Friday 27th of May 2022
Home / অর্থ-শিল্প-বাণিজ্য / মোটরসাইকেল ভেন্ডরদের জন্য তৈরি হচ্ছে রোডম্যাপ

মোটরসাইকেল ভেন্ডরদের জন্য তৈরি হচ্ছে রোডম্যাপ

Published at মার্চ ৯, ২০২০

নিজস্ব প্রতিবেদক: দেশীয় মোটরসাইকেল ভেন্ডরদের উন্নয়নে সরবরাহ চেইন নেটওয়ার্ক প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে জাইকা’র সহায়তায় একটি রোড ম্যাপ তৈরি করা হচ্ছে। এছাড়া ভোক্তা পর্যায়ে রিটেইল ফাইনেন্সিংয়ে সুদের হার ২৫ শতাংশ থেকে কমিয়ে ৯ শতাংশে আনার উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (৯ মার্চ) শিল্প মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে মোটরসাইকেল শিল্প উন্নয়ন নীতিমালা ২০১৮ বাস্তবায়নে গঠিত সমন্বয় পরিষদের দ্বিতীয় সভায় এ কথা জানানো হয়। শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন অনুষ্ঠানে সভাপতিত্বে সভায় শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদারের উপস্থিত ছিলেন।

সভায় জানানো হয়, শিল্প মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে একটি আধুনিক মানের অটোমোটিভ ইন্সটিটিউট স্থাপন করা হবে। মোটরসাইকেল উৎপাদন ও ভোক্তা পর্যায়ে ঋণ প্রক্রিয়া সহজ করার জন্য মোটরসাইকেল উৎপাদন প্রতিষ্ঠানসমূহের পক্ষ হতে অনুরোধের প্রেক্ষিতে এ বিষয়ে মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে সহায়তা প্রদানের আশ্বাস দেওয়া হয়। এ সময় ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের উন্নয়নে গঠিত বাংলাদেশ ব্যাংকের ৬টি স্পেশাল ফান্ডের সুবিধা গ্রহণের জন্য অন্তর্ভুক্ত মোটর সাইকেল শিল্প মালিকদের প্রতি পরামর্শ প্রদান করা হয়। সভায় মোটরসাইকেল উৎপাদনকারীদের পক্ষ হতে মোটরসাইকেলের সিকেডি অনুমোদন ও রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়া বিআরটিএ হতে  অনলাইনে সম্পন্ন করার সুবিধা প্রদানের দাবি জানানো হয়।

সভাপতির বক্তৃতায় শিল্পমন্ত্রী বলেন, দেশীয় মোটরসাইকেল শিল্পের উন্নয়নে সরকার আন্তরিকভাবে কাজ করছে। সারাদেশের মানুষের যাতায়াত ও ব্যবসা বৃদ্ধির সাথে সাথে মোটরসাইকেলের ব্যবহার বৃদ্ধি পাওয়ায় দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে। শিল্পমন্ত্রী মোটরসাইকেল উৎপাদনকারীদের সকল দাবী সমন্বিত করে একটি পরিপূর্ণ প্রস্তাব মন্ত্রণালয়ে প্রেরণের আহবান জানিয়ে এ সকল দাবী পূরণে সহায়তা প্রদানের আশ্বাস প্রদান করেন।  দেশীয় মোটরসাইকেল শিল্পের উন্নয়নে সহজ শর্ত ও প্রক্রিয়ায় ঋণ প্রদানে ব্যাংকগুলো  এগিয়ে আসবে বলে শিল্পমন্ত্রী আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

শিল্প প্রতিমন্ত্রী বলেন, দেশের বাইরে মোটরসাইকেল রপ্তানির সম্ভাবনাকে কাজে লাগানোর বিষয়ে মোটরসাইকেল উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানসমূহের আরো মনোযোগী হতে হবে। তিনি বলেন, রপ্তানি বাজারের পাশাপাশি দেশীয় বাজারের জন্যও মানসম্মত মোটরসাইকেল উৎপাদন করতে হবে। যে সকল প্রতিষ্ঠান স্পেয়ার পার্টস আমদানি না করে স্থানীয়ভাবে উৎপাদন করবে, তাদেরকে বেশি সুবিধা প্রদান করা হবে বলে প্রতিমন্ত্রী উল্লেখ করেন।  প্রতিমন্ত্রী এ সময় শুধু সরকারি ভর্তুকির ওপর নির্ভরশীল না হয়ে আত্মনির্ভরশীল হবার মোটরসাইকেল শিল্প মালিকদের প্রতি আহ্বান জানান।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, মোটরসাইকেল উৎপাদন শিল্পের উন্নয়ন পাশাপাশি এ শিল্পের শ্রমিকদের প্রতিও মনোযোগী হতে হবে। শিল্প প্রতিমন্ত্রী সৎ ব্যবসায়ীদের ঋণ প্রদানে আরও আন্তরিক হবার ব্যাংকগুলোর প্রতি আহবান জানান।

সভায় শিল্প সচিব মো. আব্দুল হালিম,  অতিরিক্ত সচিব পরাগ, এসএমই ফাউন্ডেশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. সফিকুল ইসলাম, বিসিকের চেয়ারম্যান মো. মোশ্তাক হাসান, বাংলাদেশ ইস্পাত প্রকৌশল কর্পোরেশনের চেয়ারম্যান মো. রইছ উদ্দিন, বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের নির্বাহী সদস্য মো. কামরুল হাসান, বাংলাদেশ ব্যাংকের মহাব্যবস্থাপক লীলা রশিদ, বাংলাদেশ মটরসাইকেল এসেম্বলার্স ও ম্যানুফ্যাকচারার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মতিউর রহমান, রানা ইন্ডাস্ট্রিজের চেয়ারম্যান মো. তাজুল ইসলাম, এটলাস বাংলাদেশ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এ এন এম কামরুল ইসলাম, এইচএমসিএল নিলয় বিডি লিমিটেডের চিফ ফিনান্সিয়াল অফিসার বিজয় কুমার মন্ডল,  টিভিএস অটো বিডি লিমিটেডে বিপ্লব কুমার রায়, রানার অটোমোবাইলস লিমিটেডের কো-অর্ডিনেটর আমিনুর রহমান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

This post has already been read 1233 times!