Tuesday 9th of August 2022
Home / মৎস্য / অর্থসংবাদ ও লতিফুন্নেসা ফাউন্ডেশন –এর উদ্যোগে নদীতে মৎস্য পোনা অবমুক্ত

অর্থসংবাদ ও লতিফুন্নেসা ফাউন্ডেশন –এর উদ্যোগে নদীতে মৎস্য পোনা অবমুক্ত

Published at সেপ্টেম্বর ২৬, ২০২১

টাঙ্গাইল (কালিহাতি) : অর্থসংবাদ ও লতিফুন্নেসা ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) টাঙ্গাইল জেলার কালিহাতি উপজেলার এলেংগা পৌরসভা সংলগ্ন যমুনা নদীতে মৎস্য পোনা অবমুক্ত করা হয়েছে। প্রথমবারের মতো অর্থসংবাদ ও লতিফুন্নেসা ফাউন্ডেশনের যৌথ উদ্যোগে নদীতে ২০০ কেজি রুই মাছের পোনা অবমুক্ত করা হয়। এর পূর্বে এলেংগা রিসোর্টে সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে লতিফুন্নেসা ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান হায়দার আহমদ খান এফসিএ- এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এলেংগা পৌরসভার মেয়র মোহাম্মদ নুর-এ-আলম সিদ্দিকী। বিশেষ অতিথি ছিলেন টাঙ্গাইল জেলা মৎস্য কর্মকর্তা (অ.দা.) মো. আইয়ুব আলী, অর্থসংবাদ- এর ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক শরীফ নিজাম ও কালিহাতি উপজেলার সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন মোল্লা।

প্রধান অতিথি মোহাম্মদ নুর-এ-আলম সিদ্দিকী বলেন, ‘এটি নিঃসন্দেহে একটি মহৎ উদ্যোগ, আমি এই প্রথম এমন উদ্যোগ দেখলাম। বেসরকারিভাবে নদীতে মাছের পোনা অবমুক্ত করার নজির ইতোপূর্বে দেখিনি। অর্থসংবাদ ও লতিফুন্নেসা ফাউন্ডেশনের এই মহৎ উদ্যোগকে আমি সাধুবাদ জানাই।’

অনুষ্ঠানে জেলা মৎস্য কর্মকর্তা (অ.দা.) মো. আইয়ুব আলী বলেন, ‘নদীতে মৎস্য পোনা অবমুক্ত করতে কখনো দেখিনি। তবে মৎস্য শিকার বন্ধে নিষেধাজ্ঞা দেওয়ার ফলে শুধু ইলিশ নয়; অনেক প্রজাতির বিলুপ্ত প্রায় মাছের প্রজনন বেড়েছে। আমি এই অনুষ্ঠানের কথা শুনে অবাক হয়েছি, পুকুরে মৎস্য পোনা অবমুক্ত করতে শুনেছি এবং দেখেছি। তবে নদীতে মৎস্য পোনা অবমুক্তকরণ এই প্রথম দেখলাম। আমরা মৎস্য উৎপাদনে পৃথিবীর ৫ম বৃহৎ দেশ। কিন্তু অনেক প্রজাতির মাছ বিলুপ্ত প্রায়। আমাদের উচিত এই মৎস্য সম্পদের বিষয়ে সচেতন হওয়া। অর্থসংবাদ ও লতিফুন্নেসা ফাউন্ডেশনের এই উদ্যোগ ছড়িয়ে যাক পুরো দেশব্যাপী।

এসময় অর্থসংবাদ- এর ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক শরীফ নিজাম বলেন, ‘আমরা শুধু সরকারের দিকে তাকিয়ে থাকি; সরকার কি করলো, কি করলো না। কখনো আমরা ভাবিনা দেশের জন্য আমি কি করলাম? আমরা যদি প্রত্যেকে নিজের জায়গা থেকে দেশের জন্য, দেশের মানুষের জন্য নিজের সামর্থ্য অনুযায়ী সামান্যতম ভূমিকা রাখি তাহলে দেশ অনেক এগিয়ে যাবে। আজকের সিঙ্গাপুর শুধু মাছের উপর নির্ভর করে এত উন্নত হয়েছে। আমাদের প্রাকৃতিক সম্পদকে কাজে লাগিয়ে আমরা অনেক উন্নত দেশে পরিণত হতে পারি।’

অনুষ্ঠানে লতিফুন্নেসা ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান হায়দার আহমদ খান এফসিএ বলেন, ‘আমার মায়ের নামের এই ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে বিভিন্ন সেবামূলক কাজ করে থাকি। কিন্তু এবারই প্রথম নদীতে মৎস্য পোনা অবমুক্ত করার উদ্যোগ নিয়েছি। কিছুদিন আগে অর্থসংবাদে দেখলাম পদ্মা নদীতে ২০ কেজি ওজনের কাতল মাছ ধরা পড়েছে। এটা দেখে আমি খুব আনন্দিত হলাম এবং এই মৎস্য পোনা নদীতে অবমুক্ত করার ইচ্ছা হলো। নদীতে মৎস্য পোনা অবমুক্ত করার কারণ হলো আমরা পুকুরে বা জলাশয়ে মৎস্য পোনা ছাড়লে তা আবার নির্দিষ্ট সময়ের পর ধরে ফেলি। তাতে এটি মূলত বাণিজ্যিক প্রকল্পে রূপ নেয়। কিন্তু নদীতে মৎস্য পোনা ছাড়ার ফলে কোন নির্দিষ্ট সময় থাকবেনা, এ পোনা থেকে মাছ বড় হবে ও ডিম দিবে এবং ডিম থেকে মাছের পোনা উৎপাদন হবে। ফলে দেশের নদীতে এই মাছ ছড়িয়ে পড়বে এবং জেলেরা মাছ ধরে তাদের জীবন-জীবিকা নির্বাহ করবে।’

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন গোহালিয়াবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হযরত আলী তালুকদার, টাঙ্গাইল জেলা মৎস্য অফিসের উপ-পরিচালক মো. মাহবুব হোসাইন, সাকা ইন্টারন্যাশনালের পরিচালক খুরশিদ আলম খান প্রমুখ।

This post has already been read 1013 times!