Monday 4th of July 2022
Home / আঞ্চলিক কৃষি / বরিশালে ধানের উৎপাদন ও বাজার ব্যবস্থাপনা বিষয়ক সেমিনার অনুষ্ঠিত

বরিশালে ধানের উৎপাদন ও বাজার ব্যবস্থাপনা বিষয়ক সেমিনার অনুষ্ঠিত

Published at জুন ২, ২০২২

নাহিদ বিন রফিক (বরিশাল): বরিশাল অঞ্চলে ধানের উৎপাদন ও বাজার ব্যবস্থাপনা বিষয়ক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে। বরিশাল (২ জুন) নগরীর ব্রির হলরুমে বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউটের উদ্যোগে এই সেমিনারের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা ছিলেন বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. এমএ ছাত্তার মন্ডল।

বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউটের (ব্রি) মুখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. মো. আলমগীর হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা কাউন্সিলের সাবেক নির্বাহী চেয়ারম্যান ড. মো. ওয়ায়েস কবীর এবং কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরে (ডিএই) অতিরিক্ত পরিচালক হৃদয়েশ্বর দত্ত।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ডিএই বরিশালের উপপরিচালক মো. হারুন-অর-রশীদ, ডিএই ঝালকাঠির উপপরিচালক মো. মনিরুল ইসলাম, আঞ্চলিক কৃষি গবেষণা কেন্দ্রের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. মো. গোলাম কিবরিয়া, বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশনের যুগ্ম পরিচালক ড. একেএম মিজানুর রহমান, ডিএই বরিশালের জেলা প্রশিক্ষণ অফিসার মোসাম্মৎ মরিয়ম, জেলা বীজ প্রত্যয়ন অফিসার সনজীব মৃধা, ডিএই বরিশালের অতিরিক্ত উপপরিচালক সাবিনা ইয়াসমিন, আঞ্চলিক কৃষি তথ্য অফিসার মো. শাহদাত হোসেন, বাংলাদেশ পরমাণু কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ড. ছয়েমা খাতুন, বরিশালের জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মো. তাজুল ইসলাম, সিনিয়র কৃষি বিপণন কর্মকর্তা এস এম মাহবুব আলম, বাবুগঞ্জের মধ্য রাকুদিয়া কৃষি তথ্য ও যোগাযোগ কেন্দ্রের সভাপতি রিতা ব্রহ্ম, বাকেরগঞ্জের কৃষক কাঞ্চন আলী হাওলাদার প্রমুখ।

প্রধান বক্তা বলেন, ধানসহ অন্যান্য ফসল উৎপাদনে দক্ষিণাঞ্চলে যেমন সমস্যা রয়েছে, তেমনি আছে সম্ভাবনা। এসব নিয়ে দিবানিশি যারা কাজ করছেন তাদের কথা শোনার জন্যই আমাদের আজকের এই সেমিনার। এখান থেকে উপস্থাপিত তথ্য আহরণ করে সেগুলো সরকারের উচ্চ পর্যায়ে পৌঁছে দেবো। আমাদের লক্ষ্য ফসলের উৎপাদন বাড়ানো এবং কৃষি পণ্যের ন্যায্য মূল্য নিশ্চিত করা। এ জন্য যা যা করণীয় তা সমন্বিত প্রচেষ্টায় বাস্তবায়ন সম্ভব।

সেমিনারে কৃষি ও খাদ্য মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা, কৃষি উদ্যোক্তা এবং বীজ ডিলার মিলে ৪০ জন অংশগ্রহণকারী উপস্থিত ছিলেন।

This post has already been read 324 times!