Thursday 22nd of February 2024
Home / সংগঠন ও কর্পোরেট সংবাদ / সরকার বাফিটা’র সঙ্গে আছে – মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ সচিব

সরকার বাফিটা’র সঙ্গে আছে – মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ সচিব

Published at সেপ্টেম্বর ৯, ২০২৩

নিজস্ব প্রতিবেদক: সরকার বাফিটা’র সঙ্গে আছে এবং থাকবে বলে মন্তব্য করেছেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ সচিব ড. নাহিদ রশিদ।

শনিবার (৯ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর কৃষিবিদ ইনিষ্টিটিউশন বাংলাদেশ কমপ্লেক্সে (কে এই বি) অনুষ্ঠিত বাংলাদেশ অ্যাগ্রো ফিড ইনগ্রিডিয়েন্টস ইম্পোর্টার্স এন্ড ট্রেডার্স অ্যাসোসিয়েশনের (বাফিটা) নবনির্বাচিত কমিটির (২০২৩-২০২৫) অভিষেক অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। সম্প্রতি সংসদে পাশ হওয়া ‘ঔষধ ও কসমেটিকস বিল ২০২৩’ তিনি সম্পর্কে তিনি উপরোক্ত মন্তব্য করেন। তিনি এ সময় সকল প্রকার প্রাণি খাদ্য বা ফিড তৈরির উপকরণ আমদানিতে পণ্যের মাণ নিশ্চিত করা তাগিদ দেন।

ড. নাহিদ রশিদ, দেশের প্রাণিসম্পদ সেক্টরের উন্নয়নে বাফিটা’র মতো সংগঠনগুলো নিরলসভাবে কাজ করছে এ কথা সত্যি। তবে, ব্যবসায়ীদের অতি মুনাফার চিন্তা থেকেও বের হয়ে আসতে হবে। ইউক্রেন রাশিয়ার যুদ্ধ শুরু হয়েছে আরো দুই বছর আগে, কিন্তু সেটির দোহাই দিয়ে জিনিসপত্রের দাম কয়েকদিন পর পর বাড়ানো কতটা যুক্তিসঙ্গত সেটিও গবেষণার বিষয় রয়েছে।

তিনি বলেন, সংশ্লিষ্ট এসোসিয়েশনগুলো মাঝেমধ্যে একেক রকম তথ্য দেয়। একই জিনিসের ক্ষেত্রে কেউ হয়তো বলছে ৫৫% আবার কেউ বলছেন ৭০%। পণ্যের দাম বাড়ানোর ক্ষেত্রে একে অপরকে দোষারোপের যে একটা সংস্কৃতি আমাদের মাঝে গড়ে উঠেছে, সেখান থেকে বের হয়ে আসতে হবে। পণ্যমূল্যের কারণে খামার বন্ধ হতে দেয়া যাবেনা। তাদের পাশে থাকতে হবে। খামারিরা থাকলেই আপনারা ব্যবসা করতে পারবেন।

ড. নাহিদ রশিদ আরো বলেন, আমাদের পণ্যের দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির পেছনে সুনির্দিষ্ট কিছু কারণ রয়েছে। সেগুলো বের করার জন্য গবেষণা করতে হবে। কোনো একটা ইস্যু পেলেই দাম বৃদ্ধি করা হলো। সেটি হতে দেয়া যাবে না।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ডা. মো. এমদাদুল হক তালুকদার বলেন, ফিডমিলের প্রায় সকল উপকরণ আমদানি করতে হয়। এক্ষেত্রে আমদানিকারকদের অবশ্যই গুণগত পণ্য আমদানি করতে হবে।

মৎস্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক খন্দকার মাহবুবুল হক বলেন, দেশের উন্নয়নে ফিড শিল্পের গুরুত্ব অপরিসীম। যার অধিকাংশ পণ্যই আমদানি নির্ভর। দেশীয় উপকরণ ব্যবহারে দ্রব্যমূল্য কমাতে বেসরকারি প্রতিষ্ঠানকে গবেষণা কাজে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বাফিটা’র সদ্য সাবেক সভাপতি সুধীর চৌধুরী, নব নির্বাচিত সভাপতি এএম আমিরুল ইসলাম ভূইয়া,  মহাসচিব জয়ন্ত কুমার দেব; আহকাব মহাসচিব মোহাম্মদ আফতাব আলম, বাপকা সাধারণ সম্পাদক মো. হাবিবুর রহমান প্রমুখ। সমগ্র অনুষ্ঠানটিতে সঞ্চালকের ভূমিকা পালন করেন বাফিটা সহ সভাপতি মো. গিয়াস উদ্দিন খান।

অনুষ্ঠানের শুরুতে আগত প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথিদের ফুলের তোড়া দিয়ে বরন এবং বিশেষ সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান করা হয়। এছাড়াও নবনির্বাচিত সদস্যদের ফুলের তোড়া দিয়ে শুভেচ্ছা জানানো হয়।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে আরো উপস্থিতি ছিলেন নবনির্বাচিত কমিটির সিনিয়র সহ সভাপতি মো. আনোয়ারুল হক, যুগ্ম মহাসচিব মো.  মাহবুবুল আলম, সাংগঠনিক সম্পাদক আলতাফ হোসেন বিশ্বাস, কোষাধ্যক্ষ- মো. খোরশেদ আলম, সমাজ কল্যাণ সম্পাদক- মো শাহ একরাম, প্রচার সম্পাদক- আব্দুর রহমান, কার্যনির্বাহী সদস্যরা হলেন- মোহাম্মদ মনসুর মিয়া, এটিএম শাহীন পারভেজ, ডা. রাশেদুল  জাকির, মো. সেলিম রেজা হিরণ, মো. এনামুল হক মোল্ল্যা প্রমুখ।

This post has already been read 856 times!