Tuesday 17th of May 2022
Home / অর্থ-শিল্প-বাণিজ্য / দেশে মাংস আমদানির কোন প্রয়োজন নেই – মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী

দেশে মাংস আমদানির কোন প্রয়োজন নেই – মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী

Published at ডিসেম্বর ৭, ২০১৯

শনিবার (৭ ডিসেম্বর) বাংলাদেশ লাইভস্টক সোসাইটি আয়োজিত ৪র্থ লাইভস্টক অ্যাওয়ার্ড, সেমিনার এবং লাইভস্টক ও পোল্ট্রি মেলা-২০১৯  অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখছেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী মো. আশরাফ আলী খান খসরু, এমপি।

রাজশাহী সংবাদদাতা: বর্তমানে বাংলাদেশ মাংস ও গবাদিপশু উৎপাদনেও স্বয়ংসম্পূর্ণ। তাই বিদেশ থেকে দেশে মাংস আমদানির কোন প্রয়োজন নেই। শনিবার (৭ ডিসেম্বর) রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের কাজী নজরুল ইসলাম মিলনায়তনে বাংলাদেশ লাইভস্টক সোসাইটি আয়োজিত ৪র্থ লাইভস্টক অ্যাওয়ার্ড, সেমিনার এবং লাইভস্টক ও পোল্ট্রি মেলা-২০১৯  অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী মো. আশরাফ আলী খান খসরু এমপি. এসব কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী জানান, গত দশ বছরে দুধের প্রাপ্যতা বেড়েছে প্রায় ৪ গুণ, এখন জনপ্রতি প্রাপ্যতা ১৬৫ মিলি.। দশ বছর আগে ডিমের প্রাপ্যতা ছিল বছরে জনপ্রতি ৪০টি। ২০১৮-১৯ অর্থবছরে তা উন্নীত হয়েছে ১০৪টিতে। এসব কার্যক্রমের ফলে এদেশের মানুষের প্রয়োজনীয় প্রাণিজ আমিষ ও পুষ্টিকর খাদ্যের ঘাটতি এখন ক্রমশঃ হ্রাস পাচ্ছে। এ ঘাটতি শূণ্যের কোটায় আনয়ণের লক্ষ্যে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় বিশ্বব্যাংকের সহায়তায় সর্ববৃহৎ প্রকল্প (LDDP)  গ্রহণ করেছে।

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী মো. আশরাফ আলী খান খসরু এমপি বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শী ও বলিষ্ঠ নেতৃত্বে বাংলাদেশ ইতোমধ্যে মৎস্য উৎপাদনে স্বয়ংসম্পূর্ণ হয়েছে। অভ্যন্তরীণ মুক্ত জলাশয়ে মাছ আহরণে বাংলাদেশ ৩য় স্থান এবং বদ্ধ জলাশয়ে চাষকৃত মাছ উৎপাদনে ৫ম স্থান অধিকার করেছে; মাথাপিছু দৈনিক মাছ গ্রহণের পরিমাণ চাহিদার চেয়ে (৬০ গ্রাম) বৃদ্ধি পেয়ে ৬২.৫৮ গ্রামে উন্নীত হয়েছে। এছাড়া দুধ, মাংস ও ডিমেও আমরা স্বয়ংসম্পূর্ণ হয়ে উঠার পথে।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ লাইভস্টক সোসাইটির সভাপতি  প্রফেসর মো. জালাল উদ্দিন সরদারের সভাপতিত্বে অন্যান্যের মধ্যে আরো বক্তব্য রাখেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর এম আব্দুস সোবহান, খুলনা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর মো. শহিদুর রহমান খান, প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ডা. মো. আবদুল জব্বার শিকদার এবং বাংলাদেশ প্রাণিসম্পদ গবেষণা ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক ড. নাথু রাম সরকার।

বক্তাগণ সুস্থ জাতি গঠনে নিরাপদ খাদ্যের ওপর জোরারোপ করেন। প্রতিমন্ত্রী এ সময় বলেন, বর্তমান সরকার নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিতকরণে সব ধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। খাদ্যে মাত্রারিক্ত বিষ নিয়ন্ত্রণে ইতোমধ্যে ক্ষতিকর খাদ্য এমবিএম (meat and bone meal) আমদানি নিষিদ্ধ করা হয়েছে এবং অত্যন্ত কঠোরভাবে তা তদারকি করা হচ্ছে। এ সময় তিনি পোল্ট্রি ও প্রাণিসম্পদে অ্যান্টিবায়োটিকের মাত্রারিক্ত ব্যবহার ও অপব্যবহার রোধে প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তাদের সজাগ থাকার আহ্বান জানান।

এর আগে প্রতিমন্ত্রী দিনব্যাপী ৪র্থ লাইভস্টক অ্যাওয়ার্ড, সেমিনার এবং লাইভস্টক ও পোল্ট্রি মেলা-২০১৯ এর উদ্বোধন করেন এবং বিভিন্ন স্টল পরিদর্শন করেন। এ মেলায় ভেটেরিনারি ঔষধ, প্রাণি খাদ্য, বাচ্চা উৎপাদন ও বাজারজাত কোম্পানী এবং খামারিগণ অংশগ্রহণ করেছেন। এ

ছাড়াও প্রতিমন্ত্রী জাতীয়ভাবে লাইভস্টক, পোল্ট্রি এবং পোষ্য প্রাণির সংরক্ষণ, উৎপাদন, এবং প্রচার কার্যক্রমের সাথে জড়িত/নিবেদিত ব্যক্তি-প্রতিষ্ঠানকে ৪টি ক্যাটাগরিতে মোট ১৩টি অ্যাওয়ার্ড প্রদান করেন।

This post has already been read 2071 times!