৮ কার্তিক ১৪২৬, ২২ অক্টোবর ২০১৯, ২৪ সফর ১৪৪১
শিরোনাম :

এবার ‍দুধের ১০টি নমুনায় এন্টিবায়োটিক সনাক্তের দাবী

Published at জুলাই ১৩, ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক: এবার ‍দুধের ১০টি নমুনায় এন্টিবায়োটিক পাওয়ার দাবী করেছেন আলোচিত অধ্যাপক আ.ব.ম ফারুক। শনিবার বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে পাঠানো তাঁর স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে তিনি এ দাবী করেছেন।

অধ্যাপক ফারুক জানান, গত সপ্তাহে আমরা আমরা এই পরীক্ষাটি পূণরায় সম্পন্ন করেছি। প্রথমবারের মতো এবারও পূর্বোক্ত ৫টি কোম্পানির ৭টি পাস্তুরিত প্যাকেটজাত দুধের একই জায়গা থেকে সংগৃহীত নমুনা এবং একই জায়গা থেকে খোলা দুধের ৩টি নুমুনা, অর্থাৎ ১০টি নমুনায় এন্টিবায়োটিকের উপস্থিতি একই নিয়মে একই উন্নত ল্যাবে পরীক্ষা করা হয় এর ফলাফল আগের মতোই উদ্বেগজনক। এবারও সবগুলো নমুনাতে এন্টিবায়োটিক সনাক্ত করা গেছে।

তিনি জানান, এন্টিবায়োটিকের মোট সংখ্যা ছিল ৪টি (অক্সি টেট্রাসাইক্লিন, এনরোফ্লক্সাসিন, সিপ্রোফ্লক্সাসিন এবং লেভোফ্লক্সাসিন)। এর মধ্যে আগেরবারে ছিলনা এমন এন্টিবায়োটিক ছিল ২টি। ১০টি নমুনার মধ্যে ৩টিতে এন্টিবায়োটিক পাওয়া গেছে ৪টি, 6টিতে এন্টিবায়োটিক পাওয়া গেছে ৩টি এবং ১টিতে এন্টিবায়োটিক পাওয়া গেছে ২টি।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বায়োমেডিক্যাল রিসার্চ সেন্টারের সদ্য সাবেক এই পরিচালক এর আগে (গত ২৫ জুন) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসী অনুষদের ফার্মেসী লেকচার থিয়েটারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে দুধ ও অন্যান্য খাদ্যপণ্য পরীক্ষার রিপোর্ট পেশকালে সংশ্লিষ্ট কোম্পানি ও  দায়িত্বপ্রাপ্ত সরকারি সংস্থাসমূহেকে প্রতিষ্ঠানগুলোকে দুধে এন্টিবায়োটিক আছে কি না সেটি নিয়মিতভাবে পরীক্ষা করার অনুরোধ জানান।

তিনি উল্লেখ করেন, আমরা ভবিষ্যতেও এই পরীক্ষাসহ অন্যান্য পরীক্ষাগুলোর ফলাফল জনস্বার্থে নিয়মিত প্রকাশ করবো।

This post has already been read 200 times!

Fixing WordPress Problems developed by BN WEB DESIGN