচারীদের নির্দেশ প্রদান করেন।  তিনি বলেন, বনবিভাগের সক্ষমতা বাড়াতে শুন্যপদ পূরণসহ অন্যান্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সোমবার (২১ মার্চ)“বন সংরক্ষণের অঙ্গীকার, টেকসই উৎপাদন ও ব্যবহার” প্রতিপাদ্যে আজ আন্তর্জাতিক বন দিবস ২০২২ উদযাপন উপলক্ষ্যে বন অধিদপ্তরে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে পরিবেশ ও বন মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, বাসযোগ্য টেকসই পরিবেশ নিশ্চিতকল্পে রাষ্ট্রের সকল শ্রেণি পেশার লোকজন সম্মিলিতভাবে কাজ করলে বন সংরক্ষণ ও উন্নয়নে সফল হবে বাংলাদেশ। এলক্ষ্যে জনপ্রতিনিধি, বননির্ভর জনগোষ্ঠী,  বনে বসবাসকারী ক্ষুদ্র জাতিগোষ্ঠী, গণমাধ্যমকর্মীসহ সংশ্লিষ্ট সকলের ঐকান্তিক সহযোগিতা একান্তভাবে প্রয়োজন। তিনি বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুযোগ্য নির্দেশনায় বন অধিদপ্তরের নানা কার্যকর উদ্যোগের ফলে বাংলাদেশে বৃক্ষাচ্ছাদনের পরিমাণ প্রতিনিয়ত বাড়ছে। ২০১৫-২০১৯ সময়কালের বন সার্ভে মোতাবেক দেশে বৃক্ষাচ্ছাদনের পরিমাণ ছিল দেশের মোট আয়তনের ২২ দশমিক ৩৭ ভাগ যা ইতোমধ্যে উল্লেখযোগ্য পরিমাণে বেড়েছে।

বন অধিদপ্তরের প্রধান বন সংরক্ষক মোঃ আমীর হোসাইন চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী হাবিবুন নাহার, সচিব মোঃ মোস্তফা কামাল, অতিরিক্ত সচিব ইকবাল আব্দুল্লাহ হারুন, প্রকৃতি ও জীবন ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান মুকিত মজুমদার বাবু প্রমুখ। বিষয়ভিত্তিক উপস্থাপন করেন ইনডিপেনডেন্ট ইউনিভার্সিটির উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ডক্টর নিয়াজ আহমেদ খান এবং উপপ্রধান বন সংরক্ষক ও সুফল প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক গোবিন্দ রায়।

উল্লেখ্য, অনুষ্ঠানে মন্ত্রী সামাজিক বনায়নের ১০ জন নারী ও পুরুষ উপকারভোগীদের মাঝে ১৫ লক্ষ টাকার চেক বিতরণ করেন।  এছাড়াও, দিবস উদযাপন উপলক্ষ্যে আয়োজিত চিত্র ও বন্যপ্রাণী প্রদর্শনী পরিদর্শন করেন।

This post has already been read 357 times!