Wednesday 18th of May 2022
Home / অর্থ-শিল্প-বাণিজ্য / কুষ্টিয়ার মিরপুরে তিন দিনব্যাপী ফলদ ও বনজ বৃক্ষ মেলা শুরু

কুষ্টিয়ার মিরপুরে তিন দিনব্যাপী ফলদ ও বনজ বৃক্ষ মেলা শুরু

Published at জুলাই ১৭, ২০১৯

মো. এমদাদুল হক (পাবনা): ‘পরিকল্পিত ফল চাষ, যোগাবে পুষ্টি সম্মত খাবার, শিক্ষায়বন প্রতিবেশ আধুনিক বাংলাদেশ’’ কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর ও সামাজিক বন বিভাগের যৌথ শ্লোগানকে সামনে রেখে বুধবার (১৬ জুলাই) কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলায় তিন দিনব্যাপী ফলদ বৃক্ষ মেলা শুরু হয়েছে। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে মেলার শুভ উদ্বোধন করেন, মিরপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. কামরুল আরেফিন। এ উপলক্ষে সকালে মিরপুর উপজেলা চত্বর থেকে এক বর্নাঢ্য র‌্যালি এবং আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। র‌্যালিটি উপজেলার প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে মেলা প্রান্তরে এসে শেষ হয়।

প্রধান অতিথি বলেন, বর্তমানে পরিবর্তিত জলবায়ুতে মানিয়ে চলতে আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহারের পাশাপাশি বৃক্ষ রোপণের বিকল্প নেই। আমাদের দেশে প্রচুর পরিমাণ ফলের ঘাটতি রয়েছে। এই ঘাটতির জন্য আমাদের প্রতিদিনে যে ফলের চাহিদা রয়েছে তা খেতে পারছিনা। অন্যদিকে ফলের চাহিদা পূরণের জন্য প্রচুর পরিমাণ ফল বিদেশ থেকে আমদানি করতে হচ্ছে। ফল আমদানি কমাতে আমাদের নিজ নিজ ফলের চাহিদা পূরণের লক্ষ্যে  প্রতিজনকে ৩টি করে ফলের চারা রোপণ করতে হবে। পাশাপাশি অন্যান্য চারাও রোপণ করা জরুরী। এছাড়া নার্সারি মালিকদের ভালো মানের চারা সরবরাহের অনুরোধ জানানেএবং খারাপ নিম্ন মানের চারা বিক্রয় থেকে বিরত থাকতে বলেন।

আলোচনার শুরুতে স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন, মিরপুর উপজেলার কৃষি অফিসার কৃষিবিদ রমেশ চন্দ্র ঘোষ। অন্যান্য বক্তারা বলেন, প্রতি বছর একটি নির্দিষ্ট হারে আবাদি জমি কমে যাচ্ছে কিন্তু জনসংখ্যা বাড়ছে। বর্ধিত জনগোষ্ঠিকে খাওয়াতে হলে বেশি বেশি উৎপাদন ছাড়া উপায় নাই।

উক্ত সভায় উপজেলা নির্বাহী এস এম জামাল আহমেদ -এর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আবুল কাশেম জোয়ার্দ্দার, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মোছা. মর্জিনা খাতুন, মিরপুর পৌরসভার মেয়র হাজ্বী এনামুল হক, উপজেলা মাধ্যমিক অফিসার জুলফিকার হায়দার, কৃষি সম্প্রসারণ অফিসার কৃষিবিদ সাবিহা সুলতানা, পোড়াদহ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আনোয়ারুজ্জামান মজনু বিশ্বাস, চাতিয়ানা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জসিম উদ্দিন।

উক্ত অনুষ্ঠানে উপজেলার সরকারি বেসরকারি কর্মকর্তা কর্মচারীসহ স্কুলের ছাত্র ছাত্রীরা উপস্থিত ছিলেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ছয়হাজার পাঁচশত ফলদ, ওষধি ও কাষ্ঠল বৃক্ষের চারা বিতরণ করা হয়।

This post has already been read 968 times!