দেশের দুধ ও মাংস উৎপাদনের অগ্রযাত্রায় এসিআই এনিমেল জেনেটিক্স অন্যতম কারিগর

এগ্রিনিউজ২৪.কম: দেশের দুধ ও মাংস উৎপাদনের অগ্রযাত্রায় সরকারের পাশাপাশি বেসরকারি খাতের যেসব কোম্পানি অগ্রণী অগ্রণী ভূমিকা পালন করছে তাদের মধ্যে এসিআই এনিমেল জেনেটিক্স অন্যতম কারিগর। এসিআই যেভাবে প্রান্তিক পর্যায়ের খামারিদের মাঝে প্রাণিসম্পদ খাতের প্রযুক্তি পৌছে দিচ্ছে এবং তাদের জীবনমান উন্নয়নের জন্য কাজ করে যাচ্ছে, সেটি সত্যিই প্রশংসার দাবিদার। সরকারের প্রজনন নীতিমালা পরিপালনের মাধ্যমে এসিআই এনিমেল জেনেটিক্স এভাবেই দেশের প্রাণিজ আমিষের উৎপাদন সরকারকে সহযোগিতা করে যাবে বলে আশাবাদ ব্যাক্ত করছি।

এসিআই এনিমেল জেনেটিক্স আয়োজিত “কৃত্রিম প্রজনন ও ব্যবস্থাপনা ব্যবস্থাপনা বিষয়ক” প্রোজেনী শো’তে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বগুরা জেলার শেরপুর উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. মোসা. রেহেনা হক এসব কথা বলেন। রবিবার (১০ ডিসেম্বর) বগুড়ায় মির্জাপুর উচ্চবিদ্যালয় স্কুল প্রাঙ্গনে উক্ত শো’র আয়োজন করা হয়। প্রায় সো ২শ’ স্থানীয় খামারির উপস্থিতিতে অনুষ্ঠানস্থল কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে যায়। অনুষ্ঠানে ৩০টি বাছুর ও ২০টি ফ্রিজিয়ান এবং ১০ টি শাহিওয়াল জাতের গরু প্রদর্শন করা হয়।

এসিআই এনিমেল জেনেটিক্স-এর বিজনেস ডিরেক্টর মো. মোজাফফর উদ্দীন আহমেদ-এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এসিআই এনিমেল জেনেটিক্স এর প্রধান উপদেষ্টা ও কৃত্রিম প্রজনন অধিদপ্তরের প্রাক্তন পরিচালক ডা. অরবিন্দ কুমার সাহা, শেরপুর উপজেলার কৃষক লীগের সহ সভাপতি আবুল কালাম আজাদ, প্রাণিসম্পদ সম্প্রসারণ কর্মকর্তা ডা. আহসান হাবিব, এসিআই এনিমেল জেনেটিক্স এর এসিস্ট্যান্ট মার্কেটিং ম্যানেজার ডা. মনিরুজ্জামান, এসিআই এনিমেল হেলথ এর সেলস ম্যানেজার জাহাঙ্গীর হোসেন, স্থানীয় পরিবেশক মানিক মিয়া।

প্রধান অতিথি বলেন, জাতির জনকের হাত ধরেই দেশের প্রথম উন্নত জাতের গবাদিপশু কৃত্রিম প্রজনন শুরু হয়, যার সুফল আজও আমরা ভোগ করছি।

শেরপুর উপজেলা কৃষক লীগের সহ সভাপতি আবুল কালাম আজাদ বলেন, দেশে চাষের জমি ক্রমাগত কমছে। আমাদের তাই স্বল্প জমি ও স্বল্প সম্পদ নিয়েই বিস্তর উন্নয়নের চিন্তার করতে হবে। দেশের উন্নয়নের অন্যতম হাতিয়ার হতে পারে গবাদিপশুর জাত উন্নয়ন।

ডা. অরবিন্দ কুমার সাহা বলেন, গবাদিপশুর জাত উন্নয়নের মাধ্যমে দেশে দুধ মাংসের উৎপাদন বাড়াতে আমি সারাটি জীবন পার করেছি। প্রজনন নীতি মালার প্রতিটি বিষয় আমার হাত ধরেই প্রনীত হয়েছে। সরকারি চাকুরি থেকে অবসরের পর তাই এসি আই তে যোগদান করে তার ব্যাত্যয় আমি কীভাবে করবো? দেশের প্রজনন নীতিমালার পুরোটাই আমার সন্তানতুল্য। আমার অর্জিত জ্ঞান ও অভিজ্ঞতা তাই এসিআইকে শিখিয়ে যাবো এবং সে অনুপাতে কাজ করিয়ে যাবো।

অনুষ্ঠানের সভাপতি মোজাফফর উদ্দীন আহমেদ বলেন, প্রান্তিক পর্যায়ের খামারিদের নিয়ে এই ধরনের মেলার প্রচলন আমরা আরো বাড়াবো এবং এ বছরেই আরো মেলার আয়োজন করবো। এই মেলাগুলো মাধ্যমে কৃষকদের মাঝে আরো সচেতনতা ও উদ্দোক্তা হওয়ার স্পৃহা আমরা জাগ্রত করবো।

This post has already been read 1235 times!

Check Also

প্রাণিসম্পদ ও মৎস্য সেক্টরের উন্নয়ন ছাড়া স্মার্ট বাংলাদেশ গঠন সম্ভব নয় -মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক: প্রাণিসম্পদ ও মৎস্য সেক্টরের উন্নয়ন ছাড়া ২০৪১ সালের মধ্যে স্মার্ট বাংলাদেশ গঠন করা …