২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ৫ ডিসেম্বর ২০২১, ১ জমাদিউল-আউয়াল ১৪৪৩
শিরোনাম :
https://mailtrack.io/trace/link/f26343803e1af754c1dd788cd7a73c22043d5987?url=https%3A%2F%2Finnovad-global.com%2Flumance&userId=1904341&signature=5e74e7dc17531970

‍‍‍‍‍খুলনা ও সাতক্ষীরা জেলার সাড়ে ৮ লাখ মানুষের খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হয়েছে

Published at নভেম্বর ২৩, ২০২১

নিজস্ব প্রতিবেদক: দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা: মো. এনামুর রহমান বলেছেন, ইউএসএআইডি’র নবযাত্রা প্রকল্পের মাধ্যমে ওয়ার্ল্ড ভিশন (বাংলাদেশ) এবং দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় কর্তৃক খুলনা ও সাতক্ষীরা জেলার ৮,৫৬,১১৬ জন অতি দরিদ্র মানুষের খাদ্য নিরাপত্তা, পুষ্টি ও দুর্যোগ সহনশীলতা নিশ্চিত করা হয়েছে । তিনি বলেন, উপকূলবর্তী ও দুর্গম এলাকার মানুষের জন্য নবযাত্রা প্রকল্প বাস্তবায়নের অভিজ্ঞতা এবং শিখনগুলো সরকারসহ আরও বৃহত্তর অংশীদারদের সাথে শেয়ার করে নেয়া খুবই গুরুত্বপূর্ণ যেন সরকার বাংলাদেশীদের স্বাস্থ্য,পুষ্টির টেকসই উন্নয়ন এবং গুরুত্বপূর্ণ পরিষেবাগুলি বজায় রাখতে সক্ষম হয়।

প্রতিমন্ত্রী আজ (২২ নভেম্বর) ঢাকায় হোটেল সোনারগাঁওয়ে আয়োজিত ” A Multi-sectoral Integrated Food Security Program Enhancing Community Resilience in South West Bangladesh: Lessons- Learned from USAID- Nova Jatra project”শীর্ষক কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন ।

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মোহসীন এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কর্মশালায়  স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়, মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তর, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়,ইউএসএআইডি ও অন্যান্য দাতা সংস্থা এবং সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন বেসরকারি সংস্থার ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ অংশগ্রহণ করেন ।

সভাপতির বক্তৃতায় মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মোহসীন বলেন, “আজকের কর্মশালা আমাদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ,কারণ বাংলাদেশ সরকার ৮ম পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করছে এবং নবযাত্রার কর্মসুচী এর সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ । বাংলাদেশ যেহেতু এসডিজি অর্জনের পথে রয়েছে, তাই মানবাধিকার হিসেবে গর্ভবতী ও স্তন্যদানকারি নারী ও শিশুর খাদ্য নিরাপত্তা, স্বাস্থ্য ও পুষ্টি নিশ্চিত করতে আমাদেরকে একসাথে কাজ করতে হবে ।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে  ইউএসএআইডি মিশন ডিরেক্টর ক্যাথরিন স্টিভেনস বলেন, “নবযাত্রার মাধ্যমে, আমরা ৮৫০,০০০ জন এরও বেশি মানুষের কাছে পৌঁছাতে সক্ষম হয়েছি এবং তাদের সহনশীলতা বৃদ্ধিতে প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম এবং তথ্য সরবরাহ করেছি । আমি আশা করি একটি স্বাস্থ্যকর এবং সমৃদ্ধ দেশ গড়ার লক্ষ্যে অর্জিত সাফল্যগুলি আমরা অব্যাহত রাখতে পারব ।”

উল্লেখ্য,নবযাত্রা’ আমেরিকান সরকারের আন্তর্জাতিক উন্নয়ন সংস্থা ইউএসএআইডি এর অর্থায়নে সাত বছর মেয়াদী একটি প্রকল্প, যার প্রধান লক্ষ্য হলো বাংলাদেশের দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলের নারী-পুরুষের সমতা নিশ্চিত করার মাধ্যমে খাদ্য নিরাপত্তা, পুষ্টি ও দুর্যোগ সহনশীলতার উন্নতি সাধন । মা ও শিশুস্বাস্থ্য,পুষ্টি, নিরাপদ পানি, পয়ঃনিস্কাশন ও স্বাস্থ্যবিধি চর্চা, কৃষি ও বিকল্প জীবিকায়ন, দুর্যোগ ঝুঁকি প্রশমন, সুশাসন ও সামাজিক দায়বদ্ধতা এবং নারী-পুরুষ সমতা বিষয়ক কার্যক্রম সমন্বিতভাবে নবযাত্রা প্রকল্পটি ৮৫৬,১১৬ জন প্রত্যক্ষ উপকারভোগীকে উদ্দেশ্য করে খুলনা জেলার দাকোপ ও কয়রা উপজেলা  এবং সাতক্ষীরা জেলার শ্যামনগর ও কালিগঞ্জ উপজেলায় বাস্তবায়ন করছে ।

This post has already been read 125 times!

Fixing WordPress Problems developed by BN WEB DESIGN