Sunday 2nd of October 2022
Home / পরিবেশ ও জলবায়ু / প্রায় সাড়ে ১৩ কোটি টাকা ব্যায়ে খুলনায় সুপেয় পানির মেগা প্রকল্প

প্রায় সাড়ে ১৩ কোটি টাকা ব্যায়ে খুলনায় সুপেয় পানির মেগা প্রকল্প

Published at ডিসেম্বর ১৮, ২০১৭

ফকির শহিদুল ইসলাম(খুলনা):
খুলনার নয়টি উপজেলায় সুপেয় পানি সরবরাহের লক্ষে সাড়ে ১৩ কোটি ৪৫ লাখ টাকা ব্যায়ে একটি মেগা প্রকল্প হাতে নেয়া হয়েছে। প্রকল্পের মধ্যে দেড় হাজারটি রেইন ওয়াটার হারভেস্টিংসহ গভীর নলকূপ এবং পাইপ লাইন স্থাপনসহ সংশ্লিষ্ট কার্যক্রম গ্রহণ করা হচ্ছে।

রবিবার (১৭ ডিসেম্বর) দুপুরে খুলনা জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত খুলনা জেলা উন্নয়ন সমন্বয় কমিটির মাসিক সভায় এ তথ্য জানানো হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক মো. আমিন উল আহসান।

সভায় প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুত বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পের অগ্রগতিসহ বিভিন্ন দপ্তরের উন্নয়ন কর্মকান্ড এবং এ সংক্রান্ত সমস্যা নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়। সভায় নগরীর বিভিন্ন রাস্তা ও দোকানের সামনে যত্রতত্র ময়লা ফেলার বিষয়ে সিটি কর্পোরেশনের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হয় এবং কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের অনুরোধ করা হয়। প্রয়োজনে সংশ্লিষ্ট দোকানের ট্রেড লাইসেন্স বাতিলের পরামর্শ দেন জেলা প্রশাসক।

সভায় কেডিএ’র পক্ষ থেকে জানানো হয়, খুলনাবাসীর পরম কাক্সিক্ষত ময়ূরী আবাসন প্রকল্পের কাজ দ্রুত শুরু হবে। গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী বলেন, প্রয়োজনীয় জমি না পাওয়ার কারণে সরকারি শিশু হাসপাতাল ও তেরখাদা ফায়ার স্টেশন নির্মাণের কাজ শুরু করা যাচ্ছে না। এ বিষয়ে জেলা প্রশাসক এবং সংশ্লিষ্ট উপজেলা চেয়ারম্যান বিষয়টি অগ্রাধিকার ভিত্তিতে সমাধানের প্রতিশ্রুত প্রদান করেন।

সড়ক ও জনপথ বিভাগ সংক্রান্ত আলোচনায় অংশ নিয়ে বিভিন্ন উপজেলার চেয়ারম্যান বলেন, বর্তমান সরকার দেশের অনেক উন্নয়ন করছে কিন্তু রাস্তাঘাট খারাপ থাকলে জনমনে নেতিবাচক ধারণা তৈরি হয়। রাস্তা নির্মাণে বা সংষ্কারে বিলম্ব হলেই জনগণ ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে। তাই ক্ষতিগ্রস্ত রাস্তাগুলোর সংস্কার কাজ দ্রুততম সময়ের মধ্যে সম্পন্ন করতে হবে।

সভায় জেলা প্রশাসক মো. আমিন উল আহসান বলেন, প্রতিটি উন্নয়ন কর্মকান্ডে স্থানীয় জনগণকে সম্পৃক্ত করতে হবে, যাতে তাদের মধ্যে কোন ধরনের ভুল বোঝাবুঝির সৃষ্টি না হয়। স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সাথে সমন্বয়ের মাধ্যমে প্রতিটি প্রকল্প বাস্তবায়নের পরামর্শ দেন তিনি।

সভায় জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, সিভিল সার্জন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক), অতিরিক্ত পুলিশ সুপার, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, কেসিসি প্রতিনিধিসহ কমিটির অন্যান্য সদস্যগণ অংশগ্রহণ করেন।

This post has already been read 1358 times!