২ আষাঢ় ১৪২৬, ১৬ জুন ২০১৯, ১৩ শাওয়াল ১৪৪০
শিরোনাম :

দেশের পোলট্রি, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ খাতের উন্নয়নে উল্লেখযোগ্য অবদান রাখতে চায় বাফিটা

Published at জানুয়ারি ২, ২০১৮

দেশের পোলট্রি, মৎস্য ও গবাদিপশু খাদ্য তৈরির কাঁচামাল আমদানি ও সরবরাহকারীদের সংগঠন (BAFIITA) বাফিটা। সুধীর চৌধুরী বাফিটা (Bangladesh Agro Feed Ingredients Importers & Traders Association) -এর সভাপতি। সংগঠনটির কার্যক্রম, সমস্যা, পরিকল্পনা ইত্যাদি নানা খুঁটিনাটি বিষয়ে তাঁর সাক্ষাৎকার গ্রহণ করেন এগ্রিনিউজ২৪.কম সম্পাদক ও সিইও মো. খোরশেদ আলম জুয়েল। সম্মানিত পাঠকদের উদ্দেশ্যে সাক্ষাৎকারের চুম্বক অংশ এখানে তুলে ধরা হলো-

সুধীর চৌধুরী, সভাপতি, বাফিটা

এগ্রিনিউজ২৪.কম : বাফিটা (BAFIITA) সংগঠন সম্পর্কে জানতে চাই?

সুধীর চৌধুরী : বাফিটা (BAFIITA) মূলত পোলট্রি, মৎস্য ও গবাদিপশুদের জন্য যেসব খাদ্য বা ফিড তৈরি হয় সেসব ফিড তৈরির মূল কাঁচামাল আমদানিকারক ও সরবরাহকারীদের সংগঠন। কৃষিখাতের বিভিন্ন উপখাতের মধ্যে লাইভস্টক বিশেষ করে পোলট্রি শিল্পের অবদান বিগত এক যুগে একটা ব্যাপক ইতিবাচক পরিবর্তন হয়েছে। দেশের মৎস্য সেক্টরে চোখে পড়ার মতো সফলতা এসেছে। ডেইরি খাতে উজ্জ্বল সম্ভাবনার হাতছানি দিচ্ছে। সুতরাং এসব সেক্টর সম্প্রসারিত হওয়ার সাথে সাথে আমাদের মতো আমদানিকারক ও সরবরাহকারীদের সম্পৃক্ততা বেড়েছে। যেকোন সেক্টর বড় হওয়ার সাথে নতুন সম্ভাবনা যেমন থাকে, সেই সাথে দেখা দেয় নতুন নতুন সমস্যা। সম্ভাবনার পাশাপাশি সমস্যার বিষয়টি আমরা অনুভব করছিলাম দীর্ঘদিন ধরে। এসব বিষয় চিন্তা করেই আমরা সংগঠন করার সিদ্ধান্ত নিলাম এবং বাফিটা গঠন করলাম।

এগ্রিনিউজ২৪.কম : বাফিটা শুরু হয়েছে কখন থেকে এবং এর কার্যক্রম সম্পর্কে বলুন?

সুধীর চৌধুরী : ২০১৪ সনের ১১ নভেম্বর বাফিটা (Bangladesh Agro Feed Ingredients Importers & Traders Association) নামকরণ করা হয়। ২০১৫ সনের পহেলা আগস্ট আমরা সংগঠনের প্রথম বার্ষিক সাধারণ সভা করি। ২০১৭ সনের মার্চ মাসে জয়েন্ট স্টকে নিবন্ধন করি যার লাইসেন্স নং ২-৯৪৪/২০১৭ এবং অক্টোবর মাসের ২৩ তারিখে রেজিস্ট্রেশন প্রাপ্ত হয়। আমি শুরুতেই একটি কথা বলেছিলাম, যেকোন সেক্টর বড় হওয়ার সাথে নতুন নতুন সমস্যাও সামনে আসে। এসব সমস্যার সমাধান ও সামগ্রিক লাইভস্টক সেক্টরের উন্নয়নে অবদান রাখাই সংগঠনের মূল কাজ।

এগ্রিনিউজ২৪.কম : আপনাদের সেক্টরে বর্তমান সময়ে সবচেয়ে বেশি কোন ধরনের সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছেন?

সুধীর চৌধুরী : মিট অ্যান্ড বোন মিল (MBM) আমদানিতে এক ধরনের জটিলতা চলছে এটি একটি সমস্যা আমাদের জন্য। প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তর বিগত প্রায় এক বছরেরও বেশি সময় ধরে এটি আমদানির ছাড়পত্র (NoC) দিতে গড়িমসি করছেন। এছাড়াও গুটিকয়েক অসাধু ব্যবসায়ী ফিডমিলের নাম করে প্রয়োজনের চেয়ে কয়েকগুণ বেশি কাঁচামাল আমদানি করছে এবং সেগুলো দিয়ে তারা ফিড তৈরি না করে খোলা বাজারে বিক্রি করে দিচ্ছেন। রাজস্ব ফাঁকি দিতে ফিডমিলের নাম করে তারা ট্রেডারের ভূমিকা পালন করছেন। এর ফলে আমাদের মতো আমদানিকারকরা যেমন ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন তেমনি সরকার বিশাল অংকের রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। এছাড়াও কিছু অসাধু আমদানিকারকদের জন্য মাঝে মাঝে আমাদের বিব্রত হতে হয় যা সামগ্রিক সেক্টরকে ক্ষতিগ্রস্ত করে।

এগ্রিনিউজ২৪.কম : উল্লেখিত সমস্যাগুলো নিরসনে আপনাদের সংগঠনের পক্ষ থেকে কী কী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন?

সুধীর চৌধুরী : এমবিএম আমদানি জটিলতা নিরসনে সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের সাথে আমরা দীর্ঘদিন ধরে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছি। কিন্তু দীর্ঘদিন ধরে বিষয়টি ঝুলে থাকায় আমরা প্রচুর ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছি। ফিডমিলের নাম করে যাতে কেউ যাতে অতিরিক্ত কাঁচামাল আমদানি করে ট্রেডিং করতে না পারে সে ব্যাপারে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সাথে আমাদের আলোচনা চলছে। ভেজাল বা অসাধু ব্যবসায়ী যদি আমাদের সংগঠনের সদস্য হয়, তাহলে প্রাথমিকভাবে আমরা তাদেরকে চিঠি দিয়ে সতর্ক করি। এছাড়াও আমরা আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী এবং সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সহায়তা নিয়ে থাকি। ইতোপূর্বে সরকার এবং পোলট্রি শিল্পের অভিভাবক হিসেবে পরিচিত সংগঠন বিপিআইসিসি (বাংলাদেশ পোলট্রি ইন্ডাস্ট্রিজ সেন্ট্রাল কাউন্সিল) কে ঢাকার হাজারীবাগে অবস্থিত ট্যানার্জি বর্জ্য দিয়ে তৈরি ফিড কারখানা উৎখাতে আমরা সহযোগিতা করেছি।

এগ্রিনিউজ২৪.কম : মিট অ্যান্ড বোন মিল নিয়ে অনেক বিতর্ক রয়েছে। ইউরোপ থেকে এটি আমদানিতে এক ধরনের সীমীতকরণ করেছে সরকার। তাহলে, কেন এটি আমদানি করতে চাইছেন?

সুধীর চৌধুরী : দেখুন, এ বিষয়ে আমাদের অনেকের মধ্যে মারাত্মক একটি ভুল ধারনা রয়েছে। আমরা সে রকম এমবিএম আমদানি করতে চাইনা যেগুলো মাছ, মুরগি কিংবা প্রাণির মাধ্যমে মানব স্বাস্থ্যের কোন ক্ষতির কারণ হবে। আমরা নিজেরাও চাই আমদানি নিষিদ্ধ দেশ থেকে এসব আনতে না দেয়া হোক। কিন্তু আমরাতো সরকারের গাইডলাইন মেনেই আমদানি করতে চাইছি, তবুও আপত্তি থাকবে কেন?

এগ্রিনিউজ২৪.কম : বিষয়টি আরো খোলাসা করে বলবেন?

সুধীর চৌধুরী : অনেকেই মনে করেন, এমবিএম মানেই বুঝি শুকরের মাংসজাত পণ্য। আসলে ধারনাটি ভুল। আমরাও সে ধরনের পণ্য আমদানি করতে চাইনা যা সরকারের নীতিমালার বাইরে। কিন্তু আমাদেরতো সরকারের নির্দেশিত (ইড়ারহব) বা গরুর মাংসের এমবিএম আমদানির ছাড়পত্রও দেয়া হচ্ছেনা। পোলট্রি, মাছ কিংবা গরুর খাদ্য যা-ই তৈরি করতে যান না কেন আপনাকে ভালো প্রোটিন সোর্স লাগবে। কারণ, ভালো প্রোটিন সোর্স ছাড়া ভালো ফিড কেউ উৎপাদন করতে পারবেন না। এখন ভালোর ক্ষেত্রে উৎপাদন খরচ বা দামের একটি বিষয় জড়িত। আমরা মনে করি, সহনশীল মূল্যে ফিড উৎপাদন করতে এমবিএম -এর বিকল্প নেই। অন্যথায় ফিড উৎপাদন খরচ বেড়ে যাবে, যার নেতিবাচক প্রভাব পড়বে খামারি থেকে সাধারণ মানুষের ওপর।

এগ্রিনিউজ২৪.কম : এক্ষেত্রে সরকারের কাছে আপনাদের দাবীগুলো কি?

সুধীর চৌধুরী : আমাদের প্রধান দাবী বাণিজ্য নীতির নিয়ম মেনে আমরা যাতে এমবিএম আমদানি করতে পারি সে ব্যাপারে সহায়তা করা হোক। প্রয়োজনে বন্দরে সেসব পরীক্ষা করবে, এতে আমাদের কোন আপত্তি নেই। দ্বিতীয় দাবী হচ্ছে, ফিডমিলের নাম করে যাতে কেউ প্রয়োজনের অতিরিক্ত কাঁচামাল আমদানি করে খোলা বাজারে বিক্রি না করতে পারেন সে ব্যবস্থা নেয়া হোক। তৃতীয় দাবি হচ্ছে, ফিড তৈরির প্রয়োজনীয় কাঁচামাল আমদানির ওপর আরোপিত ভ্যাট এবং ট্যাক্স আমদানিকারক ও ফিড উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানের জন্য সমহারে করা হোক। শেষ দাবী হচ্ছে, গুটিকয়েক অসাধু ব্যবসায়ীর দৌড়াত্মে যে পোলট্রি ও প্রাণিসম্পদ খাতের বিশাল ক্ষতি হচ্ছে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হোক। প্রয়োজনে সরকারকে আমরা এ ব্যাপারে সর্বাত্মক সহযোগিতা করবো।

এগ্রিনিউজ২৪.কম : বাফিটা নিয়ে আপনাদের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা কী?

সুধীর চৌধুরী : বিদেশ থেকে গুণগত মানসম্পন্ন কাঁচামাল আমদানি করে যাতে সঠিক সময়ে ফিড উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানের কাছে সরবরাহ করা যায় সে ব্যাপারটি পুরোপুরি নিশ্চিত করার চেষ্টা করছি। এছাড়াও বাফিটার অধীনে আমরা নিজস্ব ল্যাবরেটরী স্থাপন করতে চাই যেখানে আমাদের আমদানিকৃত পণ্য পরীক্ষা করা হবে। আমরা যখন নিজেরাই নিশ্চিত হবো আমাদের আমদানিকৃত পণ্যে ক্ষতিকর কিছু নেই তখন অন্য যে কেউ পরীক্ষা করলেও আমাদের কোন আপত্তি থাবেনা।

This post has already been read 2376 times!

3 comments

  1. Very good Initiatives, feeling positive. All the best Agrinews24.com.

  2. ওনার মোবাইল নাম্বার দরকার। হেল্প প্লিজ। এনিমেল ফিডে স্টেরয়েড আর পোল্ট্রি ফিডের হেভি মেটাল নিয়ে কথা বলতে চাই।

Fixing WordPress Problems developed by BN WEB DESIGN