Saturday 28th of January 2023
Home / অর্থ-শিল্প-বাণিজ্য / ৬ লাখ টন আমন ধান কিনবে সরকার, কৃষককে হয়রানি না করার নির্দেশ খাদ্যমন্ত্রীর

৬ লাখ টন আমন ধান কিনবে সরকার, কৃষককে হয়রানি না করার নির্দেশ খাদ্যমন্ত্রীর

Published at ফেব্রুয়ারি ১২, ২০২০

বরিশাল সংবাদদাতা: আমন মৌসুমে সরাসরি কৃষকের কাছ থেকে সাড়ে ছয় লক্ষ মেট্রিক টন ধান ক্রয় করবে সরকার। ধান বিক্রি করতে যেয়ে কৃষক যাতে কোন রকম হয়রানির শিকার তার নির্দেশ দিয়েছেন খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার, এমপি। বুধবার (১২ফেব্রুয়ারি) বরিশাল জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত বরিশাল জেলার খাদ্য বিভাগের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সঙ্গে অভ্যন্তরীণ আমন সংগ্রহ বিষয়ক এক মতবিনিময় সভায় মন্ত্রী এ নির্দেশ দেন।

খাদ্যমন্ত্রী বলেন,  কৃষকের কথা চিন্তা করে বর্তমান সরকার নানাবিধ পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। প্রথমবারের মতো সংগ্রহ করা হচ্ছে। যাতে কৃষক ধান উৎপাদনে অনুৎসাহিত না হয়ে বরং উৎসাহিত হয়। বিনা হয়রানিতে কৃষকের কাছ থেকে ধান সংগ্রহ করতে হবে।

তিনি বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ২০০৯ সাল থেকে ধারাবাহিকভাবে দেশের প্রতিটি সেক্টরে অত্যন্ত সফলভাবে সকল কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে,  যার ফলশ্রুতিতে বাংলাদেশ বিশ্বের কাছে রোল মডেল হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। সারা বিশ্বে তার যোগ্য নেতৃত্ব প্রশংসিত হয়েছে, তিনি বিভিন্ন পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন। আর এ সকল কাজের পেছনে আপনাদেরও অনেক অবদান রয়েছে। এখন এসব উন্নয়নমূলক কর্মকান্ডকে টেকসই করতে হবে। আর তার জন্য প্রয়োজন সকলের আন্তরিকতা, সদিচ্ছা, ন্যায়পরায়ণতা।

মন্ত্রী বলেন, লোভ সংবরণ করে নীতি-নৈতিকতার মাধ্যমে, সততার মাধ্যমে সকলকে কাজ করতে হবে,  দেশকে ভালবাসতে হবে, দেশের মানুষকে ভালবাসতে হবে। পাশাপাশি নিজের সন্তানকে সুশিক্ষায় শিক্ষিত করে মানুষের মত মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। তাহলেই বাঙালি জাতি সুশিক্ষিত জাতি হিসাবে সারা বিশ্বে মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে পারবে।

তিনি আরো বলেন, এবছর অ্যাপসের মাধ্যমে কৃষকদের কাছ থেকে ধান সংগ্রহ করা হয়েছে। আগামী বোরো মৌসুমে কৃষকদের কাছ থেকে ধান সংগ্রহে সব উপজেলায় মোবাইল অ্যাপস চালু করা হবে।

বরিশাল বিভাগের বিভাগীয় কমিশনার মো. ইয়ামিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় বক্তব্য দেন খাদ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব ডক্টর মোছাম্মৎ নাজমানারা খানুম, বরিশাল জেলার জেলা প্রশাসক এসএম অজিয়র রহমান, বরিশাল জেলার পুলিশ সুপার মো. সাইফুল ইসলাম, বরিশাল বিভাগীয় খাদ্য নিয়ন্ত্রক  ফারুক হোসেন, বরিশাল জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক,  চালকল মালিক সমিতির নেতৃবৃন্দসহ খাদ্য ও কৃষি বিভাগের স্থানীয় কর্মকর্তাবৃন্দ।

এর আগে সকাল ১০টায় মন্ত্রী পটুয়াখালী জেলার দুমকি উপজেলায় অবস্থিত নবনির্মিত দুমকি খাদ্যগুদামের শুভ উদ্বোধন করেন। এসময় খাদ্য সচিব মোসাম্মৎ নাজমানারা খানুম, বরিশাল বিভাগের আঞ্চলিক খাদ্য নিয়ন্ত্রক ফারুক হোসেন, জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক, উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক সহ স্থানীয় প্রশাসনের এবং খাদ্য বিভাগের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। পরে তিনি দুমকি উপজেলা পরিষদের উদ্যোগে আয়োজিত এক নাগরিক সমাবেশে যোগ দেন। দুমকি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হারুন অর রশিদ উক্ত সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন।

This post has already been read 1987 times!