৮ ফাল্গুন ১৪২৫, ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৪ জমাদিউস-সানি ১৪৪০
শিরোনাম :

HUVEPHARMA® ও Jims Tech এর যৌথ উদ্যোগে কক্সিডিওসিস ও গাট হেলথ বিষয়ক সেমিনার

Published at ডিসেম্বর ১৪, ২০১৮

নিজস্ব প্রতিবেদক: পোলট্রির গাট হেলথ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। অন্যদিকে কক্সিডিওসিস বা রক্ত আমাশয় মুরগির জন্য একটি ঘাতক ব্যাধি যা অর্থনৈতিকভাবে খামারি ও উদ্যোক্তাদের ভীষণ রকমের ক্ষতি করে। বিষয় দুটোকে গুরুত্ব দিয়ে বিশ্বের খ্যাতিমান কোম্পানি HUVEPHARMA® বৃহষ্পতিবার (১৩ ডিসেম্বর) রাজধানীর অভিজাত হোটেল রেডিসান ব্লু ঢাকা ওয়াটার গার্ডেনে “Technial Seminar on Coccidiosis & Gut health” শীর্ষক কারিগরি সেমিনারের আয়োজন করে। সহযোগি প্রতিষ্ঠান হিসেবে ছিল দেশের পোলট্রি সেক্টরে স্বনামধন্য কোম্পানি এবং HUVEPHARMA® এর দেশীয় এজেন্ট জিমস্ টেক ইন্টারন্যাশনাল।

সেমিনারের শুরুতে শুভেচ্ছা বক্তব্যে জিমস টেক ইন্টারন্যাশনাল -এর ম্যানেজিং পার্টনার ডা. আলী ইমাম বলেন, দেশের  পোলট্রি শিল্প বর্তমানে ক্রান্তিলগ্ন পার করছে। বছর খানেকেরও বেশি সময় ধরে টানা মন্দায় শিল্পটি এখন মূমূর্ষ অবস্থায় পর্যুদস্ত। এর প্রধান কারণ, আমাদের সম্বনয়হীনতা ও ঐক্যের অভাব। আমরা যে যার মতো চলছি কোন নিয়ন্ত্রণ নেই, চাহিদা ও যোগানের মধ্যে ভারসাম্য নেই। ফিজিবিলিটি স্টাডি না করেই আমরা নতুন নতুন ফার্ম, ফিডমিল দিয়ে বসছি। আমরা এখনো ঐক্যবদ্ধভাবে এক টেবিলে বসতে পারছিনা। এসবের একমাত্র আমাদের মধ্যে ঐক্য নেই। ঐক্য নেই বলেই পোলট্রি শিল্পের জন্য আমরা কোন কার্যকর নীতিমালা করতে পারছিনা। পোলট্রি শিল্পকে বাঁচাতে হলে সবাই এক টেবিলে বসে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার কোন বিকল্প নেই।

তিনি আরো বলেন, ইদানিং পোলট্রি শিল্পে এন্টিবায়োটিকের ব্যবহারের বিষয়টি খুব আলোচিত হচ্ছে। সরকার থেকে বলা হচ্ছে, এন্টিবায়োটিক ব্যবহার নিষেধ। কিন্তু পানিতে ঠিকই এর ব্যবহার হচ্ছে এবং উদাহরণ হিসেবে টাইলোসিন এর কথা বলেন। এর প্রধান কারণ, পোলট্রিতে এন্টিবায়োটিকের ব্যবহারের বিষয়টি কোন পলিসি দ্বারা নিয়ন্ত্রিত নেই, সুষ্পষ্ট কোন ব্যাখ্যাও নেই। দ্বিমুখী নীতিমালার কারণে এমনটি হচ্ছে।

সেমিনারে HUVEPHARMA® SEA -এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক Mr. O.P Singh বলেন, সারাবিশ্বে পোলট্রি বার্ডের জেনেটিক পরিবর্তন হচ্ছে। আগামী দশকে এশিয়া মহাদেশ পোলট্রি শিল্পের নেতৃত্ব স্থানে থাকবে ঠিকই তবে অনেক চ্যালেঞ্জও মোকাবেলা করতে হবে। আগামীতে এ উপমহাদেশের পোলট্রি শিল্পে পানি, লোকবল, লজিস্টিক এবং ভূমি – এ চারটি বিষয় সবচেয়ে বড় সমস্যার কারণ হবে। বিষয়গুলোর ব্যাপারে আমাদের আগেভাগেই সজাগ থাকতে হবে। এজন্য খামারি, উদ্যোক্তা থেকে শুরু করে ফিডমালিক সবাইকে পোলট্রি বিষয়ে আরো জ্ঞান অর্জন করার বিকল্প নেই।

বেলজিয়াম থেকে আগত HUVEPHARMA® N.V. -এর Global Product Manager (Anticoccidials) Mr. Ben Dehaeck (DVM)  সেমিনারে “Challlenge in Broiler Farming and its Relevance in optimizing Efficient Broiler Meat Production” শীর্ষক টেকনিক্যাল প্রেজেন্টেশন উপস্থাপন করেন।

সেমিনারে “Understanding the Paradigm of Gut health interfacing Dysbacteriosis” শীর্ষক প্রেজেন্টেশন উপস্থাপন করেন HUVEPHARMA® SEA এর Director (Technical), Dr. Devendar Hooda ডা. দেবেন্দার হুদা (Dr. Devendar Hooda)।

তিনি বলেন, ডিসব্যাকটেরিওসিস। (Dysbacteriosis) পোলট্রি শিল্পে গুরুত্বপূর্ণ এবং উদীয়মান এক সমস্যা। নেক্রোটিক এন্টারিসিস, কক্সিডিওসিস এবং ডিসব্যাকটেরিওসিস একই সূত্রে বাঁধা। এগুলোকে মোকাবেলার জন্য আমাদের সমন্বিত উদ্যোগ দরকার। Dysbacteriosis সমাধানে একক কোন স্ট্যান্ডার্ড নেই। NSPase এবং Probiotics পোলট্রির গাট হেলথের উপরে খুবই ভালো প্রভাব ফেলে, জানান ডা. দেবেন্দার হুদা।

টেকনিক্যাল প্রেজেন্টেশন শেষে সেমিনারে আগত অতিথিগণ পোলট্রি সম্পর্কে বিভিন্ন টেকনিক্যাল প্রশ্নের উত্তর জানতে চান এবং সেগুলোর সমাধান দেন আগত বিশেষজ্ঞগণ। সেমিনারে দেশের পোলট্রি শিল্পের সাথে জড়িত বিভিন্ন উদ্যোক্তা, পেশাজীবী ও বিশেষজ্ঞগণ উপস্থিত ছিলেন।

HUVEPHARMA® SEA -এর কান্ট্রি  হেড ডা. এম.এম. আমিনুর রহমান সমাপনী বক্তব্যে সেমিনারে উপস্থিত হওয়ার জন্য আগত অতিথিদের ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান।

This post has already been read 200 times!

Fixing WordPress Problems developed by BN WEB DESIGN