Thursday 19th of May 2022
Home / অর্থ-শিল্প-বাণিজ্য / কৃষিতে উৎপাদন ভালো হলেও লোকসানে উৎপাদনকারী

কৃষিতে উৎপাদন ভালো হলেও লোকসানে উৎপাদনকারী

Published at ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক: সার্বিক কৃষিতে উৎপাদন ভালো হলেও লোকসানে উৎপাদনকারী। পোল্ট্রি, ডেইরি, ফল, ফসল ও সবজি সবক্ষেত্রে মোটামুটি একই অবস্থা। উৎপাদন খরচ ও বিক্রির মধ্যে তেমন তারতম্য নেই। অনেক সময় উৎপাদন খরচের চেয়ে বিক্রি কমদামে করতে বাধ্য হয় উৎপাদনকারীগণ। খাদ্য সংরক্ষণ, প্রক্রিয়াকরণ শিল্পের যথাযথ বিকাশ হলে এ অবস্থা হতো বরং লাভবান হবে কৃষি সেক্টর। সেই সাথে সৃষ্টি হতো কর্মসংস্থানের নতুন ও বৈচিত্র্যময় ক্ষেত্র। এক্ষেত্রে অবকাঠামোগত উন্নয়ন ও বিনিয়োগের কানাডার সহযোগিতা দরকার।

রবিবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) কানাডার রাষ্ট্রদূত মি. বেনোয়াট প্রেফন্তেনি সচিবালয়ে কৃষিমন্ত্রী ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক এম.পি’র সাথে একান্ত আলাপচারিতায় এসব কথা বলেন মন্ত্রী। এ সময় তিনি সরকারের কৃষি ও কৃষিজাত সেক্টরে গৃহীত ও বাস্তবায়িত বিভিন্ন পদক্ষেপের কথা উল্লেখ্ করেন। যার ফলে কৃষিতে বাংলাদেশের সাফল্য ঈর্ষণীয়, পাশাপাশি কৃষির উপখাতেও ভালো অগ্রগতি হয়েছে বলে জানান । এছাড়া আমাদের কৃষিবিজ্ঞানী, গবেষকদের এবং টেকনিশিয়ানদের উন্নত প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা গেলে এ সেক্টর আরও লাভবান হবে যা জাতীয় অর্থনীতির ভীতকে মজবুত করবে যোগ করেন কৃষি মন্ত্রী ।

বাংলাদেশে কানাডার বিনিয়োগের খাত সম্পর্কে অবহিত হতে রাষ্ট্রদূত আগ্রহ প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, চলতি বছরে তারা খাদ্য নিরাপত্তায় সবোর্চ্চ গুরুত্ব দিচ্ছে এবং সে ক্ষেত্রে বাংলাদেশ প্রাধান্য পাবে। তারা কৃষি গবেষণা প্রশিক্ষণসহ টেকনিক্যাল সহায়তা করবে বাংলাদেশকে। জার্মপ্লাজম, শস্যের বৈচিত্রায়ন ও শস্যের নতুন নতুন জাত উদ্ভাবনে যৌথভাবে কাজ করবে। এসময় উপস্থিত কানাডিয়ান কর্মাশিয়াল কর্পোরেশন এর ভাইস প্রেসিডেন্ট বলেন, তারা নবায়ণযোগ্য জ্বালানী, জলবায়ুজনিত সমস্যা মোকাবেলায় বিনিয়োগ করতে চায়। তিনি বাংলাদেশে সোলার প্যানেলের ইন্ডা্ষ্ট্রি স্থাপন আগ্রহ প্রকাশ করেন।

কৃষিজাত পণ্যের প্রক্রিয়াজাত, সংরক্ষণ, বাজারজাত ও রপ্তানিকরণে বাংলাদেশের সাথে যৌথ অংশিদারিত্বে কাজ করবে দেশটি। এক্ষেত্রে তাদের দেশের ব্যাবসায়ী ও বিনিয়োগকারীদের এদেশে বিনিয়োগে উৎসাহিত করবেন। কৃষিমন্ত্রী রাষ্ট্রদূত ও প্রতিনিধিবৃন্দকে উদ্দেশ্য করে বলেন, বাংলাদেশে ইন্ডা্ষ্ট্রি স্থাপনে এখন আর বিদ্যুৎ ও গ্যাসের কোনো সমস্যা নেই। দেশে বিনিয়োগের নিরাপদ পরিবেশ বিদ্যমান, বিনিয়োগে নিরাপদ পরিবেশ বজায় রাখতে সরকার অঙ্গিকারাবদ্ধ।

এছাড়া বিনিয়োগকারীদের সর্বোচ্চ সহযোগিতা করবে বাংলাদেশ। ছয় সদ্যস্যের প্রতিনিধি দলে আরো ছিলেন Mr. Mark Strasser Deputy Director Global Affairs, Canada Ms. Corinne Petrisor, Counselor (Commercial Affairs) Mr. Kamal Uddin, Trade Commissioner High Commission Of Canada আরো ছিলেন Canadian Commercial Corporation এর Vice President Mr. Charls Paul Marcotte ও Regional Director Asia Ms.Yvonne Chin.

This post has already been read 3272 times!