২৬ শ্রাবণ ১৪২৭, ৯ আগস্ট ২০২০, ১৯ জিলহজ্জ ১৪৪১
শিরোনাম :

পোলট্রি ও হাঁসের খামার রেজিস্ট্রেশন করবেন যেভাবে

Published at মে ৫, ২০২০

প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তর থেকে খামার রেজিস্ট্রেশনের ব্যাপারে বেশ জোরেশোরেই আলোচনা চলছে বেশকিছুদিন ধরেই। কিন্তু দেশের বেশিরভাগ খামারি জানেনইনা কিভাবে রেজিস্ট্রেশন করবেন। আবার অনেকে “খামার রেজিস্ট্রেশন” ঝামেলাপূর্ণ/ অযথা বিষয় মনে করে এই দিকে এগোতেই চান না। বাস্তবে খামার রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়াটা কিন্তু সহজ। এ ব্যাপারে উপজেলা প্রাণিসম্পদ অফিস রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়া আপনাকে সহযোগিতা করবে। কাজেই যারা এখনো খামার রেজিস্ট্রেশন করেননি, তারা দ্রুত উপজেলা প্রাণিসম্পদ অফিস যোগাযোগ করে রেজিস্ট্রেশন করে ফেলতে পারেন এখনি।

উপজেলা প্রাণিসম্পদ অফিসে খামার রেজিস্ট্রেশন করা যেমন নাগরিক হিসেবে দায়িত্ব, তেমনি সরকারি কোন সহযোগিতা পাওয়ার জন্য এটি আবশ্যকও বটে। আরেকটি বিষয়, রেজিস্ট্রেশন কিন্তু শুধুমাত্র বাণিজ্যিক খামারের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য, পারিবারিক খামারের জন্য নয়। তাহলে আসুন, “জাতীয় পোল্ট্রি উন্নয়ন নীতিমালা ২০০৮” অনুযায়ী প্রথমেই আমরা জেনে নিই বাণিজ্যিক এবং পারিবারিক খামার এর সংজ্ঞা।

পারিবারিকপোল্ট্রি

পারিবারিক পোল্ট্রি বলতে উন্মুক্ত (Scavenging) বা অর্ধ-উন্মুক্ত (Semi-scavenging) অবস্থায় পরিবারের সদস্যদের শ্রমের মাধ্যমে পালিত পোল্ট্রিকে বুঝায়, যা পরিবারের আয় ও খাদ্য নিরাপত্তা বৃদ্ধিতে সহায়ক ভূমিকা পালন করে।

বাণিজ্যিকপোল্ট্রি

বাণিজ্যিক পোল্ট্রি বলতে ব্যবসার উদ্দেশ্যে সম্পূর্ণ আবদ্ধ অবস্থায় মেঝেতে (Floor) অথবা খাঁচায় (Cage) প্রতিপালিত অধিক উৎপাদনশীল (ডিম ও মাংস) বাণিজ্যিক প্রজাতির পোল্ট্রিকে বুঝায়। ব্যবসায়িক উদ্দেশ্যে ১০০ বা তদূর্ধ্ব সংখ্যক পোল্ট্রি পালন বাণিজ্যিক পোল্ট্রি হিসেবে গণ্য হবে।

কিন্তু রেজিস্ট্রেশন আপ্লিকেবল হবে ১ হাজার বা তদূর্ধ্ব সংখ্যক পোল্ট্রি পালন করলে; এবং বাণিজ্যিক খামার স্থাপনেও দূরত্বের একটি মৌলিক শর্ত রয়েছে; যেমনঃ

ক. বাণিজ্যিক খামার ঘনবসতি এলাকা এবং শহরের বাইরে স্থাপন করতে হবে;

খ. একটি বাণিজ্যিক খামার থেকে আরেকটি খামারের দূরত্ব ন্যূনতম ২০০ মিটার হতে হবে;

রেজিস্ট্রেশনপ্রক্রিয়া

উপজেলা প্রাণিসম্পদ অফিসে খামার রেজিস্ট্রেশনের জন্য আপনি গেলে একটা ফর্ম (ছবিতে দেখুন) দিবে। ফর্মটা ফিলাপ করে আপনার খামারে মুরগির সংখ্যা অনুযায়ী নির্দিষ্ট অঙ্কের টাকা রেজিস্ট্রেশন ফি হিসেবে সোনালী ব্যাংকে ট্রেজারী চালানের মাধ্যমে জমা দিয়ে চালান এর কপিটা প্রাণিসম্পদ অফিসে জমা দিলেই আপনার কাজ কিন্তু শেষ!

মুরগির সংখ্যা অনুযায়ী রেজিস্ট্রেশন ফি

ব্রয়লার মুরগির খামার

এ-শ্রেণী: (১০০০১ বা তদুর্ধ্বে; রেজিস্ট্রেশন ফি: ১০ হাজার টাকা, নবায়ন ফি: ১৫শ’ টাকা (প্রতি বছর)

বি-শ্রেণী: (৫০০১থেকে ১০০০০) রেজিস্ট্রেশন ফি: ৫ হাজার টাকা, নবায়ন ফি: ৭শ’ টাকা (প্রতি বছর)

সি-শ্রেণী: (১০০১ থেকে ৫০০০) রেজিস্ট্রেশন ফি: ২ হাজার ৫শ’ টাকা, নবায়ন ফি: ৪শ’ টাকা (প্রতি বছর)

লেয়ার মুরগির খামার

এ-শ্রেণী (২০০০১ বা তদুর্ধ্বে) রেজিস্ট্রেশন ফি: ১৫ হাজার টাকা,নবায়ন ফি: ২হাজার ৫শ’ টাকা (প্রতি বছর)

বি-শ্রেণী(১০০০১ থেকে ২০০০০)রেজিস্ট্রেশন ফি: ১০ হাজার টাকা, নবায়ন ফি: ১ হাজার ৫শ’ টাকা (প্রতি বছর)

সি-শ্রেণী(১০০১ থেকে ১০০০০) রেজিস্ট্রেশন ফি: ৫ হাজার টাকা, নবায়ন ফি: ৭শ’ টাকা (প্রতি বছর)

হাঁসের খামার

এ-শ্রেণী (৫০০১ বা তদুর্ধ্বে)রেজিস্ট্রেশন ফি: ৫ হাজার টাকা, নবায়ন ফি: ৬শ’ টাকা (প্রতি বছর)

বি-শ্রেণী(৩০০১থেকে ৫০০০)রেজিস্ট্রেশন ফি: ৩ হাজার টাকা, নবায়ন ফি: ৪শ’ টাকা (প্রতি বছর)

সি-শ্রেণী (১০০১ থেকে ৩০০০)রেজিস্ট্রেশন ফি: ১ হাজার টাকা, নবায়ন ফি: ১শ’ ৫০ টাকা (প্রতি বছর)

উল্লেখ্য যে, রেজিস্ট্রেশন বাবদ ফি/ রাজস্ব সরকারি কোষাগারে জমা দেয়ার কোড; হাঁস এবং মুরগি (পোল্ট্রি) : ১-৪৪৪১-০০০০-২৩৩৫

(আপডেট / সঠিক ফি এবং ব্যাংক কোড উপজেলা প্রাণিসম্পদ অফিস থেকে সরবরাহ করা হবে)

পূরণকৃত ফর্ম এবং টাকা জমাদানের চালান এর কপি প্রাণিসম্পদ অফিসে জমা হওয়ার পর উপজেলা প্রাণিসম্পদ অফিস থেকে আপনার আবেদনটি জেলা প্রাণিসম্পদ অফিসে পাঠানো হবে। জেলা প্রাণিসম্পদ থেকে পরিদর্শনের জন্য আবার উপজেলা প্রাণিসম্পদ অফিস এ পাঠানো হবে। উপজেলা থেকে আপনার ফার্ম পরিদর্শনের করে রিপোর্ট সহ পূণরায় জেলাতে যাবে; জেলাতে নিবন্ধিত হয়ে উপজেলা প্রাণিসম্পদ অফিসে ফেরত আসলেই (এ প্রক্রিয়ায় ১/২ মাস সময় লেগে যেতে পারে, কিন্তু আপনাকে কিছুই করতে হবে না) আপনি আপনার রেজিস্ট্রেশন নাম্বারসহ কপি পেয়ে যাবেন। মানে আপনার খামার রেজিস্টার্ড বা নিবন্ধিত।

রেজিস্ট্রেশন ফর্ম ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন : Registration form poultry

তথ্যসূত্র: চিক ভ্যালী।

This post has already been read 12892 times!

Fixing WordPress Problems developed by BN WEB DESIGN