Saturday 1st of October 2022
Home / অন্যান্য / বিএআরসিতে সার্কের ‘৩৩ চার্টার ডে’ পালন

বিএআরসিতে সার্কের ‘৩৩ চার্টার ডে’ পালন

Published at ডিসেম্বর ১১, ২০১৭

নিজস্ব সংবাদদাতা : রাজধানীর ফার্মগেটস্থ বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা কাউন্সিল অডিটরিয়ামে রবিবার (১০ডিসেম্বর) ৩৩তম সার্ক চার্টার ডে উপলক্ষে সেমিনারের আয়োজন করা হয়। বিএআরসি, ডিএই, বিএআরআই, ব্রি, বিএসআরআই, কেজিএফ, সিমিট, ইরি এবং এসিআই যৌথভাবে এক্সিবিশন কাম রিজিওনাল সেমিনার অন এগ্রিকালচারাল মেকানাইজেশন ফর সাসটেইনেবল ইনটেনসিফিকেশন অব এগ্রিকালচার বিষয়ক সেমিনারের আয়োজন করে। দুটি সেশনে সেমিনারটি অনুষ্ঠিত হয়। সকালের সেশনে পরিকল্পনামন্ত্রী আ.হ.ম মুস্তফা কামাল প্রধান অতিথি হিসেবে সেমিনারের উদ্বোধন করেন।

উদ্বোধনী বক্তব্যে মন্ত্রী বলেন, যান্ত্রিকীকরণের ফলে কৃষিক্ষেত্রে বৈপ্লবিক পরিবর্তন ঘটায় বাংলাদেশ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ। কৃষি যান্ত্রিকীকরণের ফলে কৃষি খাতের বেকার শ্রমিকদের প্রশিক্ষণের মাধ্যমে, শিল্পখাতে স্থানান্তর করা হবে। কৃষি গবেষণা কাউন্সিলে সার্ক আয়োজিত সরকারি-বেসরকারি ১০ প্রতিষ্ঠানের অংশগ্রহণে এক দিনের কৃষি যান্ত্রিকীকরণ মেলার উদ্বোধন করেন পরিকল্পনামন্ত্রী। বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা কাউন্সিলে নির্বাহী চেয়ারম্যান ড. ভাগ্য রানী বণিক এর সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন কৃষি মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (পিপিসি) মোহাম্মদ নজমুল ইসলাম। স্বাগত বক্তব্য দেন সার্ক এগ্রিকালচার সেন্টারের পরিচালক ড. এস এম বখতিয়ার।

সেমিনারের দুপুরের সেশনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী এম.পি। মন্ত্রী বলেন, বর্তমান সরকারের কৃষকবান্ধব নীতির কারণে কৃষিতে আমরা এতো সাফল্য অর্জন করতে পেরেছি। এজন্য মাননীয় প্রধান জননেত্রী শেখ হাসিনা ১৯৯৯ সালে বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচির স্বীকৃতি হিসেবে সেরেস পদকে ভূষিত হন। কৃষি যান্ত্রিকীকরণ বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, কৃষি শ্রমিকের একটি বড় অংশ শিল্প ও পরিবহন খাতে স্থানান্তরিত হচ্ছে এবং অনেক শিক্ষিত বেকার যুবকরা শহরমুখী হয়ে যাচ্ছে। শ্রমিক সংকট ও কৃষি উৎপাদনশীলতা ধরে রাখতে হলে কৃষিতে যান্ত্রিকীকরণের বিকল্প নেই।

কৃষি মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (পিপিসি) মোহাম্মদ নজমুল ইসলাম এর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা কাউন্সিলে নির্বাহী চেয়ারম্যান ড. ভাগ্য রানী বণিক, সিমিট বাংলাদেশের ড. টি.পি টিওয়ারী, কৃষি গবেষণা ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক ড. ওয়ায়েস কবির। মেকানাইজেশন অব এগ্রিকালচারাল ভ্যালু চেইন ফর সাসটেইনেবল ইনটেনসিফিকেশন অব এগ্রিকালচার ইন সার্ক রিজিয়ন বিষয়ে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন থাইলেন্ডের এশিয়ান ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজির এমিরিটাস অধ্যাপক ড. গজেন্দ্র সিং।

উল্লেখ্য, আঞ্চলিক সহযোগিতা বৃদ্ধির মাধ্যমে এ অঞ্চলকে অর্থনৈতিকভাবে সমৃদ্ধ করার উদ্দেশ্যে এ অঞ্চলের ৭টি দেশ বাংলাদেশ, ভারত, পাকিস্তান, নেপাল, ভূটান, শ্রীলংকা এবং মালদ্বীপ ১৯৮৫ সালে ৮ ডিসেম্বর ঢাকায় অনুষ্ঠিত প্রথম সার্ক সম্মেলনে ‘সার্ক চার্টার’এ স্বাক্ষর করে। বিভিন্ন মন্ত্রণালয়, বিভাগ, দপ্তরসমূহের বিজ্ঞানী, কর্মকর্তা, বিশেষজ্ঞবৃন্দ সম্প্রসারন কর্মীগণ সেমিনারে অংশগ্রহণ করেন।

This post has already been read 2392 times!