Wednesday 28th of February 2024
Home / অন্যান্য / রাষ্ট্রপতিকে বরণ করতে প্রস্তুত বাকৃবি : সেজেছে বর্ণিল সাজে!

রাষ্ট্রপতিকে বরণ করতে প্রস্তুত বাকৃবি : সেজেছে বর্ণিল সাজে!

Published at জুলাই ২১, ২০১৮

মো. আরিফুল ইসলাম, বাকৃবি : বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বাকৃবি) সাফল্য ও গৌরবের ৫৭ বছর উদযাপন এবং হাওর ও চর উন্নয়ন ইনস্টিটিউটের ভিত্তি প্রস্তরের উদ্বোধন অনুষ্ঠিত হবে আগামীকাল (২২ জুলাই) রবিবার। রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন। দিনব্যাপী ওই অনুষ্ঠান চলবে। প্রথম পর্বে দুপুর একটায় বিশ্ববিদ্যালয়ের সাফল্য ও গৌরবের ৫৭ বছর উদযাপন উপলক্ষ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু স্মৃতি চত্ত্বরে একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হবে। দুপুর ২টায় রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ বঙ্গবন্ধু চত্বরে অনুষ্ঠানে আসন গ্রহণ করবেন। এরপর ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের সাফল্য ও গৌরবের ৫৭ বছর” শীর্ষক ভিডিও চিত্র প্রদর্শন করা হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর অধ্যাপক ড. মো. আলী আকবরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দিবেন প্রো- ভাইস চ্যান্সেলর অধ্যাপক ড. জসিমউদ্দিন খান। মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভাইস চ্যান্সেলর ও এমিরেট অধ্যাপক ড. এম এ সাত্তার মন্ডল। এছাড়াও অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি হিসেবে থাকবেন ধর্মমন্ত্রী অধ্যক্ষ মতিউর রহমান, বাকৃবি অ্যালামনাই এসোসিয়েশনের সভাপতি কৃষিবিদ মো. আবদুর রাজ্জাক, সাধারণ সম্পাদক কৃষিবিদ আব্দুল মান্নান ও নির্বাহী সম্পাদক কৃষিবিদ বদিউজ্জামান বাদশা।

৫৭ বছরে বাকৃবি কর্তৃক উদ্ভাবিত বিভিন্ন প্রযুক্তি নিয়ে একটি মেলার আয়োজন করা হবে বাকৃবি হ্যালিপেডে। দুপুর সাড়ে তিন টার দিকে ওই মেলা প্রদর্শনীর উদ্বোধন করবেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। এ পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের ৬ অনুষদের উদ্ভাবিত বিভিন্ন প্রযুক্তি প্রদর্শিত হবে সেখানে। মেলা প্রদর্শন শেষে দেশের প্রথম হাওর ও চর উন্নয়ন ইনস্টিটিউটের ভিত্তি প্রস্তর উদ্বোধন করবেন রাষ্ট্রপতি মো. আব্দুল হামিদ।

একই দিনে অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে বাকৃবি অ্যালামনাই সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত হবে বিকাল সাড়ে চারটায়। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রায় ৪ হাজার গ্রাজুয়েট এবং তাদের পরিবারসহ প্রায় ৫ হাজার জন অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করবেন। বিকাল চারটায় অ্যালামনাইগণের স্মৃতিচারণের পর বিশেষ অবদানের জন্য ১১ জন অ্যালামনাইকে বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে সংবর্ধনা দেওয়া হবে। যৌথ উদ্যোগে বাকৃবি ও বাকৃবি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের অনুষ্ঠানটির আয়োজন করবেন। এরপর সন্ধ্যা সাতটার দিকে অ্যালামনাইদের জন্য এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হবে।

দেশের বর্ধনশীল জনসংখ্যার খাদ্য ও পুষ্টি নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ১৯৬১ সালের ১৮ আগস্ট প্রতিষ্ঠিত হয় বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়। বিশ্বব্যাপী সবুজ বিপ্লবের এই যুগে কৃষি শিক্ষা, গবেষণা ও সম্প্রসারণের মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয়টি তাদের লক্ষ্য পূরণে এগিয়ে চলছে।

এপর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আন্তর্জাতিক মানসম্পন্ন ৪৬ হাজার ১২৫ জন দক্ষ কৃষি গ্রাজুয়েট ডিগ্রি লাভ করেছেন। আর বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল গ্র্যাজুয়েটদের একটি প্ল্যাটফর্মের আওতায় নিয়ে আসার লক্ষ্যে কাজ করছে বাকৃবি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন।

বাকৃবি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের যুগ্ম সম্পাদক ও কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশনের যুগ্ম মহাসচিব অধ্যাপক ড. একেএম জাকির হোসেন বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল অ্যালামনাইদের সহযোগিতায় একটি আর্থিক ফান্ড তৈরি করার চিন্তা ভাবনা আছে আমাদের। ওই অর্থ দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা, গবেষণা ও অবকাঠামোগত উন্নয়ন করা হবে। এছাড়াও শুধু দেশের মধ্যেই নয় সারা বিশ্বের মধ্যে যেনো বাকৃবি র‌্যাংকিংয়ে এগিয়ে যায় সেই লক্ষ্যে আমরা কাজ করে যাব।

This post has already been read 2396 times!