২৮ আষাঢ় ১৪২৭, ১২ জুলাই ২০২০, ২১ জিলক্বদ ১৪৪১
শিরোনাম :

মেহেরপুর সদরে কৃষকদের মাঝে বিনামূল্যে সবজি উপকরণ ও নগদ অর্থ বিতরণ

Published at জুন ২৯, ২০২০

মো. জুলফিকার আলী : কুষ্টিয়ার মেহেরপুর সদরে জেলা প্রশাসন ও কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের আয়োজনে খরিফ-১/২০২০-২১ মৌসুমে পারিবারিক কৃষির আওতায় সবজি পুষ্টি বাগান স্থাপনের লক্ষ্যে কৃষি প্রণোদনা কর্মসূচীর আওতায় ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষকদের মাঝে বিনামূল্যে উপকরণ ও নগদ অর্থ বিতরণ অনুষ্ঠানের শুভ উদ্ধোধন ২৯ জুন জেলা প্রশাসনের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে জুম এপ্লিকেশনের মাধ্যমে প্রধান অতিথি হিসেবে ছিলেন মেহেরপুর-১ আসনের এম,পি ও জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী অধ্যাপক ফরহাদ হোসেন। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে উদ্বোধনী  অনুষ্ঠানের শুরুতে সুধীজনদের শুভেচ্ছা জানিয়ে স্বাগত বক্তব্যে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, মেহেরপুরের উপ পরিচালক বলেন, দেশরত্ন মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী ১ ইঞ্চি জমিও যেন পতিত না থাকে। সে অনুযায়ী বসত বাড়ির আঙিনায় সবজি উৎপাদনের ২২৮টি প্রদর্শনী স্থাপনের কর্মসূচি নেয়া হয়েছে। এ সকল কর্মসূচি বাস্তবায়নের জন্য মেহেরপুর সদরের ইউনিয়ন পর্যায়ে ১৬০টি এবং মুজিবনগরের ইউনিয়ন পর্যায়ে ১২৮টি পরিবারকে সবজির পুষ্টি বাগান স্থাপনের জন্য পারিবারিক কৃষির আওতায় বীজ, সাইনবোর্ড ও মোবাইল ব্যাংক এর মাধ্যমে রাসায়নিক সার, জৈব সার এবং সবজি বাগান ঘেরার জন্য ১৯৩৫ টাকা বিতরণ করা হচ্ছে। পারিবারিক বসতবাড়ি আঙিনায় ১ শতাংশ জমিতে ১২ রকমের সবজি উৎপাদন করতে হবে। সবজির বাগান স্থাপনে কৃষকদের পক্ষে একা করা সম্ভব হবে না, এজন্য কৃষি বিভাগের মাঠ পর্যায়ে উপসহাকারী কৃষি অফিসার ও  উপপরিচালকসহ সহযোগিতা করবে বলে প্রধান অতিথিকে অবহিত করেন।

প্রধান অতিথি হিসেবে জুম এপ্লিকেশনের মাধ্যমে মেহেরপুর-১ আসনের এম,পি ও জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী অধ্যাপক ফরহাদ হোসেন বলেন, করোনাকালীন সময়ে খাদ্য নিরাপত্তায় দেশে অর্থনৈতিক বিপর্যয় না হয় সে লক্ষ্যে বর্তমান সরকার কৃষিতে সার্বিক উন্নয়নের জন্য বিভিন্নভাবে কৃষকদেরকে কৃষি যন্ত্রপাতি ক্রয়ে ভুর্তকি, কৃষি ঋণ ও বিনামূল্যে সার ও বীজসহ প্রণোদনা কর্মসূচি গ্রহণ করছেন। তিনি অরো বলেন, এসব কর্মসূচীর কার্যক্রম বাস্তবায়নের জন্য কাঙ্খিত কৃষক নির্বাচন করতে হবে। বসতবাড়ির আঙ্গিনায় কম বেশি খোলা জায়গা থাকে। তাই সেসব স্থানে শাকসবজি চাষ করে পারিবারিক পুষ্টির চাহিদা মিটানোর পাশাপাশি বাড়তি আয়েরও ব্যবস্থা করা যায়। তাই আপনারা সবজির বীজ  সঠিকভাবে রোপন ও পরিচর্যা করে সবজি বাগান বাস্তবায়ন করলে লাভবান হবেন বলে উল্লেখ করেন।।

অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, মুজিবনগর ও মেহেরপুর সদরের উপজেলা নির্বাহী অফিসারবৃন্দ, উপজেলা কৃষি অফিসারবৃন্দ। এছাড়াও  উপস্থিত ছিলেন মেহেরপুর ৯টি ইউনিয়নের চেয়ারম্যানবৃন্দ, গণমাধ্যমের কর্মী, সাংবাদিকবৃন্দ প্রমূখ।

অনুষ্ঠান শেষে প্রধান অতিথি জুম এপ্লিকেশনের মাধ্যমে চাষীদের মধ্যে রাজস্ব খাতের অর্থায়নে বাস্তবায়িত ২৮৮ টি পরিবার কে বীজ, সাইনবোর্ড ও মোবাইল ব্যাংক এর মাধ্যমে রাসয়নিক সার, জৈব সার এবং সবজি বাগান ঘেরার জন্য ১৯৩৫ টাকা বিতরণ করা হয়।

This post has already been read 259 times!

Fixing WordPress Problems developed by BN WEB DESIGN