Friday 27th of May 2022
Home / অর্থ-শিল্প-বাণিজ্য / পাহাড়তলী বাজারে খুচরা মুরগির দোকানে ক্যাব’র অভিযান

পাহাড়তলী বাজারে খুচরা মুরগির দোকানে ক্যাব’র অভিযান

Published at জানুয়ারি ৩০, ২০২০

চট্টগাম সংবাদদাতা: ভোক্তাদের কাছে নিরাপদ প্রাণিজ আমিষ সরবরাহের লক্ষ্যে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর, প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তর ও ক্যাব চট্টগ্রামের যৌথ বাজার তদারকির অংশ হিসেবে বুধবার (২৯ জানুয়ারি) চট্টগ্রামের পাহাড়তলী বাজারে অভিযান পরিচালনা করা হয়।

বাজার তদারকিকালে পাহাড়তলী বাজারের বিসমিল্লাহ ও রেশমা খুচরা মুরগির দোকান, এবং ফিড বিক্রেতা আলিফ ট্রেডিং ও হোসেন ট্রেডার্স পরিদর্শন করা হয়। পরিদর্শনকালে অপরিস্কার ও অপরিছন্ন জায়গায় মুরগি জবাই, মুরগি জবাইয়ের দোকানে পর্যাপ্ত পানি সংযোগ না থাকা, স্বাস্থ্যসম্মত ভাবে মুরগি জবাই ও সংরক্ষণ বিষয়ে বেশ কিছু অনিয়ম পরিলক্ষিত হয়।ফিডের দোকানে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে মুরড়ির ফিড সংরক্ষণের কারণে মুরগির খাদ্যের মান সংরক্ষণ হচ্ছে না।

এছাড়াও দোকানে মূল্য তালিকা না টাঙ্গানো, ট্রেড লাইসেন্স না থাকার অনিয়ম পাওয়া যায়। অনিরাপদভাবে মুরগি জবাই ও সংরক্ষণ করা হলে নিরাপদ মুরগিও অনিরাপদ হয়ে যেতে পারে, যা জীবনহানিসহ নানা রোগের মূল কারন হতে পারে। তাই খুচরা মুরগি বিক্রেতাদেরকে নিরাপদ মুরগি জবাই ও সংরক্ষন বিষয়ে করনীয়, নির্দেশনা প্রদান ও সতর্ক করা হয়। পরবর্তীতে একই অপরাধের প্রমান পাওয়া গেলে জরিমানা সহ শাস্তিমুলক ব্যবস্থা নেবার কথা জানানো হয়।

জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারি পরিচালক হাসানুজ্জমান, পাচলাইশ থানা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. জাকিয়া খাতুন, ক্যাব পাঁচলাইশ এর যুগ্ন সম্পাদক সেলিম জাহাঙ্গীর, ক্যাব চাঁন্দগাও এর সেলিম সাজ্জাদ, ক্যাব আইবিপি প্রকল্পের মাঠ কর্মকর্তা তাজমুন নাহার হামিদ, শম্পা কে নাহার, জেড এইচ শিহাব এর নেতৃত্বে বাজার অভিযান পরিচালিত হয়।

সকলের জন্য নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিতে ক্যাব, ভোক্তা ও প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের কর্তৃক যৌথ বাজার তদারকির অংশ হিসাবে এই অভিযান পরিচালনা করা হয়। ইউকেএইড, বৃটিশ কাউন্সিলের সহায়তায় প্রকাশ প্রকল্পের কারিগরী সহযোগিতায় পোল্ট্রি সেক্টরে সুশাসন প্রকল্প, কনজ্যুমারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ক্যাব) চট্টগ্রাম পোল্ট্রি সেক্টরে সুশাসন প্রকল্প, জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর ও জেলা প্রাণিসম্পদ অফিসের উদ্যোগে খুচরা মুরগির দোকান ও বাজার তদারকির অংশ হিসাবে নগরীর বিভিন্ন বাজারে এ ধরনের  অভিযান পরিচালিত হয়ে আসছে।

This post has already been read 2356 times!