২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ৮ ডিসেম্বর ২০১৯, ১১ রবিউস-সানি ১৪৪১
শিরোনাম :

রাসায়ানিক সার ব্যবহারের পূর্বে অবশ্যই মাটি পরীক্ষা করতে হবে

Published at নভেম্বর ১৯, ২০১৯

পাবনা সংবাদদাতা: একজন মানুষের সুস্থ সবল ও সুন্দর জীবন যাপনের জন্য যেমন নিয়মিত ও পরিমিত আহার গ্রহণ করা প্রয়োজন ঠিক তেমনি মাটি থেকে অধিক উৎপাদনের জন্য মাটিতে পর্যাপ্ত পরিমাণ জৈব সার ব্যবহারের পাশাপাশি প্রয়োজন মাফিক সুষম সার ব্যবহার করা উচিত । তবে মাটিতে রাসায়ানিক সার ব্যবহারের পূর্বে অবশ্যই মাটি পরীক্ষা করতে হবে।

“সুস্থ জীবনের জন্য সুস্থ মাটি”এ প্রতিপাদ্যের আলোকে মৃত্তিকা সম্পদ উন্নয়ন ইনস্টিটিউট, পাবনার উদ্যোগে মৃত্তিকা গবেষণা এবং গবেষণা সুবিধা জোরদারকরণ প্রকল্পের আওতায় জেলার সদর উপজেলার ভাড়ারা ইউনিয়নের কোলাদি বড় মাঠে স্থাপিত মাটি পরীক্ষার ভিত্তিক সুষম সার ব্যবহারের উপর (প্রায়োগিক ট্রায়েলের)  আয়োজিত মাঠ দিবসে এসব কথা বলেন প্রধান অতিথি কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের পাবনা জেলার উপ-পরিচালক কৃষিবিদ মো. আজাহার আলী।

তিনি বলেন, মাটি পরীক্ষা করে  জমিতে সুষম মাত্রায় রাসায়নিক সার ব্যবহার করলে সারের যে অবচয় রোধ হয় এবং ফলন বেশী পাওয়া যায় যা প্রদর্শনী প্লটের ফলন এলাকার কৃষকদের প্রত্যক্ষ করেছে। এ জন্য তিনি এস.আর.ডি.আই কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জানান। সেই সাথে তিনি উপস্থিত কৃষকদের দ্রুত মাটি পরীক্ষা করে ফসল চাষাবাদ করার জন্য অনুরোধ জানান।

এস.আর.ডি.আই পাবনা জেলার উদ্ধর্তন কর্মকর্তা কৃষিবিদ মো. ফারুক হোসেন এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মাঠ দিবসে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ এ.এ মাসুদ বিল্লাহ , পাবনা কৃষি তথ্য সার্ভিসের সহ: তথ্য অফিসার (অ.দা.) তুষার কুমার সাহা ও মাছরাঙ্গাঁ টিভির ব্যুরো চীপ সাংবাদিক উৎপল মির্জা।

কৃষকদের  মধ্য থেকে বক্তব্য রাখেন এলাকার আদর্শ কৃষক মো. সিরাজুল ইসলাম। তিনি তার জমির মাটি পরীক্ষা করে চাষ করার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন।

অনুষ্ঠানের সভাপতি বলেন, যথেচ্ছা রাসায়নিক সার মাটিতে ব্যবহারের ফলে মাটির উর্বরা শক্তি দিন দিন কমে যাচ্ছে, যার ফলে সঠিক যত্ন পরিচর্যা করেও কৃষকেরা  ভালো ফলন থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন । তিনি সারের অপচয় রোধে মাটি পরীক্ষার মাধ্যমে সুষম মাত্রায় সার ব্যবহার করে জমির উর্বরতা রক্ষায় উপস্থিত কৃষকদের এগিয়ে আসার অনুরোধ জানান।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য  রাখেন সংশ্লিষ্ট ব্লকের উপ সহকারী কৃষি অফিসার মো. ফয়েজ উদ্দিন । তিনি এস.আর.ডি.আই. কর্তৃক মাটি পরীক্ষ ভিত্তিক বিনা ধান-৭ জাতে সুষম মাত্রায় সার ব্যবহারের নিয়মাবলী সহ অন্তবর্তীকালীন যত্ন পরিচর্যা বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরেন। অনুষ্ঠানে কৃষি সংশ্লিষ্ট বিভাগের কর্মকর্তা কর্মচারী, এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ সহ শতাধিক কৃষক উপস্থিত ছিলেন।

This post has already been read 273 times!

Fixing WordPress Problems developed by BN WEB DESIGN