২৯ শ্রাবণ ১৪২৭, ১২ আগস্ট ২০২০, ২৩ জিলহজ্জ ১৪৪১
শিরোনাম :

করোনায় ক্ষয়ক্ষতি উত্তরণে কর্মপরিকল্পনা  প্রণয়নে কাজ করছে পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগ  -প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য্য

Published at মে ১৩, ২০২০

নিজস্ব প্রতিবেদক: করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) প্রাদুর্ভাব এর  ক্ষতিকর প্রভাব থেকে  উত্তরণে  করণীয় নির্ধারণ এবং কর্মপরিকল্পনা প্রণয়নের  জন্য পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগের  সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত  জরুরি সভায় আজ (১৯ মে, বুধবার)  স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগের প্রতিমন্ত্রী  স্বপন ভট্টাচার্য্য এমপি এ কথা বলেন।

সভায় নভেল করোনা ভাইরাস এর মহামারিজনিত কারণে পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়  বিভাগের আওতাধীন দপ্তর/সংস্থার কি পরিমান ক্ষতি হয়েছে, এই ক্ষতি কি ভাবে কাটিয়ে ওঠা যায়, দারিদ্র্য বিমোচনে  আগামীতে কিভাবে গ্রামীণ অর্থনৈতিক উন্নয়ন ও দারিদ্র্য বিমোচনে অবদান রাখা যায় , এসকল বিষয়ে দপ্তর সংস্থার প্রধানগণ মতামত প্রকাশ  করেন।

প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য্য বলেন,  করোনায় সম্ভাব্য ক্ষয়ক্ষতি থেকে উত্তরণে কর্মপরিকল্পনা প্রণয়নে কাজ করছে পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগ। দেশের দারিদ্র্য বিমোচনে পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগ  সরাসরি অবদান রাখছে। এই দুর্যোগে আমাদের আরও সক্রিয় হতে হবে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনার আলোকে আমরা সর্বাত্বকভাবে কাজ করে যাচ্ছি।  সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্ঠা ছাড়া এই দুর্যোগ মোকাবেলা সম্ভব নয়।

তিনি আরও বলেন,  বর্তমানে দেশে প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের (কোভিড-১৯) প্রাদুর্ভাবের কারণে সরকার ঘোষিত মাঠ পর্যায়ে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার অংশ হিসাবে গণ-পরিবহন, অন্যান্য যানবাহন চলাচল ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। ইতোমধ্যে কিছু কিছু এলাকা লক ডাউন হয়েছে এবং পর্যায়ক্রমে দেশের আরো কিছু এলাকা লক ডাউনের আওতায় আসতে পারে। এছাড়া নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যসামগ্রী ও ঔষধ ব্যতীত অন্যান্য মালামাল বিপণন বন্ধ রয়েছে। এ অবস্থার প্রেক্ষিতে সদস্যগণ ঋণ নিয়ে বিভিন্ন কাজে বিনিয়োগ করলেও বর্তমানে পণ্য উৎপাদনে নিয়োজিত সদস্যগণ কাঁচামাল সরবরাহ ও উৎপাদিত পণ্য বিপণন করতে না পারায় সুফল পাচ্ছে না। ফলে, উপকারভোগী সদস্যদের একদিকে যেমন পূর্বের ঋণ পরিশোধের সক্ষমতা নেই, অন্যদিকে পিডিবিএফ এর অপর্যাপ্ত ঋণ তহবিলের কারণে নতুন করে এসকল উপকারভোগীদের পুনরায় ঋণ প্রদান করা সম্ভব হবে না। এ বিভাগের আওতায় প্রায় দেড় কোটি মানুষের দারিদ্র্য বিমোচনে সরাসরিভাবে জড়িত।

সচিব মো. রেজাউল আহসান বলেন ,পল্লী দারিদ্র বিমোচনের জন্য  শুরু থেকেই একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছে এই বিভাগ, আমরা যেন থেমে না থাকি, সকলকে ঋণ  কার্যক্রম এর সাথে সম্পৃক্ত হতে হবে, কোথাও কোন যদি অসুবিধা হয় সঙ্গে সঙ্গে দপ্তর সংস্থার মাধ্যমে আমাকে জানাতে পারবেন। কোথায়  অসুবিধা হলো তা দূর করার চন্য প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহণ করব। তিনি আরো বলেন,  মাননীয়  প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে ও সকলের  প্রচেষ্টায় এ যুদ্ধে আমাদের  অবশ্যই জয়ী হতে হবে।

সভায় উপস্থিত  ছিলেন মিল্ক ভিটার চেয়ারম্যান শেখ নাদির হোসেন লিপু,  পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মো. আফজাল হোসেন, পিডিবিএফ এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক  মো. আমিনুল ইসলাম, এসএফডিএফ এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক  মো. এইচ এম আব্দুল্লাহ  সহ অন্যান্য কর্মকর্তাবৃন্দ।

This post has already been read 411 times!

Fixing WordPress Problems developed by BN WEB DESIGN