Tuesday 16th of April 2024
Home / শিক্ষাঙ্গন / বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে “হাল্ট প্রাইজ” অন ক্যাম্পাস ফাইনাল অনুষ্ঠিত

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে “হাল্ট প্রাইজ” অন ক্যাম্পাস ফাইনাল অনুষ্ঠিত

Published at ফেব্রুয়ারি ২৯, ২০২৪

বশেমুরকৃবি সংবাদদাতা: চতুর্থবারের মতো বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বশেমুরকৃবি) গত বৃহস্পতিবার ( ২২ ফেব্রুয়ারি) বিশ্বের সবচেয়ে বড় স্টার্টআপ অ্যাক্সিলারেটর প্রোগ্রাম ‘হাল্ট প্রাইজ’-এর অন-ক্যাম্পাস রাউন্ডের গ্র‍্যান্ড ফিনালে অনুষ্ঠিত হয়েছে। শিক্ষার্থীদের “নোবেল পুরস্কার” খ্যাত হাল্ট প্রাইজ’ হলো এমন এক ইনকিউবেটর প্রোগ্রাম, যা মূলত তরুণদেরকে তাদের মেধা-মনন ব্যবহার করে সামাজিক বিজনেস আইডিয়া প্রদান করার মাধ্যমে নতুন এক আগামীর দিকে ধাবিত করতে উৎসাহিত করে। হাল্ট ফাউন্ডেশনের ১৫ বছর পুর্তিতে এবছরের শিরোনাম ছিল ‘আনলিমিটেড’।

বিশ্ববিদ্যালয়ের পুরাতন অডিটোরিয়ামে বিকাল সাড়ে চারটায় ক্যাম্পাস ডিরেক্টর আকিফ বিন সাঈদ এর উদ্বোধনী বক্তব্যের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানটি শুরু হয়। প্রফেসর ডক্টর মো. মোতাহার হোসেন এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মুহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন মিয়া। এছাড়াও বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কোষাধক্ষ্য প্রফেসর তোফায়েল আহমেদ, ছাত্র কল্যাণের পরিচালক প্রফেসর ডঃ মোঃ মাহবুবুর রহমান এবং প্রফেসর ডঃ মুহাম্মদ আবিয়ার রহমান। বিজনেস আইডিয়া মূল্যায়নের জন্যে বিচারক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রফেসর ডঃ মুহাম্মদ মাইনুল হাসান অলিভার, প্রফেসর ডক্টর আসিফ রেজা অনিক, আন্দালিব প্রান্ত এবং মোঃ জহিরুল ইসলাম।

বিকাল ৫ টা থেকে ফাইনালিস্ট ৬ টিম ( টিম নার্চার, টিম রি-ট্রুভ, টিম উইগার ইনকরপোরেশন, টিম পজিটিভ ভিগর, টিম এলগাহলিক লাইফ, টিম এম) পর্যায়ক্রমে তাদের বিজনেস আইডিয়া উপস্থাপন করে। এদের মধ্যে তিনটি টিম বিজয়ী হয়। চ্যাম্পিয়ন হয় টিম রি-ট্রুভ । টিম এমপাইরেন ও টিম নার্চার যথাক্রমে দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থান অধিকার করে।

উল্লেখ্য, গত ৮ ফেব্রুয়ারি রেজিস্ট্রেশন শুরু হয়ে ১৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত চলে। প্রথম পর্যায়ে ২৮ টি টিম রেজিষ্ট্রেশন করে। বিভিন্ন প্রতিযোগিতাপূর্ণ ধাপ শেষ করে ১৫ টি টিম সেমি-ফাইনালের জন্য উত্তীর্ণ হয়। যার মধ্য থেকে ৬ টি টিম ফাইনালে অংশগ্রহণ করে। অন ক্যাম্পাস রাউন্ডে বিজয়ী দলগুলো পরবর্তীতে রিজিওনাল সামিটে দেশের অন্যান্য অন ক্যাম্পাস বিজয়ীদের সাথে লড়বে। সেখানে বিজয়ী দলটি সুযোগ পাবে গ্লোবাল সামিটে অংশগ্রহণ করার। গ্লোবাল ফাইনালে চূড়ান্ত বিজয়ী দলটি তাদের বিজনেস আইডিয়াটি বাস্তবায়নের জন্য পাবে এক মিলিয়ন মার্কিন ডলার।

This post has already been read 984 times!