৫ ভাদ্র ১৪২৬, ১৯ আগস্ট ২০১৯, ১৮ জিলহজ্জ ১৪৪০
শিরোনাম :

ষাঁড় সংগ্রহ ও বিক্রির কৌশল সম্পর্কে ঢাকায় প্রশিক্ষণ কর্মশালা

Published at ফেব্রুয়ারি ২, ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক: খামার করার আগে গরু চেনা এবং কেনা বা সংগ্রহ করা অত্যন্ত গুরুত্বপুর্ণ একটি বিষয়। কারণ, সঠিক মানের বা জাতের গরু সংগ্রহের ওপর ডেইরি/ ক্যাটল ফার্মের লাভ-লোকসানের বিষয়টি অনেকটা নির্ভরশীল।

বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়ে শুক্রবার (০১ ফেব্রুয়ারি) বাংলাদেশ মার্জিনাল ডেইরি অ্যান্ড ফ্যাটেনিং ফার্মারস সোসাইটির উদ্যোগে “Bull Collection for Fattening Project: Int. & Out” শীর্ষক প্রশিক্ষণ কর্মশালার আয়োজন করা হয়। রাজধানীর মোহাম্মদপুর বেড়ীবাঁধ সংলগ্ন বছিলা গার্ডেন সিটিতে অবস্থিত মেঘডুবি ডেইরি ফার্মে উক্ত কর্মশালার আয়োজন করা হয়।

বাংলাদেশ প্রাণি গবেষণা ইনস্টিটিউট (বিএলআরআই) এর প্রানী সাস্থ্য বিভাগের বিজ্ঞানী ডা. মুহাম্মদ জুলফিকার এতে উপস্থিত ছিলেন। তিনি কোয়ারাইন্টাইন বা সংগনিরোধ বিষয়ে খামারীদের সাথে বিস্তারিত আলোচনা করেন। এ সময় তিনি ক্ষুরারোগ (এফএমডি) কি এবং কীভাবে সহজেই রোগটিকে নিয়ন্ত্রণ করা যায় সেই সম্পর্কিত বুকলেট খামারীদের মাঝে বিতরণ করেন।

কর্মশালায় উপস্থিত মেঘডুবি এগ্রোর কর্ণধার আলী শাহীন মোটাতাজাকরণের উদ্দেশ্যে সংগ্রহ করতে গরুর কোন কোন বিষয় খেয়াল রাখতে হবে এবং কিভাবে লালন-পালন করতে হবে সে বিষয়ে বিস্তারিত ধারণা দিয়ে বলেন, গরু ক্রয় করার সময় জাতের পাশাপাশি গরুর গঠন চেনা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। নয়তো প্রতারিত হওয়ার সুযোগ থাকে। দুধের গরুর ক্ষেত্রে গাভীর পরিবর্তে বকনা বাঁছুর ক্রয় করা বুদ্ধিমানের কাজ। কারণ, ফার্মে গরুর কোয়ানটিটি গুরুত্বপূর্ণ। শুধুমাত্র কোরবানি ঈদকে সামনে রেখেই গরু পালন করলে চলবেনা। সারা বছরের জন্য গরু পালন করতে হবে। লাভের ক্ষেত্রেও অতিরিক্ত লাভ করার মানসিকতা পরিহার করতে হবে।

তিনি বলেন, ফার্মিং করার সময় অনেক উদ্যোক্তা খুঁটিনাটি বিষয়গুলো খরচের হিসেবে আনেননা। কিন্তু মনে রাখতে হবে, এটি একটি ব্যবসা। তাই খুঁটিনাটি যাবতীয় খরচ হিসেবের মধ্যে আনতে হবে। নয়তো সাদা চোখে ব্যবসায় লাভ মনে হলেও সর্বমোট হিসেবে লোকসান হবে।

কর্মশালায় বাংলাদেশ মার্জিনাল ডেইরি অ্যান্ড ফ্যাটেনিং ফার্মারস সোসাইটির কোষাধ্যক্ষ শাহীনূর আলম বলেন, গরুর খামার সম্পূর্ণই একটি বিজ্ঞানভিত্তিক ব্যবসা। তাই এর ব্যবস্থাপনাও হতে হবে বিজ্ঞানভিত্তিক। কোরবানীর পশুকে অবশ্যই কোয়ারাইন্টাইন ও ভ্যাকসিন এবং কৃমিমুক্ত করতে হবে। খামার করার আগে জেনে বুঝে আসুন এবং অভিজ্ঞ খামারীদের পরামর্শ নিন। গরু যেহেতু তৃণভোজী প্রাণি তাই এটিকে যথাসম্ভক ঘাস অথবা সাইলেজ সরবরাহ করুন।

এছাড়াও তিনি সংগঠনের সাংগঠনিক যাবতীয় বিষয় তুলে ধরেন এবং নতুন সদস্য সংগ্রহ ও নতুন প্রশিক্ষণ মডিউল এর পরবর্তী ১০ টি কোর্স নিয়ে তিনি বিস্তারিত বলেন।

মেঘডুবি এগ্রো ও ভেট লাউঞ্জের সহযোগিতায় আয়োজিত প্রশিক্ষণ কর্মশালাতে দেশের ৯ জেলার ৩২ জন খামারি অংশ নেন।

This post has already been read 1277 times!

Fixing WordPress Problems developed by BN WEB DESIGN