Sunday 25th of February 2024
Home / আঞ্চলিক কৃষি / বারি’তে মসলা জাতীয় ফসলের সমাপনী কর্মশালা অনুষ্ঠিত

বারি’তে মসলা জাতীয় ফসলের সমাপনী কর্মশালা অনুষ্ঠিত

Published at নভেম্বর ২৫, ২০২৩

গাজীপুর সংবাদদাতা: বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট (বারি) এর মসলা গবেষণা কেন্দ্রের আয়োজনে আজ শনিবার (২৫ নভেম্বর) “বাংলাদেশে মসলা জাতীয় ফসলের গবেষণা জোরদারকরণ” প্রকল্পের সমাপনী কর্মশালা বারি’র কাজী বদরুদ্দোজা মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে কর্মশালার উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা কাউন্সিল এর নির্বাহী চেয়ারম্যান ড. শেখ মোহাম্মদ বখতিয়ার । বারি’র মহাপরিচালক ড. দেবাশীষ সরকার এর সভাপতিত্বে উক্ত কর্মশালায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কৃষি মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব (গবেষণা অনুবিভাগ) রেহেনা ইয়াছমিন; পরিচালক (গবেষণা) ড. মো. আব্দুল্লাহ ইউছুফ আখন্দ; পরিচালক (সেবা ও সরবরাহ) ড. ফেরদৌসী ইসলাম; পরিচালক (পরিকল্পনা ও মূল্যায়ন) ড. দিলোয়ার আহমদ চৌধুরী এবং পরিচালক (প্রশিক্ষণ ও যোগাযোগ) ড. মো. তারিকুল ইসলাম।

অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ও প্রকল্প পরিচালক ড. শৈলেন্দ্র নাথ মজুমদার। প্রকল্প পরিচালক জানান উক্ত প্রকল্পের আওতায় ১৯৪ টি উপজেলায় মসলা জাতীয় ফসলের উন্নয়নে গবেষণা কার্য়ক্রম পরিচালিত হয়। যেখানে মসলার ১৭টি উন্নত জাত ও ৭৫ টি প্রযুক্তি উদ্ভাবন এবং ৩৩৪ টি জার্মপ্লাজম সংগ্রহ করা হয়। যা দেশের সার্বিক মসলার ঘাটতি পূরণে বিশেষ ভূমিকা রাখবে।

প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন, বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট এর বিজ্ঞানীরা দেশের মসলা জাতীয় ফসলের ঘাটতি পূরণে নিরলস গবেষণা করে যাচ্ছেন। যার ফলশ্রুতিতে অনেক সম্ভাবনাময় নতুন জাত ও প্রযুক্তি উদ্ভাবন করেছেন। যা আমাদের মসলা ফসলের চাহিদা পূরণে আশার আলো দেখাচ্ছে। সভাপতি তার বক্তব্যে বলেন, অনেক প্রতিকূলতার মাঝেও বারি উদ্ভাবিত মসলা ফসলের জাত কৃষক পর্যায়ে সফল বাস্তবায়ন করা গেলে আমাদের আমদানি নির্ভরতা কমে নিজেরা নিজেদের প্রয়োজন মিটাতে সক্ষম হব।দেশের অর্থনীতিতে বৈদেশিক মুদ্রার সাশ্রয় হবে।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন মুখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. মো. জুলফিকার হায়দার প্রধান। কর্মশালায়  কৃষি মন্ত্রণালয়, বারি, বিএআরসি,ডিএই,বিএডিসি এর সিনিয়র অফিসারসহ কৃষক প্রতিনিধি,এনজিও প্রতিনিধি, প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন।

This post has already been read 528 times!