Wednesday 28th of February 2024
Home / আঞ্চলিক কৃষি / ঝালকাঠির রাজাপুরে চলছে পার্চিং উৎসব ও আলোক ফাঁদের কার্যক্রম

ঝালকাঠির রাজাপুরে চলছে পার্চিং উৎসব ও আলোক ফাঁদের কার্যক্রম

Published at সেপ্টেম্বর ১৮, ২০২৩

নাহিদ বিন রফিক (বরিশাল): চলতি মৌসুমে ঝালকাঠির রাজাপুরে চলছে পার্চিং উৎসব এবং আলোক ফাঁদের কার্যক্রম। রবিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) উপজেলা কৃষি অফিসের উদ্যোগে এই উৎসবের উদ্বোধন করেন উপজেলা কৃষি অফিসার জনাব মোসা. শাহিদা শারমিন।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন কৃষি সম্প্রসারণ অফিসার মেহেরুন্নেছা পাপড়ি, কৃষি সম্প্রসারণ অফিসার মো. মোস্তাফিজুর রহমান,  সহকারী কৃষি সম্প্রসারণ অফিসার আবুল বসার জোমাদ্দার, উপসহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা মো. মেহেদী হাসান প্রমুখ।

উদ্বোধনকালে উপজেলা কৃষি অফিসার বলেন, পার্চিং হলো পাখি বসার জন্য জমিতে সঠিকভাবে ডাল পুঁতে দেয়ার ব্যবস্থা। এটি একটি পরিবেশবান্ধব প্রযুক্তি। এর মাধ্যমে  পরিবেশের কোনো ক্ষতি না করে মাজরা, পাতা মোড়ানো পোকা, চুঙ্গি পোকা, শিষ কাটা লেদা পোকা, লম্বা শূড় ঘাসফড়িং, উড়চুঙ্গাসহ নানা ধরনের ক্ষতিকর পোকা দমন করা যায়। তিনি আরও বলেন,  ডাল পুঁতে দিলে তাতে ফিঙে, মাছরাঙাসহ বিভিন্ন পাখি আসে।  একটি ফিঙে সারাদিনে ৩০ টির মতো মাজরা পোকার মথ, ডিম, পুত্তলি খেতে পারে। এতে ধান রোপণের শুরুতেই ক্ষতিকর পোকামাকড় বংশ বিস্তার বাঁধাপ্রাপ্ত হয়। ফলে অনিষ্টকারী পোকামাকড় নিয়ন্ত্রণে থাকে। তাই কৃষকদের উদ্বুদ্ধকরণের মাধ্যমে পার্চিং কর্যক্রম আরও বেগবান হবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

এছাড়াও পোকার উপস্থিতি যাচাই ও পোকা ব্যবস্হাপনার জন্য উপজেলায় আলোক ফাঁদের কার্যক্রমও চলমান আছে। উল্লেখ্য, এ বছর উপজেলায় ১১ হাজার ৯৩ হেক্টর জমিতে আমন চাষ হয়েছে। তাই চারা রোপণের পরপরই ডাল পুঁতে পাখি বসার উপযুক্ত স্হান করে দিতে পারলে পাখির বিষ্ঠার মাধ্যমে জমিতে জৈব পদার্থের পরিমাণ বৃদ্ধি পাবে। পাশাপাশি পরিবেশকে রাখবে অনুকূলে।

This post has already been read 728 times!