Sunday 22nd of May 2022
Home / প্রাণিসম্পদ / ডেইরি-ক্যাটল ব্যবসায় ভালো মুনাফার কৌশল নিয়ে ঢাকায় কর্মশালা

ডেইরি-ক্যাটল ব্যবসায় ভালো মুনাফার কৌশল নিয়ে ঢাকায় কর্মশালা

Published at সেপ্টেম্বর ২৮, ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক: বর্তমান বাংলাদেশে ডেইরি একটি অত্যন্ত উদীয়মান সেক্টর। সেক্টরটিতে প্রতিনিয়ত প্রচুর শিক্ষিত যুবক যেমন আত্মনিয়োগ করছে তেমনি বড় বড় উদ্যোক্তারাও এগিয়ে আসছেন। তবে ডেইরি যেহেতু একটি আপাদমস্তক বিজ্ঞান এবং যেকোন ব্যবসার মূল উদ্দেশ্যই থাকে মুনাফা, তাই যথাযথ পুষ্টি ও খাদ্য ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে কিভাবে ডেইরি ব্যবসা লাভজনক করা যায় সে বিষয়ে সম্যক ধারনা থাকার প্রয়োজন। বিষয়টিকে লক্ষ্য রেখে Kemin Industries South Asia Pvt. Ltd. এবং Doctor’s Agro-Vet Ltd. যৌথভাবে ”Dairy Nutrition & Dairy Feed Business Management for Better Profilibility“ শীর্ষক এক কর্মশালার আয়োজন করে শনিবার (২৮ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর ঢাকা রিজেন্সী হোটেলে। সেমিনারে দেশ-বিদেশের ডেইরি উদ্যোক্তা, বিশেষজ্ঞ, পুষ্টিবিদ, বিজ্ঞানী, সরকারি-বেসরকারি উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

কর্মশালায় উদ্বোধনী বক্তব্য দেন কেমিন বাংলাদেশ কান্ট্রি হেড ডা. আজিমুল হক। তিনি ওয়ার্কশপে আগত অতিথিদের শুভেচ্ছা জানিয়ে মূল বক্তাদের প্রবন্ধ উপস্থাপনের আমন্ত্রণ জানান।

কর্মশালায় কেমিন সম্পর্কে বিস্তারিত তুলে ধরেন কোম্পানির ব্যবস্থাপক ডা. প্রকাশ চন্দ্র সাইনি (Dr. Prakash Chandra Saini). তিনি জানান যুক্তরাষ্টভিত্তিক কোম্পানি মূলত একটি পারিবারিক প্রতিষ্ঠান। কোম্পানিটির এ পর্যন্ত প্রায় ৫শ’টির মতো প্যাটেন্ট ও অ্যাপ্লিকেশন রয়েছে। বার্ষিক প্রায় ৯০০ মিলিয়ন ডলার আয় করা কোম্পানিটির পণ্য বিশ্বের শতকরা ৮০ ভাগ লোক প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে গ্রহণ করে।

কর্মশালায় “Modern Energy & Protein Nutrition of Dairy Animals”; “Profitable Beef Nutrition & Management” এবং “Dairy Cattle Feed Business Scope & Opportunity at Bangladesh”  শীর্ষক মোট ৩টি প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন কেমিন এনিমেল নিউট্রিশন অ্যান্ড হেলথ্ এর টেকনিক্যাল হেড (রুমেন) ডা. সুধীর কুমার সিং (Mr. Sudhir Kumar Singh, PhD)।

তিনি বলেন, ডেইরি-ক্যাটল ফার্মে লাভ করতে হলে খুব সতর্ক এবং ক্যালকুলেটিভ হতে হবে। ইউরোপিয়ান দেশগুলো এ ব্যাপারে খুবই সতর্ক এবং ক্যালকুলেটিভ যা এসব দেশের খামারিদের মধ্যে দেখা যায়না। দুগ্ধ উৎপাদনকারী গরুর জন্য ফাইবার (আঁশ) অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ উপাদান বলে তিনি উল্লেখ করেন।

ডা. সুধীর বলেন, গরু মোটাতাজাকরণ বা মাংস উৎপাদনে রুমেন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি অংশ। এনার্জি এবং প্রোটিন গরু মোটাতাজাকরনের মৌলিক বিষয়। সুতরাং এসব বিষয়ে সম্যক ধারনা ও সতর্ক থাকতে হবে।

তিনি আরো বলেন, এদেশের (বাংলাদেশ) অনেক খামারি খুব অল্প জায়গায় অনেক গরু পালন করেন। এতে করে গরু ঠিকমতো নাড়াচাড়া করতে সমস্যা হয়। এতে করে গরুর কাংঙ্ক্ষিত ওজন পাওয়া যায়না। তাই গরুর জন্য পর্যাপ্ত জায়গা রাখতে হবে। ব্রিডিং, নিউট্রিশন এবং ম্যানেজমেন্ট এ তিনটি বিষয় ডেইরি-ক্যাটল ব্যবসার জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ বলে তিনি উল্লেখ করেন।

ডা. সুধীর জানান, মাংসজাত গরুর ব্যবসার মূল চাবিকাঠি ৮টি এবং সেগুলো হলো- জাত নির্বাচন, পুষ্টি, ভালো খাদ্য ব্যবস্থাপনা, খামার ব্যবস্থাপনা, শারীরিক অবস্থার স্কোরিং করা, স্বাস্থ্য, গুণগত মানসম্পন্ন মাংস উৎপাদনে গুরুত্ব দেয়া এবং বাজার সম্পর্কে সচেতন থাকা।

সেমিনারে “Importance of Minerals in Dairy & Kemins Mineral Technology” শীর্ষক প্রবন্ধ যৌথভাবে উপস্থাপন করেন ডা. সুধীর কুমার সিং ও ডা. প্রকাশ চন্দ্র সাইনি। এ সময় তারা মিনারেল ও  প্রোটিন নিয়ে বিস্তারিত আলোকপাত করেন।

উল্লেখ্য, কেমিন EnerFAT™ Plus, Kemtrace Maxim এবং YePlus+ নামে মোট ৩টি ডেইরি-ক্যাটল পণ্য স্থানীয় পরিবেশক ডক্টরস’ এগ্রো-ভেট এর মাধ্যমে বাংলাদেশে বাজারজাত করে আসছে।

This post has already been read 2096 times!