Wednesday 18th of May 2022
Home / শিক্ষাঙ্গন / রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে মহিলা এলএসপি প্রশিক্ষণ কর্মসূচির সমাপনী ও সনদপত্র বিতরণ সম্পন্ন

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে মহিলা এলএসপি প্রশিক্ষণ কর্মসূচির সমাপনী ও সনদপত্র বিতরণ সম্পন্ন

Published at মার্চ ৫, ২০২০

রাবি সংবাদদাতা: মহিলাদের আত্মকর্মী হিসেবে গড়ে তোলা, কৃষকের নিকট প্রাণিসম্পদ সম্পর্কিত সেবা সহজলভ্য করা ও প্রাণিসম্পদের উন্নয়নের মাধ্যমে প্রাণিজ অমিষের যোগান বৃদ্ধির লক্ষ্যে রাজশাহী বিশ^বিদ্যালয়ে আয়োজিত ১৫ দিন ব্যাপি মহিলা এল এস পি (লাইভস্টক সার্ভিস প্রোভাইডার) প্রশিক্ষণ কর্মসূচীর সমাপনী ও সনদপত্র বিতরণ করা হয়েছে। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেটেরিনারি এন্ড এনিমেল সায়েন্সেস বিভাগের তত্বাবধানে এবং ফিড দি ফিউচার বাংলাদেশ, লাইভস্টক প্রোডাকশন ফর ইম্প্রুভ নিউট্রিশন, এসিডিআই ভোকা  এর সার্বিক সহায়তায় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের নারিকেলবাড়ীয়াস্থ ভেটেরিনারি ক্লিনিক, এ আই ও প্রশিক্ষণ কেন্দ্রস্থ ক্যাম্পাসে এই প্রশিক্ষণ কর্মসূচি সম্পন্ন  হয়েছে। এতে খুলনা, যশোর সাতক্ষীরা, বাগেরহাট, ফরিদপুর ও বরিশাল  জেলার মোট ২৫ জন মহিলাকে প্রাণিসম্পদ প্রতিপালন ও প্রাথমিক চিকিৎসার উপর প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়েছে।

উক্ত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেটেরিনারি এন্ড এনিমেল সায়েন্সেস বিভাগের প্রফেসর ড. মো. জালাল উদ্দিন সরদার। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ভেটেরিনারি এন্ড এনিমেল সায়েন্সেস বিভাগের প্রফেসর ড. সৈয়দ সরওয়ার জাহান, প্রফেসর ড. মো. আখতারুল ইসলাম, ড. মো. হেমায়েতুল ইসলাম আরিফ ও এসিডিআই ভোকার ফাইন্যান্স এন্ড এডমিন অফিসার মো. মিনহাজুল ইসলাম।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেটেরিনারি এন্ড এনিমেল সায়েন্সেস বিভাগের সভাপতি  ও প্রশিক্ষণ কর্মসূচীর সমন্বয়ক প্রফেসর ড. এস এম কামরুজ্জামান। অনুষ্ঠানে প্রশিক্ষণার্থীদের মধ্যে বেশ কয়েকজন তাদের অনুভূতি ব্যক্ত করেন। তারা সকলেই সার্বিক সহায়তা করার জন্য এসিডিআই ভোকা এবং রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেটেরিনারি এন্ড এনিমেল সায়েন্সেস বিভাগের শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের ধন্যবাদ জানান ও তাঁদের প্রতি  কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। তারা দৃঢ় ও আন্তরিক মনোবল নিয়ে প্রশিক্ষণ থেকে অর্জিত জ্ঞান কাজে লাগিয়ে প্রাণিসম্পদের উন্নয়নে কাজ করার অঙ্গীকার করেন।

প্রধান অতিথি, বিশেষ অতিথিবৃন্দ এবং সভাপতি  তাঁদের বক্তব্যে মহৎ এ উদ্যোগের জন্য প্রশিক্ষকবৃন্দ, কর্মসূচী বাস্তবায়নকারী ও আর্থিক সহায়তাকারী সংশ্লিষ্ট সকলকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। উপস্থিত সকলেই  আশা করেন কর্মসূচীর এমন উদ্যোগের মাধ্যমে  গ্রামে গঞ্জে প্রাণিসম্পদ সেবাদানকারী তৈরির পথ প্রসস্থ হলো যার মাধ্যমে ত্বরান্বিত হবে প্রাণিসম্পদের উন্নয়ন- হবে মহিলাদের আত্মকর্মসংস্থান। তিনি সহ উপস্থিত সকলেই সাহসী মানবহিতৈষী এই পদক্ষেপের সফলতা কামনা করেন।

This post has already been read 1277 times!