১৫ কার্তিক ১৪২৭, ৩০ অক্টোবর ২০২০, ১৪ রবিউল-আউয়াল ১৪৪২
শিরোনাম :

দেশীয় মুরগির নতুন জাত “বিএলআরআই মাল্টি কালার টেবিল চিকেন” বাজারজাত করবে আফতাব

Published at জুন ২১, ২০২০

বাংলাদেশ পোল্ট্রি শিল্প কৃষি উপখাতের অংশ হিসেবে জাতীয় অর্থনীতির অগ্রগতিতে একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছে। আফতাব হ্যাচারী এই অগ্রযাত্রার অংশ হিসেবে মানসম্পন্ন পোল্ট্রি পণ্য বাজারজাতকরণ ও সেবা প্রদান করে আসছে। এরই ধারাবাহিকতায় বর্তমান পোল্ট্রি শিল্পের চাহিদার কথা মাথায় রেখে আফতাব হ্যাচারী শীঘ্রই বাজারে নিয়ে আসছে বাংলাদেশ প্রাণিসম্পদ গবেষণা ইনস্টিটিউট (বিএলআরআই) সাভার, ঢাকা কর্তৃক উদ্ভাবিত দেশীয় মুরগির নতুন জাত “ বিএলআরআই মাল্টি কালার টেবিল চিকেন”, যা আফতাব হ্যাচারীর মাধ্যমে বাজারজাত করা হবে।

বাংলাদেশ প্রাণিসম্পদ গবেষণা ইনস্টিটিউট (বিএলআরআই) এর পোল্ট্রি উৎপাদন গবেষণা বিভাগের বিজ্ঞানীগণ দেশীয় জার্মপ্লাজমের সাথে এদেশের আবহাওয়া উপযোগী উন্নত জাতের জার্মপ্লাজমের সংকরায়নের মাধ্যমে এই জাতটি উদ্ভাবন করে। উদ্ভাবিত এই নতুন জাতটি অধিক উৎপাদন ক্ষমতাসম্পন্ন, যা স্বাদ ও গঠনে দেশীয় মুরগির অনুরূপ। দেশীয় মুরগির বিকল্প হিসেবে খামারীরা এই নতুন জাতের মাধ্যমে মাংস উৎপাদন করে অধিক লাভবান হতে পারবে।

বাংলাদেশ প্রাণিসম্পদ গবেষণা ইনস্টিটিউট (বিএলআরআই) এর অনুমোদন সাপেক্ষে একমাত্র আফতাব হ্যাচারীই এই মুরগি বিক্রয়, বিপণন ও বাজারজাত করতে পারবে। বিএলআরআই এর তথ্য অনুযায়ী মানুষের জীবন মানের উন্নয়ন ও ক্রয় ক্ষমতা বৃদ্ধির ফলে প্রাণীজ আমিষের চাহিদা বেড়েছে। কিন্তু দেশীয় মুরগির অপ্রতুলতা ও বাজারে নিরাপদ ও স্বাস্থ্য ঝুঁকির কারণে  মুরগির মাংস ও স্বাদের উপর ভোক্তার আস্থা প্রতিনিয়ত কমে যাচ্ছে। এই সংকট উত্তরণের জন্য উদ্ভাবিত নতুন এই জাতের মুরগি বাজারে দেশীয় মুরগির চাহিদা ও স্বাদ ফিরিয়ে আনতে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা পালন করবে বলে বাংলাদেশ প্রাণিসম্পদ গবেষণা ইনস্টিটিউট (বিএলআরআই) ও আফতাব হ্যাচারী উভয়ই আশাবাদী।

– সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

This post has already been read 3487 times!

Fixing WordPress Problems developed by BN WEB DESIGN