Monday 16th of May 2022
Home / প্রাণিসম্পদ / মাংসে উদ্বৃত্ত বাংলাদেশ : গরুর মাংস আমদানি বন্ধের দাবী

মাংসে উদ্বৃত্ত বাংলাদেশ : গরুর মাংস আমদানি বন্ধের দাবী

Published at সেপ্টেম্বর ৯, ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক: সাম্প্রাতিক সময়ে সরকারি-বেসরকারি উদ্যোগের ফলে দেশ মাংস উৎপাদনে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন করেছে। এ সময়ে যখন মাংস রপ্তানীর উদ্যোগ গ্রহণ করা প্রয়োজন তখন মাংস আমদানির প্রস্তাবনা সার্বিক বিবেচনায় অগ্রহণযোগ্য। তাছাড়া, সরকার সম্প্রতি দেশে দুধ ও মাংস বৃদ্ধির লক্ষ্যে বিশ^ ব্যাংকের সহায়তায় ৪২০০ কোটি টাকার প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে। এদেশে, বর্ধিতহারে মাংস আমদানি অব্যহত থাকলে এ প্রকল্পের উদ্দেশ্য নিশ্চিত বিফলে যাবে।

সোমবার (৯ সেপ্টেম্বর) জাতীয় প্রেসক্লাবে “বিদেশ থেকে হিমায়িত গরুর মাংস আমদানি প্রসঙ্গে” শীর্ষক এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন বক্তারা।

বক্তারা জানান, বিদেশ থেকে হিমায়িত গরুর মাংস আমদানি হলে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হবে প্রত্যন্ত অঞ্চলের সাধারণ মানুষ, উৎপাদনকারী, খামারি ও শিল্পসংশ্লিষ্টরা। শুধু তাই নয় পরিবেশ ও কৃষিতে এর বিরূপ প্রভাব পড়বে। তাই সাধারণ মানুষের কথা চিন্তা করে হিমায়িত গরুর মাংস আমদানি বন্ধের দাবি জানিয়েছেন দেশীয় মাংস উৎপাদনকারীরা।

এক পরিসখ্যান তুলে ধরে সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, দেশে জনপ্রতি দৈনিক ১২০ গ্রাম মাংসের চাহিদা হিসেবে বার্ষিক মোট চাহিদা ৭২ দশমিক ৯৭ লাখ মেট্রিক টন। ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরে গবাদিপশু ও হাঁস-মুরগি থেকে মাংস উৎপাদিত হয়েছে ৭৫ দশমিক ১৪ লাখ মেট্রিক টন। অর্থাৎ ২ দশমিক ১৭ লাখ মেট্রিক টন উদ্বৃত্ত হয়েছে। এর মধ্যে গরু-ছাগলের মাংস উৎপাদনের ৫৫ শতাংশ।

সংবাদ সম্মেলনে মূলপ্রবন্ধ উপস্থাপন করেন পল্লী কর্ম সহায়ক ফাউন্ডেশন -এর মহা ব্যবস্থাপক এবং বাংলাদেশ প্রাণিসম্পদ গবেষণা প্রতিষ্ঠানের সাবেক প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা  ড. শরীফ আহমেদ চৌধুরী।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন- এনিমেল হেলথ কোম্পানিজ অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (আহকাব) সভাপতি ডা. এম নজরুল ইসলাম, প্রাক্তন সভাপতি মোমিন উদ দৌলা, বাংলাদেশ ভেটেরিনারি অ্যাসোসিয়েশনের (বিভিএ) মহাসচিব ড. মো হাবিবুর রহমান মোল্লা, দি ভেট এক্সিকিউটিভ সাধারণ সম্পাদক সাইফুল বাশার, বাংলাদেশ ডেইরি ফার্মাসের (বিডিএফএ) মহাসচিব শাহ ইমরান, বেঙ্গল মিটের হেড অব কমার্শিয়াল অ্যান্ড এক্সপোর্ট সাইদুল হক ভূইয়া প্রমুখ।

This post has already been read 2318 times!